ঢাকা, সোমবার , ২০ জানুয়ারী ২০২০, ০৬ মাঘ ১৪২৬, ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বিক্ষোভে উত্তাল আসাম, হরতাল

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

ভারতের নিম্নকক্ষ লোকসভা বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস করেছে। এই বিলের অধীনে মুসলিমদের বাদ দিয়ে প্রতিবেশী দেশগুলোর ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের নাগরিকত্ব দেয়া হবে। সোমবার পার্লামেন্টের ভিতরে চরম উত্তেজনাপূর্ণ দৃশ্য এবং দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলে প্রতিবাদ বিক্ষোভের মধ্যে এই বিলটি পাস হয়েছে। এসব কথা লিখেছে বার্তা সংস্থা এএফপি। এতে আরো বলা হয়েছে, ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইন সংশোধনের প্রস্তাবিত এই বিলে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানে নির্যাতিত হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পারসি ও খ্রিস্টানদের ভারত নাগরিকত্ব দেয়ার কথা বলা হয়েছে। লোকসভায় সোমবার দিবাগত মধ্যরাতের পরে এ বিলের ওপর ভোট হয়। এর পক্ষে ভোট পড়ে ৩১১টি। বিপক্ষে পড়ে ৮০ ভোট। বিলটি পাস হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এক টুইটে তিনি বলেছেন, বিলটি ভারতের বহু শতাব্দীর পুরনো মানবিক মূল্যবোধের সঙ্গে সম্পর্কিত। খবরে বলা হয়, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে ভারতের আসামে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। এরই মধ্যে মঙ্গলবার ১১ ঘণ্টার বনধের ডাক দিয়েছে নর্থ ইস্ট স্টুডেন্টস অরগানাইজেশন-এনইএসও। এদিকে আসামের ডিব্রুগড়, জোড়হাটে বিক্ষোভ দেখাতে রাস্তায় নেমেছে মানুষজন। সকাল থেকেই জোরহাট, বঙ্গাইগাঁওয়ে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। অশান্তির কথা মাথায় রেখে আসামে বাতিল করা হয়েছে একাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা। নর্থ ইস্ট স্টুডেন্টস ওরগানাইজেশনের ডাকা বনধে আসামের গুয়াহাটির বহু জায়গায় দোকানপাট বন্ধ। রাস্তায় মানুষজনের দেখা নেই। ভারতের উত্তরপূর্বের রাজ্যের বনধকে সমর্থন করছে এসএফআই, ডিওয়াইএফআইসহ ভারতের একাধিক বাম ছাত্র সংগঠন। এর আগে সোমবার আসমে বনধের ডাক দিয়েছিল অল কোচ রাজবংশী স্টুডেন্টস ইউনিয়ন, অল অসম স্টুডেন্টস ইউনিয়ন। আজও সেখান চলছে বনধ। অশান্তির কথা মাথায় রেখে আসামের লখিমপুর ও সোনিতপুর জেলায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। এর আগে সোমবার টানা ১২ ঘণ্টার বিতর্কের পর ভারতের লোকসভায় বিতর্কিত নাগরিক সংশোধনী বিল পাস হয়েছে। পার্লামেন্টে বিলটির পক্ষে ভোট পড়ে ৩১১টি এবং বিপক্ষে ভোট পড়ে ৮০টি। খবরে বলা হয়, লোকসভায় নাটকীয়ভাবে পাস নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে ভারতের আসাম রাজ্যে ব্যাপক আন্দোলনে নেমেছে স্থানীয় বিভিন্ন সংগঠন। সোমবার মধ্যরাতে লোকসভায় পাস হয় বিতর্কিত নাগরিকত্ব বিল। লোকসভায় বিজেপির একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে। এনডিএ-র শরিক দলগুলো নিয়ে সেই গরিষ্ঠতা আরও বড় হয়েছে। কিন্তু এর পরও বিল নিয়ে ভোটাভুটি চান বিরোধীরা। বিলের পক্ষে ভোট পড়ে ৩১১টি। আর বিলের বিপক্ষে ৮০ টি ভোট পড়ে। ফলে বিলটি অনায়াসে পাস হয়ে যায়। বিলের বিরুদ্ধে শুরু থেকেই সোচ্চার ছিলেন বিরোধীরা। নাগরিকত্ব বিলের প্রতিবাদে বিক্ষোভে উত্তাল উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলো। আসামসহ বিভিন্ন এলাকায় হরতালের ডাক দিয়েছে বিভিন্ন সংগঠন। রাস্তায় নেমে চলছে সেøাগান, মিছিল। বিক্ষোভে সামিল হয়েছে ছাত্রছাত্রীরাও। সোমবারের পাশাপাশি মঙ্গলবারও ১২ ঘণ্টার হরতালের ডাক দিয়েছে নর্থ ইস্ট স্টুডেন্টস অর্গানাইজেশন। তাদের সমর্থন করেছে অল আসাম স্টুডেন্টস ইউনিয়ন। মঙ্গলবার সকাল থেকেই তার প্রভাব পড়েছে আসামের বেশ কয়েকটি এলাকায়। ত্রিপুরা, মণিপুর ও অরুণাচলেও চলছে বিক্ষোভ। মিছিল বের হয় দুই ছাত্র সংগঠনের। মিছিলে অংশ নেন বহু সংখ্যক মানুষ। এদিকে, গুয়াহাটির বেশ কয়েকটি জায়গায় বন্ধ রয়েছে দোকানপাট। বিক্ষোভ দেখা যায় ডিব্রুগড়েও। সকালে ওই এলাকায় বিরোধীরা টায়ার জ্বালিয়ে প্রতিবাদ করে। এএফপি, এনডিটিভি, টিওআই।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (12)
খুরশিদ শাহ ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২:১১ এএম says : 1
সারা বিশ্বের উচিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাসের প্রতিবাদ করা।
Total Reply(0)
রিপন ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২:১১ এএম says : 1
এসব করে ভারত তাদের ভাঙ্গণ ডেকে আনছে
Total Reply(0)
Abdul Hakim ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২:১২ এএম says : 2
কিছু বলার নাই
Total Reply(0)
Nazmul Rephat ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২:১২ এএম says : 1
May Allah help them ,
Total Reply(0)
Md Shahzahan ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২:১২ এএম says : 1
এসব ভুলের কারণেই ভারত একদিন টুকরো টুকরো হয়ে যাবে
Total Reply(0)
মোঃ আনোয়ার আলী ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৭:৩৪ এএম says : 0
সারা বিশ্বের মুসলমানদের এক এর প্রতিবাদ করা দরকার
Total Reply(0)
মোঃ আনোয়ার আলী ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৭:৩৫ এএম says : 0
সারা বিশ্বের মুসলমানদের একহয়ে এর প্রতিবাদ করা দরকার
Total Reply(0)
Bashar Sheikh ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:৩৪ পিএম says : 0
Ata BJP Think kortacena
Total Reply(0)
Abul Mia ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২:৪৬ এএম says : 0
হানিমুন শেষ
Total Reply(0)
Md.Abu Bakkar Siddique ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১০:২৫ পিএম says : 0
পিপীলিকার পাখা গজায় মরিবার তরে ঠিক একি ভাবে মোদী সরকারের অতিরিক্ত বাড়াবাড়ি শুরু হয়েছে ধ্বংসের তরে।।।ও যে একটা জঘন্য লোক সেটা ওর চেহারা দেখে বোঝা যায়।।।
Total Reply(0)
Md.Abu Bakkar Siddique ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১০:২৬ পিএম says : 0
পিপীলিকার পাখা গজায় মরিবার তরে ঠিক একি ভাবে মোদী সরকারের অতিরিক্ত বাড়াবাড়ি শুরু হয়েছে ধ্বংসের তরে।।।ও যে একটা জঘন্য লোক সেটা ওর চেহারা দেখে বোঝা যায়।।।
Total Reply(0)
taijul Islam ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৯:১৭ এএম says : 0
পিপীলিকার পাখা গজায় মরিবার তরে ঠিক একি ভাবে মোদী সরকারের অতিরিক্ত বাড়াবাড়ি শুরু হয়েছে ধ্বংসের তরে।।।ও যে একটা জঘন্য লোক সেটা ওর চেহারা দেখে বোঝা যায়।।।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন