ঢাকা, শুক্রবার , ২৪ জানুয়ারী ২০২০, ১০ মাঘ ১৪২৬, ২৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

গ্যাবনের রাষ্ট্রপতি যেভাবে মুসলমান হয়ে গেলেন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১১:০৯ এএম

গ্যাবনের জনসংখ্যার বেশির ভাগ লোক খ্রিস্টান। তার মধ্যে ৪২.৩ শতাংশ রোমান ক্যাথলিক এবং ১২.৩ শতাংশ প্রটেস্ট্যান্ট খ্রিস্টান। আর ৯.৮ শতাংশ মানুষ মুসলিম।
১৯৭৩ সালের সেপ্টেম্বর মাস গ্যাবনের ইতিহাসে একটি স্মরণীয় দিন। কেননা, এ মাসেই গ্যাবনের প্রেসিডেন্ট আলবার্ট বারনায়ড ইসলাম গ্রহণ করেন। আলবার্টের ইসলাম গ্রহণ উপলক্ষে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ অনুষ্ঠানে ‘মুসলিম ওয়ার্ল্ড লিগের’ একটি প্রতিনিধিদল অংশগ্রহণ করে। তারা বারনায়ডকে পবিত্র কোরআনের একটি কপি এবং কাবার গিলাফ দিয়ে সম্মানিত করেন। এর সঙ্গে ছিল পবিত্র জমজমের পানি এবং মদিনার সুস্বাদু খেজুর। এ উপলক্ষে মুসলিম ওয়ার্ল্ড লিগের মহাসচিব বারনায়ডকে এক তারবার্তা প্রেরণ করেন এবং ইসলাম গ্রহণের জন্য তাকে আন্তরিকভাবে অভিনন্দন জানান। তাঁকে নিয়ে লিখেছেন ড. ইকবাল কবীর মোহন।

প্রেসিডেন্ট আলবার্ট বারনায়াডের ইসলাম গ্রহণের ঘটনা ছিল চিত্তাকর্ষক। তার সঙ্গে সঙ্গে আরো অনেক গণ্যমান্য ও বিশিষ্ট ব্যক্তি ইসলাম ধর্মকে কবুল করে নেন। আলবার্ট বারনায়ড ‘ওমর বনগো’ নাম ধারণ করেন। তার সঙ্গে যারা ইসলাম কবুল করেন তাদের নাম নিচে উল্লেখ করা হলো—

১. ওসমান স্নাহো, ২. মামাদসু মিকালা, ৩. ওডামাও মুসাডজি, ৪. আবদু রহমান মমবু, ৫. ইমাইলা মওবিও, ৬. বাসিরুও বিসালু, ৭. মাউসুরু মুসাবু, ৮. আবদু সালাম বুসাউবু, ৯. আলফা মাডুউবা, ১০. হাওয়া বিবালো, ১১. হিমাদুও মাবিকা, ১২. জিবরিল বুওসা, ১৩. আলিগো মিকালা, ১৮. বাউবাকার মিহিডো, ১৫. ইবরাহিম মাউসাদজি, ১৬. জামাদিউ মওবেয়ার, ১৭. ওসমান বেনজুগলি, ১৮. জিবরিল মাপাউজু, ১৯. তামদুলেই নামজুইজি, ২০. মুসতাফা মাউসাবু, ২১. ওসমান নগুমা, ২২. আবু বকর নাজামাকাকা, ২৩. হারুউনা বেনডিয়াকু, ২৪. জিবরিল ওবামি, ২৫. মামাদু জুউলডি, ২৬. মামাদিউ হিকালা, ২৭. আলিউ সাবিলুউ, ২৮. ইবরাহিম নাজিউ, ২৯. জিবরিলা কাউনবিলা, ৩০. ইবরাহিম ইয়ামবি, ৩১. ইবরাহিম মানডিউকিউ, ৩২. মামাদাউস মিবিকা, ৩৩. আলিউ মাজিউগু, ৩৪. আলিউ নাজিউলি, ৩৫. ওমার কাউতা, ৩৬. ওসমান কাউমবা, ৩৭. ওসমান মাওকাজিউ, ৩৮. মামাদিউ মাওবিবি, ৩৯. আবদু সালাম মবাউমবা, ৪০. আদামাউ মাউসাঈ, ৪১. আলফা নাগুমবা, ৪২. হালিদাউ আডিউ, ৪৩. ওমার সেইকু, ৪৪. আবু বকর মাপাউজু, ৪৫. ইদরিসা বাকিনদা, ৪৬. ওসমান নগুমা ও ৪৭. হাওয়া আবুদসি।

মধ্য আফ্রিকান দেশ গ্যাবনে ১৯৬৭ সালে মাবা সাত বছরের জন্য পুনরায় প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হন। আলবার্ট বারনায়ড বনগো ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী নিযুক্ত হন। মাবা ওই বছরের নভেম্বরে মারা যান। তখন মাত্র ৩১ বছর বয়সে আলবার্ট বারনায়ড বনগো প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ১৯৬৮ সালের ১২ মার্চ বনগো একমাত্র পার্টিভিত্তিক এক সংবিধান ঘোষণা করেন। তিনি ২ ডিসেম্বর প্রেসিডেন্টের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। ১৯৭৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন এবং ১৯৭৯ সাল ও ১৯৮৬ সালেও তিনি এ পদে পুনর্নির্বাচিত হন।

গ্যাবন ১৯৬০ সালে ফ্রান্সের কলোনি থেকে স্বাধীনতা লাভ করে। ১৭ আগস্ট দেশটির স্বাধীনতা দিবস। ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহা দেশের অন্যতম দুটি জাতীয় ছুটির দিন। আলবার্ট ১৯৫৯ সালে জসপাইন কামাকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর তিনি তাঁর স্ত্রীর ধর্ম ক্যাথলিকের প্রতি অনুরক্ত হন, যদিও তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে খ্রিস্টান হননি। ১৯৭৩ সালে তিনি ইসলাম গ্রহণের ঘোষণা দেন এবং ওমার নাম ধারণ করেন। তারপর তিনি পবিত্র মক্কায় হজব্রত পালন করেন। ১৯৭৮ সালের এপ্রিলে তিনি ছয় দিনের এক সফরে সৌদি আরবের রাজধানীতে গমন করেন। এ সময় বাদশাহ খালেদ বিন আবদুল আজিজের সঙ্গে তার সাক্ষাৎ হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
Md. Yeakub Ali ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০৭ পিএম says : 0
Alhamdulilla
Total Reply(0)
Anwar ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৮ পিএম says : 0
Request to All non Muslim brother Please red quran & Welcome to Islam
Total Reply(0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন