ঢাকা, শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৩ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

এবার বিয়ের আমন্ত্রণপত্রে সিএএবিরোধী বার্তা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০৩ এএম

বিয়ের মেনুকার্ডে সিএএবিরোধী বার্তা ছিল আগেই। এবার বিয়ের কার্ডে এনআরসি, সিএএবিরোধী বার্তা দিলের পশ্চিম মেদিনীপুরের এক যুবক। তার এই অভিনব নিমন্ত্রণ কার্ডে মজেছেন নিমন্ত্রিতরা। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে নাগরিক সংশোধনী আইন পাস হয়েছে। প্রেসিডেন্ট রামনাথ কোবিন্দের স্বাক্ষরে তা আইনেও পরিণত হয়েছে। এরপর এই আইনের বিরোধিতায় সরব হয়েছে গোটা দেশ।
রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ জানিয়েছেন আমজনতা থেকে বিশিষ্টজনেরা, শিক্ষার্থী থেকে চাকরিজীবীরা। কোথাও বিক্ষোভ হয়েছে তো কেউ আবার বিভিন্ন শিল্পকলার মাধ্যমে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। এমনকী সরস্বতী পুজোর মন্ডপের থিমেও এই প্রতিবাদ উঠে এসেছে। বাদ পড়েনি বিয়ের মেনুকার্ডও। এবার বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রেও বিতর্কিত এই আইনের প্রতিবাদ জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের এক যুবক। প্রচলিত নিয়ম বলে, বিয়ের কার্ডের উপর লেখা থাকবে, শ্রীশ্রীপ্রজাপতয়েঃ নমঃ’ বা ‘যদিদং হৃদয়ং তব’ কিংবা ‘বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম’। কিন্তু সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রীতি বদলেছে। অনেক পাত্রপাত্রী আবার নিজেদের প্রেমের বর্ণনাও রেখে থাকেন। তবে ব্যতিক্রমী কেশপুরের মুহাম্মদ আলিফ। তার বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রের উপর গোটা গোটা রোমান হরফে লেখা রয়েছে, ‘নো এনআরসি, নো সিএএ’। পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ইংরেজিতে স্নাতক আলিফ কেরোসিন ডিলার। কেশপুরের মুসবসানের বাসিন্দা মুহাম্মদ আলিফের সঙ্গে হাসিনা মমতাজের বিয়ে। তাদের বিয়ের তারিখ আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি।

কিন্তু বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রে কেন এই প্রতিবাদ? এ প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে আলিফ জানান, ‘এমন সময় আমার বিয়ে হচ্ছে, যখন দেশবাসী সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে উত্তাল। একজন ভারতীয় নাগরিক হিসাবে আমি মনে করি যে, এই আইনের বিরোধিতা করা উচিত। তাই বিয়ের কার্ডে ‘নো এনআরসি, নো সিএএ’ লিখে প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এর ফলে আত্মীয় পরিজনদের কাছে এই প্রতিবাদের কথা সহজে পৌঁছে দেয়া সম্ভব হবে’। অভিনব এই প্রতিবাদে আলিফকে সমর্থন জানিয়েছেন তার বাবা শেখ ইউসুফ আলি। সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন