ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২ ফাল্গুন ১৪২৬, ৩০ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

রিমান্ডে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের ৩ নেতা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুরসহ তার অনুসারীদের ওপর হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের তিন নেতার তিন দিনের আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মঈনুল ইসলাম শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।
রিমান্ড আসামিরা হলেন, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আল মামুন, ঢাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক ইয়াসির আরাফাত ত‚র্য ও মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের একাংশের দফতর সম্পাদক মেহেদী হাসান শান্ত।
এদিন মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক আরিফুর রহমান সরদার আসামিদের আদালতে হাজির করে মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ও প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনের জন্য ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আবেদনের শুনানী শেষে ৩দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।
এ মামলার অভিযুক্ত আসামিরা হলেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আমিনুল ইসলাম বুলবুল, আল মামুন, এ এস এম সনেট, ইয়াসির আরাফাত তুর্য, ইমরান সরকার, ইয়াদ আল রিয়াদ, মাহবুব হাসান নিলয়, তৌহিদুল ইসলাম মাহিম। মামলায় আরও অজ্ঞাত ৩০ থেকে ৩৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। গত সোমবার আল মামুন ও ইয়াসির আরাফাত তুর্যকে আটক করে পুলিশ। গতকাল পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়েরের পর ওই মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়। রিমান্ড মঞ্জুর হওয়ার আরেক আসামি মেহেদী হাসান শান্তকে গ্রেফতার করা হয় মঙ্গলবার দুপুরে। পরে এ ঘটনায় মামলা করেছেন ভিপি নুরও। ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাসকে এক নম্বর ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইনকে দুই নম্বর আসামি করে ৩৭ জনের নামে মামলা দায়ের করেন তিনি।
গত রোববার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাকসু ভবনে ডাকসু ভিপি নুরসহ তার অনুসারীদের ওপর হামলা চালানো হয়। ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের অভিযোগ, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। এতে ভিপি নুরসহ তার অনুসারী বেশ কয়েকজন আহত হন। এ ঘটনায় আহত ২৪ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। এর মধ্যে ছয় জনকে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়। রোববার রাতে তুহিন ফারাবিকে লাইফ সাপোর্টেও নেওয়া হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ভিপি নুরসহ বাকি পাঁচ জনের শারীরিক অবস্থা শঙ্কামুক্ত।
এদিকে, ভিপি নুরসহ অন্যদের ওপর হামলার বিচার চেয়ে রোববার সন্ধ্যায় ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেয় প্রগতিশীল ছাত্রজোট। পরে সোমবার সারাদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিক্ষোভের ঘোষণা দেয় ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। এ হামলার ঘটনায় বিভিন্ন মহল থেকেও ওঠে নিন্দার ঝড়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন