ঢাকা, সোমবার, ০৬ এপ্রিল ২০২০, ২৩ চৈত্র ১৪২৬, ১১ শাবান ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

শিরোপা ধরে রাখার প্রত্যাশা বসুন্ধরার

বিপিএল মাঠে গড়াচ্ছে বৃহস্পতিবার থেকে

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৭:৫২ পিএম | আপডেট : ৮:১৫ পিএম, ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

ঘরোয়া ফুটবলের মর্যাদাপূর্ণ আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) দ্বাদশ সংস্করণ মাঠে গড়াচ্ছে বৃহস্পতিবার থেকে। উদ্বোধনী দিন তিনটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। নীলফামারির শেখ কামাল স্টেডিয়ামে হোম ম্যাচে নবাগত উত্তর বারিধারা ক্লাবের মুখোমুখি হচ্ছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস। খেলা শুরু হবে বেলা সোয়া ৩টায়। অন্যদিকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব মুখোমুখি হবে চট্টগ্রাম আবাহনী লিমিটেডের। একই সময়ে সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র মাঠে নামবে ব্রাদার্স ইউনিয়ন ক্লাবের বিপক্ষে।

গত আসরে শিরোপা রেসে থাকার মতো অন্তত ৫ টি দল ছিল। দেশী-বিদেশী ফুটবলারদের নিয়ে তারকা সমৃদ্ধ দল গড়ে চমক দেখিয়েছিল বেশ কয়েকটি দল। যে কারণে জমজমাট একটি বিপিএল আসর উপভোগ করতে পেরেছিলেন দেশের ফুটবলপ্রেমীরা। এবারের আসরেও এ ধারাবাহিকতা থাকছে। শিরোপা জেতার মতো দল গড়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস। পিছিয়ে নেই ৬ বারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনীও। রেসে থাকছে শেখ রাসেল, শেখ জামাল, চট্টগ্রাম আবাহনী ও সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবও। এই ছয় ক্লাব বাদে লিগের মাঝারি মানের ক্লাবগুলোও প্রতিদ্ব›িদ্বতা করার মতোই দল গড়েছে এবার। মৌসুম সূচক টুর্নামেন্ট ফেডারেশন কাপই তার প্রমাণ। কারণ ফেডারেশন কাপে রহমতগঞ্জের মতো দলই বসুন্ধরা কিংসের সঙ্গে শিরোপা জন্য লড়াই করেছিল। লিগটা লম্বা সময় ধরে হবে। তাই ছোট দলগুলোও নিরাশ হচ্ছে না। তারা প্রত্যাশায় আছে চমক দেখাতে। তবে গত মৌসুমের মতো এবারো সব থেকে বড় চমক নিয়ে হাজির হয়েছে বসুন্ধরা কিংস। গত মৌসুমে বিপিএলে নিজেদের অভিষেক আসরেই তারা একঝাক জাতীয় তারকা দলে ভিড়িয়েছিল। গতবার লিগ চ্যাম্পিয়ন হলেও আক্ষেপ ছিল দলটির রক্ষণ নিয়ে। এবার সেই অভাবটাও বসুন্ধরা ঘুচিয়েছে জাতীয় দলের অন্যতম সেরা দুই ডিফেন্ডার তপু বর্মণ ও ইয়াসিন খানকে দলে নিয়ে। বিপলু আহমেদ আর রবিউল হাসান যোগ হওয়াতে মধ্যমাঠ হয়েছে তাদের আরো বেশি শক্তিশালী। স্থানীয় সংগ্রহে এক কথায় জাতীয় দলই বলা চলে বসুন্ধরাকে। আর বিদেশী সংগ্রহে তো আরও চমক দেখিয়েছে তারা। গত আসরে খেলা কোস্টারিকার বিশ্বকাপ তারকা ডেনিয়েল কলিন্ড্রেস তো আছেনই দলে। এবার তার সঙ্গে যোগ হয়েছেন আর্জেন্টাইন তারকা মেসির সতীর্থ হার্নান বার্কোস। আরো আছেন আর্জেন্টিনার দেলমন্তে। তাজিকিস্তানের আখাতাম নাজারভ ও কিরগিজস্তানের বখতিয়ার দুইশভেকব। এ মৌসুমের সব থেকে বড় চমকটি হলো আর্জেন্টাইন তারকা ফুটবলার লিওনেল মেসির সতীর্থ হার্নান বার্কোসকে বসুন্ধরায় যোগ করা। যদিও প্রথম লেগে খেলতে পারবেন না এই তারকা ফুটবলার। তবে এএফসি কাপ ও লিগের দ্বিতীয় পর্বে দেখা যাবে তাকে।

লিগের দ্বাদশ আসরে মাঠে নামার আগে বসুন্ধরা কর্মকর্তাদের আশা শিরোপা ধরে রাখা। এমনটাই জানালেন ক্লাব সভাপতি ইমরুল হাসান। তিনি বলেন,‘আর্জেন্টিনা তারকা হার্নান বার্কোসের মান নিয়ে আসলে কোনো কথা বলা মানায় না। তার অন্তর্ভুক্তি আমাদের আক্রমণভাগের শক্তি বাড়াবে। এএফসি কাপে ভালো ফলাফল উপহার দিতে পারবো। লিগ শিরোপাটাও জিততে চাই আমরা।’

বসুন্ধরার স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রোজনও মনে করছেন দ্বিতীয়বার লিগ শিরোপা জেতা সম্ভব তার দলের পক্ষে। তিনি বলেন,‘আমি মনে করি আমরা আবারও লিগ চ্যাম্পিয়ন হতে পারবো। তবে হ্যাঁ, কাজটি হয়তো সহজ হবে না। এবার অন্য দলগুলোও কম শক্তিশালী নয়।’

তবে লিগ শুরুর আগে ইনজুরির কবলে রয়েছে বসুন্ধরা। বিপলু আহমেদ, মতিন মিয়া ও মাশুক মিয়া জনি লিগের শুরুতে খেলতে পারবেন কিনা-এ নিয়ে সংশয় আছে। তবে দলটির ব্যাকআপ খেলোয়াড়ও কম নয়। ব্রজন তাই বলেছেন, ‘আমার প্রতিটি পজিশনে একাধিক খেলোয়াড় আছে। বড় কোনও সমস্যা হবে না। মতিন ও বিপলু শিগগিরই মাঠে ফিরতে পারবে। জনির কিছুদিন সময় লাগবে।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন