ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২ ফাল্গুন ১৪২৬, ৩০ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ঘাটাইলে ৩ স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে তিন স্কুলছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত রোববার রাতে উপজেলার সন্ধানপুর ইউনিয়নের বনের ভিতর সাতকুয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় গতকাল দুপুরে এক স্কুলছাত্রীর বাবা আবুল কালাম বাদী হয়ে অজ্ঞাত ৫/৬ জনকে আসামি করে ঘাটাইল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তারা সকলেই ঘাটাইল এস ই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। ধর্ষিতা স্কুলছাত্রীদের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ।
মামলার বিবরণ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত রোববার ঘাটাইল এস ই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক মিলাদ মাহফিল ছিল। চার স্কুলছাত্রী সকালে স্কুলের উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হয়। কিন্তু তারা স্কুলে না গিয়ে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ভাড়া করে দুই ছেলে বন্ধু হৃদয় ও শাহীনকে নিয়ে উপজেলার সাতকুয়া গ্রামে ঘাটাইল সেনানিবাসের ফায়ারিং রেঞ্জ এলকায় বেড়াতে যায়। দুপুর দুইটার দিকে এলাকার ৫/৬ জন অপরিচিত যুবক চার স্কুলছাত্রীসহ তাদের বন্ধু ও অটোচালককে আটক করে। যুবকরা দুই বন্ধু হৃদয়, শাহীন ও অটোচালক আশিককে মারপিট করে তাড়িয়ে দেয়। পরে যুবকরা তিন স্কুলছাত্রীকে বনের ভেতরে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে নির্জন স্থানে ফেলে রেখে যায়। ছাত্রীদের একজন যুবকদের কাছে মা মারা গেছে বলে অনুনয় বিনয় করলে যুবকরা তাকে ধর্ষণ না করেই ছেড়ে দেয়।
এদিকে ছাত্রীরা সঠিক সময় বাড়িতে না আসায় অভিভাবকরা বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করে এবং পরে বিষয়টি ঘাটাইল থানার পুলিশকে মৌখিকভাবে জানায়। এক পর্যায়ে অভিভাবকদের একজনের কাছে অপরিচিত এক ব্যক্তি ফোন করে জানায় আপনার মেয়ে খারাপ কাজ করে ধরা খাইছে। বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ ছাত্রীদের উদ্ধারে নামে। পরে রোববার গভীর রাতে উপজেলার পাহাড়িয়া এলাকার সাতকুয়া গ্রাম থেকে চার স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। অভিযান চালিয়ে ধর্ষণের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দুই জনকে আটক করে পুলিশ। তবে তদন্তের স্বার্থে আটকদের নাম বলতে রাজি হয়নি।
ঘাটাইল থানার ওসি মাকসুদুল আলম বলেন, এ ঘটনায় থানায় অপহরণ ও ধর্ষণের মামলা হয়েছে। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভিকটিমদের টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
RI Sentu ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৫ এএম says : 0
ফায়ারিং রেঞ্জ এলাকাটা জনবিচ্ছিন্ন ও অনেক উচু উঁচু পাহাড় , ওখানে মেয়েদের না যাওয়াই ভালো।
Total Reply(0)
Muhammad Ala-uddin Sujon ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৬ এএম says : 0
কোন তামাশা নয়, র‍্যাবকে দায়িত্ব দেওয়া হোক দেখা মাত্র ক্রশপায়ার। ধর্ষক দের কোর্টে তুলে সরকারি খরচ বাড়ানো টা বে-দরকারি।
Total Reply(1)
Md.Kanchol Molla ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ৯:২৭ এএম says : 0
Yes
MD Jahangir ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৬ এএম says : 0
কি তামশা চলছে আজ সবাইতো ক্ষমতাবানদের হাতের মুঠোয়।
Total Reply(0)
MD Mahade Hassan ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৬ এএম says : 0
আর কত ধর্ষণ করা হলে এ জানোয়ারের দের বিচার করা হবে। বিচার না হলে বুঝতে বিচার বলে কিছু নেই এ দেশে।
Total Reply(0)
Shrity Rowson ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৭ এএম says : 0
দে‌শে এসব কি হ‌চ্ছে?‌কেন এর বিরু‌দ্ধে ক‌ঠোর অাইন প্র‌য়োগ করা হ‌চ্ছে না?‌ছি লজ্জাকর এমন দে‌শে জন্ম নি‌য়ে যে দে‌শের প্রধানমন্ত্রী,‌স্পিকার,‌শিক্ষামন্ত্রী নারী হওয়া স্ব‌ত্তেও দিন দিন এরকম নির্যাতন বে‌ড়েই চ‌লে‌ছে।‌ছি
Total Reply(0)
MD Navy-Khan ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৭ এএম says : 0
School ফাকি দিয়ে ঘুরাঘুরি
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন