ঢাকা শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ আশ্বিন ১৪২৭, ০৭ সফর ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

পশ্চিমবঙ্গেও সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পাস

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

ভারতের কেরালা, পাঞ্জাব এবং রাজস্থানের পর এবার পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভায় পাস হলো নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) বিরোধী প্রস্তাব। পশ্চিমবঙ্গ হলো চতুর্থ রাজ্য যেখানে সিএএবিরোধী প্রস্তাব পাস হল। গতকাল দুপুরের পর বিধানসভায় সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পেশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রস্তাবে বলা হয়, ধর্মের ভিত্তিতে এ আইন তৈরি হয়েছে। সে কারণে এর বিরোধিতা করা হচ্ছে।

১ ডিসেম্বর আইনে পরিণত হয় সিএএ বিল। তারপর থেকে আন্দোলনে উত্তাল হয়ে ওঠে ভারত। পাল্লা দিয়ে চলে ছাত্র-আন্দোলন। এ আন্দোলন সবচেয়ে ব্যাপক আকার নিয়েছিল জামিয়া মিল্লিয়া, আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় ও জেএনইউতে। কংগ্রেসসহ বেশিরভাগ বিরোধীদলই আইনটির বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে।

গতকাল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপির ‘পাকিস্তানের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর’ কটাক্ষের জবাব দিয়েছেন। রাজ্য বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, আমাদের রাজ্যে সিএএ, এনআরসি আর এনপিআর করার অনুমতি দেবো না। মানুষ আতঙ্কে আছেন। সব ধরনের নথির জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে হয়রান হচ্ছেন।তিনি বলেন, ‘এই লড়াই শুধু সংখ্যালঘুদের না। আমার হিন্দু ভাই-বোনেদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ, ওরা সামনে থেকে এই লড়াইটা লড়ছেন’। তার রাজ্যে সিএএ, এনআরসি আর এনপিআর হবে না এমন ঘোষণা করে এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আরও বলেছেন, ‘আমরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করবো’।

‘সিএএ অনুযায়ী আপনি বিদেশি চিহ্নিত হবেন। এটা একটা ভয়ঙ্কর খেলা। মানুষকে ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে ঠেলে নিয়ে যাবে। তাই ওদের (বিজেপি) ফাঁদে পা দেবেন না,’ নাগরিকদের সতর্ক করে এদিন পরামর্শ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ডিটেনশন সেন্টার প্রসঙ্গে তার মন্তব্য, ‘আপনাকে সন্দেহভাজন নাগরিক চিহ্নিত করে, ডিটেনশন সেন্টারে পাঠানো; এই পন্থা গ্রহণযোগ্য না। যেভাবে সবকিছু চলছে এখন তো মনে হচ্ছে, না জন্মালেই ভালো হতো। এখন মানুষ ভীত-শঙ্কিত। তারা ভাবছেন দেশ ছাড়তে হবে! সব ধরনের নথির জন্য আবার জনগণ লাইনে দাঁড়াতে শুরু করেছেন। হেনস্থার একশেষ’। ইতিমধ্যে তাকে পাকিস্তানের ‘ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর’ তকমা দিয়েছে বিজেপি। সেই তকমাকে কটাক্ষের সুরে বিঁধে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, ‘ওরা সবসময় পাকিস্তান নিয়ে কথা বলে, আর ভারত নিয়ে কম ভাবে’।

এদিকে শুরু থেকেই সিএএ বিরোধী আন্দোলন চালিয়ে আসছেন মমতা। সিএএ নিয়ে আপত্তির কথা সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেও জানিয়েছেন তিনি। সূত্র : এনডিটিভি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
Sarif Hossain ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৪ এএম says : 0
Thanks madam
Total Reply(0)
MD Salauddin ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৪ এএম says : 0
Congratulations
Total Reply(0)
Moni Sk ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৪ এএম says : 0
ভাইয়েরা আমার একটা প্রশ্ন আছে রাজ্যে সি এ এ বিরোধী প্রস্তাব পাস করে এই আইন বন্ধ করা যাবে কি ?
Total Reply(0)
Md Nefaur Rahaman ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৫ এএম says : 0
I love you Didi good night
Total Reply(0)
Ekramul Islam ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৫ এএম says : 0
বাম কংগ্রেস ধন্যবাদ দিদি জিন্দাবাদ
Total Reply(0)
মোঃ আনোয়ার আলী ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ৭:২২ এএম says : 0
সহমত
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন