ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

এভারেস্টের বেস ক্যাম্পে ফ্যাশন শো, নেপালের গিনেস রেকর্ড

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৯:৩০ পিএম

তাপমাত্রা মাইনাস ১৯ ডিগ্রি। বাতাসে অক্সিজেনের পরিমাণ প্রায় নেই। পৃথিবীর সর্বোচ্চ উচ্চতায় এমন প্রতিকূল পরিবেশের মধ্যেই হল ফ্যাশন শো! অবাস্তব মনে হলেও সত্যি! এভারেস্ট বেসক্যাম্পের ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে এমনই ফ্যাশন শোর আয়োজন করে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম তুলল নেপাল।

নেপাল ট্যুরিজম বোর্ডের সহযোগিতায় নেপাল ও ভারতের যৌথ একটি বেসরকারি কোম্পানি, এই ফ্যাশন শোর আয়োজন করে। এতে অংশগ্রহণ করেছিলেন ১০টি দেশের ১৮ জন মডেল। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৫৬৪৩ মিটার উচ্চতায় এই ফ্যাশন শোর সময়টুকু ছাড়া প্রায় এক ঘণ্টা সকলেই অক্সিজেন মাস্ক পরে ছিলেন।

অনুষ্ঠানের অন্যতম উদ্যোক্তা ভারতের পঙ্কজ গুপ্তা জানান, পরিবেশকে রক্ষা করা আমাদের কর্তব্য। সেই বার্তাটি দিতে গত অক্টোবর থেকে তারা এরকম একটি শোয়ের পরিকল্পনা করছিলেন। নিজে ভারতীয় হিসেবে দেশের প্রজাতন্ত্র দিবসে এভারেস্ট বেসক্যাম্পের কাছে কালাপাত্থরে (৫৬৪৩ মিটার) এই ফ্যাশন শো আয়োজনের ইচ্ছা ছিল। সেই মতোই গত ১৪ জানুয়ারি বিশ্বের ১৮ জন মডেলকে নিয়ে কাঠমাণ্ডু থেকে যাত্রা শুরু করেছিলেন তারা।

উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, ইতালি, সার্বিয়া, বসনিয়া, নেদারল্যান্ডস, ফিনল্যান্ড, ইংল্যান্ড, জাম্বিয়া, শ্রীলঙ্কা, সিঙ্গাপুর এবং নেপালের মোট ১৮ জন মডেল র‌্যাম্পে হাঁটেন। পঙ্কজ জানান, ভারতীয় মডেলদের অংশগ্রহণের জন্য একাধিকবার আবেদন জানালেও, তারা কোনও আগ্রহ দেখাননি। তিনি বলেন, এই ফ্যাশন শোর দুটি উদ্দেশ্য ছিল। প্রথমত, একটা বিশ্বরেকর্ড তৈরি করা। সেই সঙ্গে পরিবেশকে রক্ষা করা কতটা প্রয়োজন, সেই বার্তাও সাধারণের কাছে পৌঁছে দেয়া। এই কারণেই তাঁরা যে সমস্ত জামা-কাপড় থেকে জুতো ব্যবহার করেছিলেন, তা সম্পূর্ণভাবে পরিবেশবান্ধব।

একইসঙ্গে পাহাড়সহ সমতলেরও একটা বড় সমস্যা হল পানি। তাই জলের অপচয় রোধ এবং পুনর্ব্যবহারকে জনপ্রিয় করতেও আয়োজকরা বিশেষ সচেতনতামূলক বার্তা দিতে চেয়েছেন এর মাধ্যমে। খড়্গপুর আইআইটি’র এক অধ্যাপকের তৈরি করা পানিবিহীন স্নানের প্রযুক্তিকে ব্যবহার করেন প্রত্যেক মডেল।

১৭ জানুয়ারি লুকলা থেকে যাত্রা শুরু করে ৯ দিনের মাথায় তারা কালাপাত্থর পৌঁছন। গোটা যাত্রাপথে তারা আট হাজার লিটার পানির অপচয় রোধ করেছেন বলে উদ্যোক্তাদের দাবি। অনুষ্ঠানের এক উদ্যোক্তা নেপালের রমিলা নেমকুল বলেন, পাহাড়ের উপর বহু মানুষ সারা বছর ধরে যান। কিন্তু, সেখানে আবর্জনা না ফেলে, তা সমতলে ফিরিয়ে আনুন— সেই বার্তাও তারা এই ফ্যাশন শোর মাধ্যমে সকলকে দিতে চান। একইসঙ্গে ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিকেও যাতে পরিবেশবান্ধব করা যায়, সেই বার্তাও প্রচার করেন উদ্যোক্তারা। সূত্র: এসএএম।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন