সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১, ০৮ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

সারা বাংলার খবর

টেকসই উন্নয়নে দরকার শান্তি স্থিতিশীলতা : আইজিপি ড. জাবেদ পাটোয়ারী

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৮:২৪ পিএম

জনগণই পুলিশের মূলশক্তি উল্লেখ করে বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. জাবেদ পাটোয়ারী বলেছেন, পুলিশের জন্যই জনগণ। উন্নত বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্নের সহযাত্রী হিসেবে পুলিশ বাহিনী কাজ করে যাচ্ছে। টেকসই উন্নয়নের জন্য দরকার শান্তি ও স্থিতিশীলতা। প্রতিটি নাগরিকের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নিরন্তর কাজ করছে পুলিশের প্রতিটি সদস্য।

এ বাহিনীর প্রতিটি ভালো কাজে জনগণকে সহযোগিতার আহ্বান জানান তিনি। নগরীর দামপাড়া পুলিশ লাইন্স মাঠে বুধবার বিকেলে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ-সিএমপির ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন জনগণের নিরাপত্তায় পুলিশের নিরলস ভূমিকার প্রশংসা করে সন্ত্রাস ও দুর্নীতি দমনে পুলিশকে আরও বেশি কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে। ২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হলে নিরাপদ বাংলাদেশ গড়তে হবে। মহানগরীর ৭০ লাখ মানুষের নিরাপত্তায় সিটি কর্পোরেশন পুলিশ বাহিনীর সাথে কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবের রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি ও সিএমপির সাবেক কমিশনার ইকবাল বাহার, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. অনুপম সেন, মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দীন। উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ সালাম, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি, ওয়াসিকা আয়েশা খান এমপি, চিটাগাং চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক, সিএমপির সাবেক কমিশনার ও সাবেক অতিরিক্ত আইজিপি আবদুল জলিল মন্ডল, পুলিশ সুপার নূরেআলম মিনা, সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার আমেনা বেগম, এস এম মোস্তাক আহমেদ খান প্রমুখ।

পুলিশ মহাপরিদর্শক ড. জাবেদ পাটোয়ারী অতিথিদের সাথে নিয়ে বেলুন উড়িয়ে এবং কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে সিএমপির এক বছরের কার্যক্রমের উপর একটি প্রামাণ্য চিত্র তুলে ধরা হয়। রাতে সেখানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন