ঢাকা বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ আশ্বিন ১৪২৭, ০৫ সফর ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ধানের শীষের গণজোয়ারে ভীত প্রতিপক্ষ : তাবিথ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল বলেছেন, গণসংযোগে ধানের শীষের পক্ষে গণজোয়ার দেখে প্রতিপক্ষ আতিকুল ইসলাম ভয় পেয়েছেন। মানসিকভাবে অশান্তিতে আছেন। তাই সত্য ঘটনাকে বিএনপির নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষ বলে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছেন। তিনি জানান, হামলার বিষয়ে নির্বাচন কমিশন কী পদক্ষেপ নেয়, তা জানতে ৪৮ ঘণ্টা অপেক্ষা করবেন।
গতকাল সকালে গাবতলীতে তার ওপর হামলার বিষয়ে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলামের বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি এ কথা বলেন। সকাল সাড়ে ১০টায় উত্তর সিটির ৪৯ নম্বর ওয়ার্ডের হাজি ক্যাম্পের সামনে নির্বাচনী জনসংযোগ শুরুর আগে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনি। সেখানেই তিনি এ সব কথা বলেন।

তাবিথ আউয়াল বলেন, হামলায় উত্তর সিটিতে আওয়ামী লীগের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মুজিব সারওয়ার উপস্থিত ছিলেন। তারা আমাকে চিহ্নিত করে হামলা করেছেন। এখন পুলিশকে প্রভাবিত করতে চেষ্টা করছেন। গত রাতে এ ঘটনায় থানায় মামলা নেয়নি। এখন আমরা নির্বাচন কমিশনের তদন্তের অপেক্ষায় আছি। বিএনপি নির্বাচন করছে না খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন করছে আওয়ামী লীগ নেতাদের এমন বক্তব্যর জবাবে তাবিথ বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন আজকে বাংলাদেশের বৃহত্তর জনমানুষের মুক্তির সংগ্রাম। তারা ভোটের মাধ্যমে রায় দিতে চান। কারণ, তারা দুর্নীতি ও দুঃশাসনকে প্রশ্রয় দেবেন না। খালেদা জিয়ার মুক্তি সবার মুক্তি সংগ্রামকে একত্র করবে।
তাবিথ যখন হাজিক্যাম্পের সামনে পথসভা করছিলেন, তখন সড়কের বিপরীত পাশে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা জটলা বেঁধেছিল।

ধানের শীষের প্রচারণার পাশেই আওয়ামী লীগের প্রচারণা চলছে। এতে সংঘর্ষ হওয়ার আশঙ্কা আছে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের কর্মীরাও তাদের নেতাদের কথা ও কাজ দেখে ঘৃনা প্রকাশ করছে এবং বিরক্ত হচ্ছে। সকলে চায় আনন্দ উৎসবের মধ্যে একটা সুষ্ঠু নির্বাচন। কিন্তু আওয়ামী লীগের নেতারা সেটা চায় না। আমি অনেক আওয়ামী কাউন্সিলর প্রার্থীর কাছে ভোট চেয়েছি, হাত মিলিয়েছি। শুভেচ্ছা বিনিময় করেছি। আজও লক্ষ্য করেছি, আমাদের নেতা আ স ম রব যখন বক্তব্য দিচ্ছিলেন রাস্তার উল্টোদিকে আওয়ামী নেতা-কর্মীরা জড়ো হয়েছেন। তারা বক্তব্য শুনছিলেন। তারা সমর্থন করে একমত হয়েছেন। এতে বুঝা যায়, আওয়ামী লীগের দু-একজন বিশেষ মহলের নেতার আচরণ দেখে বিরক্ত হচ্ছেন। প্রতিপক্ষকে হুঁশিয়ার করে দিয়ে তিনি বলেন, আমরা নির্বাচনকে বানচাল করার জন্য আওয়ামী লীগের দু’একজন শীর্ষ ব্যক্তিত্বকে প্রশ্রয় দেব না।

গতকালের হামলার বিষয়ে নির্বাচন কমিশনে পদক্ষেপের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা অভিযোগ দাখিল করেছি। আমরা দেখব নির্বাচন কমিশন তাদের ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে তদন্ত করে কী প্রতিবেদন দেয়। কমিশনের উচিত ছিল নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের ব্যাপারে তৎপর হওয়া। ম্যাজিস্ট্রেটরা সরকারের বেতন নিচ্ছেন, অথচ দায়িত্ব পালন করছেন না।

হাজিক্যাম্পের সামনে পথসভায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা আ স ম আবদুর রব বক্তব্য রাখেন। তিনি খালেদা জিয়ার মুক্তি ও ধানের শীষে ভোট চান। তিনি বলেন, আপনারা ভোট কেন্দ্রে যাবেন। ফলাফল না নিয়ে বাড়ি ফিরবেন না। এটা আপনাদের ন্যায্য অধিকার। ধানের শীষে ভোট দিলে দেশের মানুষ শান্তি পাবে, মুক্তি পাবে।
তিনি বলেন, গতকাল হামলা হয়েছে, সরকারকে জানিয়ে দিতে চাই গুন্ডামি করে, সন্ত্রাসী করে তাবিথকে পরাজিত করতে পারবেন না। তাবিথ আউয়ালকে ভোট দিলে মেট্রোপলিটন সরকার করা হবে। আপনারা নিরাপদে রাজধানীতে বসবাস করতে পারবেন।

হাজিক্যাম্প থেকে তাবিথ দক্ষিণখানের প্রেমবাগান, গাওয়াইর হয়ে চেয়ারম্যানবাড়ী ও থানা রোডে জনসংযোগ করেন। এরপর কাওলা স্টাফকোয়াটার, ৪৮নং ওয়ার্ডের নাগরিয়া বাড়ি, প্রতিবন্ধি সংস্থা, ৪৪নং ওয়ার্ডে দোবাদিয়া বাজার, কাচকুড়া, ৫০নং ওয়ার্ডের কসাই বাড়ী, আজমপুর কাঁচাবাজার গণসংযোগ চালান। সেখান থেকে উত্তরা ৪, ৬, ৮ ও ৯ নং সেক্টর পর্যন্ত গণসংযোগ করেন। এদিন গণসংযোগে হাজার হাজার নেতা-কর্মী অংশ নেন। রাস্তায় সমর্থক ও সাধারণ মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হন। বয়োজ্যেষ্ঠ অনেকে তাকে জড়িয়ে দোয়া করেন।
এ সময় তার সঙ্গে বিএনপি নেতাদের মধ্যে শামা ওবায়েদ, সাইফুল আলম নীরব, কলিমউদ্দিন আহমেদ মিলন, গফুর ভূঁইয়া, নজরুল ইসলাম আজাদ, ৪৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন (টিফিন ক্যারিয়ার প্রতীক), ৪৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আলী আকবরসহ (টিফিন ক্যারিয়ার) বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

গণসংযোগে হামলার বিচার চেয়ে ইসিতে তাবিথের চিঠি
ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালে প্রচারণায় হামলায় ঘটনায় নির্বাচন কমিশনে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে বিএনপি। সকালে মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের পক্ষে বিএনপি জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর নেতৃত্বে লিখিত অভিযোগ দেন দলটির নেতারা। লিখিত অভিযোগে ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচনে ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মুজিব সারোয়ার মাসুম এর প্রার্থিতা বাতিলের দাবি করা হয়।

লিখিত অভিযোগে তাবিথ আউয়াল বলেন, পূর্বনির্ধারিত গণসংযোগ অনুষ্ঠানে আমার নির্বাচনী প্রতিপক্ষ ‘আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আতিকুল ইসলামের পক্ষের নেতা-কর্মী সমর্থক ও সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড এর ঠেলাগাড়ি প্রতীকের কাউন্সিলর প্রার্থী মজিবুর রহমান মাসুম উপস্থিত থেকে স্বয়ং অতর্কিতভাবে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে এবং বিএনপি›র কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় নেতা-কর্মী-সমর্থকদের জঘন্যভাবে আক্রমণ করে। এই ঘটনায় আমি ভাগ্যক্রমে আমরা বেঁচে গেলেও এতে শারীরে ও মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হই, আমার নেতৃবৃন্দ ও কর্মী সমর্থক আহত হন।

আক্রমণের সময় পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা নিষ্ক্রিয় থাকে। পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা যদি আইন অনুযায়ী আরো সক্রিয় থাকতো তাহলে এই ধরনের পরিস্থিতির সৃষ্টি হতো না। উশৃংখল নেতা-কর্মী-সমর্থকদের শারীরিক নির্যাতন নিপীড়ন ও জঘন্য আক্রমণসহ এই ধরনের কার্যক্রম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনী আচরণ বিধিমালা ২০১৬এর ৭ বিধির (গ) উপ বিধি বিধান চরমভাবে লঙ্ঘিত হয়েছে বলে আমি মনে করি।
ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের ৯ নং ওয়ার্ডের ঠেলাগাড়ি প্রতীকের কাউন্সিলর প্রার্থী মুজিব সারোয়ার মাসুম ন্যাক্কারজনক আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে এবং আমার কর্মী-সমর্থককে আক্রমণ করে আহত করেছেন তার উপযুক্ত শাস্তি এবং সিটি কর্পোরেশন বিধিমালা ২০১৬ এর ৩২ বিধি অনুযায়ী প্রার্থীতা বাতিলের জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক শফিকুল হক মিলন।

মামলা নেয়নি থানা
ঘটনার পর মঙ্গলবার রাতে দারুস সালাম থানায় মামলা দায়ের করার জন্য গেলেও তা গ্রহণ করেনি। মামলার বাদী আমজাদ হোসেন শাহাদাতাকে দুই ঘণ্টা বসিয়ে রেখে মামলা না নেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিএনপি মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল। গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত কয়েক দফা পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ও দারুস সালাম থানার ওসির সঙ্গে যোগাযোগ করে মামলা গ্রহণ করার অনুরোধ করা হলেও তা আমলে নেয়নি।
তাবিথের মায়ের গণসংযোগ

গতকাল দুপুর মিরপুরের সেনপড়া-পর্বতা এলাকায় তাবিথ আউয়ালের পক্ষে গণসংযোগে নামেন তার মা নাসরিন ফাতেমা আউয়াল। তিনি ওই এলাকার স্থানীয় মহিলা দলের নেতা-কর্মীদের নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চান। এ সময় তিনি বলেন, তার ছেলের ওপর যে কায়দায় হামলা হয়েছে, তা সুষ্ঠু নির্বাচনের অন্তরায়। তিনি নির্বাচন কমিশনকে সকলের জন্য সমান সুযোগ তৈরির করার আহ্বান জানান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
জহির ২৩ জানুয়ারি, ২০২০, ১১:৪০ এএম says : 0
গণসংযোগে হামলার বিচার চেয়ে ইসিতে চিঠি দিয়ে কোন লাভ হবে না।
Total Reply(0)
তফসির আলম ২৩ জানুয়ারি, ২০২০, ১১:৪০ এএম says : 0
হামলা করে দমানো যাবে না
Total Reply(0)
নোমান ২৩ জানুয়ারি, ২০২০, ১১:৩৫ এএম says : 0
পুলিশ এটা পক্ষপাত মুলক আচারণ করেছে
Total Reply(0)
রিফাত ২৩ জানুয়ারি, ২০২০, ১১:২৭ এএম says : 0
ভীত থাকাটা স্বাভাবিক নয় কি ?
Total Reply(0)
সালমান ২৩ জানুয়ারি, ২০২০, ১১:৩৬ এএম says : 0
আপনি এগিয়ে যান। জনগণ আপনাদের শাশে আছে
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন