ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০, ১৯ চৈত্র ১৪২৬, ০৭ শাবান ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ভারতের পত্রপত্রিকায় দিল্লির সহিংসতা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম

রোববার থেকে শুরু উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে সহিংসতা মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত অব্যাহত ছিল এবং এতে কমপক্ষে ২৪ জন নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের সমর্থকরা মসজিদে অগ্নিসংযোগ এবং সাংবাদিকদের ধাওয়াসহ মুসলিম পাড়াগুলিকে লক্ষ্যবস্তু করেছিল।

দেশটির শীর্ষস্থানীয় সংবাদপত্রগুলি কীভাবে তাদের প্রথম পৃষ্ঠায় দিল্লির সহিংসতার ধরন তুলে ধরেছে তা একনজরে উল্লেখ করা হলঃ

দ্য টেলিগ্রাফ কোনও শব্দই ছুঁড়ে ফেলেনি: ‘নেরোস ডাইনে ... গুজরাটের মডেল পৌঁছে গেছে দিল্লিতে’। প্রথম পৃষ্ঠায় এমন এক সাংবাদিকের প্রতিবেদনও স্থান পেয়েছে যিনি মঙ্গলবার হিন্দু জনতার হাত থেকে তার পৈতা দেখিয়ে নিজেকে রক্ষা করেছিলেন।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস দিল্লি পুলিশ বাহিনীর সন্ত্রাসে সহযোগিতার কথা তুলে ধরে।
টাইমস অফ ইন্ডিয়া তার প্রথম পৃষ্ঠায় ফ্ল্যাপে নিহতের সংখ্যা ও আহতদের সংখ্যা তুলে ধরেছে। সাংবাদিকদের উপর হামলা এবং এই সহিংসতার সমালোচনা করে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের একটি উক্তিও উল্লেখ করা হয়েছে।

দ্য হিন্দু, হিন্দুস্তান টাইমস এবং দ্য স্টেটসম্যানের প্রথম পৃষ্ঠাগুলিরও হেডিংয়ে ছিল মৃত্যুর সংখ্যা।
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাথে সাক্ষাত করেছেন এমন এক প্রতিবেদনের নিচে দৈনিক জাগরণ দিল্লি সহিংসতার সংবাদ প্রকাশ করে। শিরোনামটি লেখা হয়েছে, ‘দাঙ্গাকারীদের দেখা মাত্র গুলির নির্দেশ’। পাশাপাশি একটি প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে যে, ৫৬ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।
হিন্দি দৈনিক নবভারত টাইমস-এর প্রথম পৃষ্ঠাটি নিয়ে এক ধাপ এগিয়ে গেছে।

দিল্লির একটি সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলের একটি ছবি ছাড়াও, কাগজটি তার পাঠকদের কীভাবে এই সহিংসতা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে সে সম্পর্কে পাঁচ দফা পরামর্শ দিয়েছে: যাচাই করা হয়নি বা যাচাই করা হোয়াটসঅ্যাপ পোস্ট ফরোয়ার্ড এবং উস্কানিমূলক সামাজিক পোস্টগুলি শেয়ার করবেন না, সহিংসতা প্ররোচিত করতে পারে এমন সন্দেহজনক গতিবিধি পুলিশকে জানান, শান্তি বজায় রাখার জন্য আপনার আশেপাশে বৈঠক করুন এবং সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য নিরাপদ স্থানের ব্যবস্থা করুন।

হিন্দি দৈনিক দৈনিক ভাস্কর এই সহিংসতাটিকে ‘গেরিলা যুদ্ধ’ বলে চিহ্নিত করে এবং পরামর্শ দেয় যে, ‘দয়া করে প্রতিবেশিসুলভ পরিবেশ বজায় রাখুন এবং উত্তেজক বার্তাগুলি সম্পর্কে পুলিশকে অবহিত করুন’।

মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের শিবসেনা দল প্রকাশিত মারাঠি পত্রিকা সামনা উল্লেখ করেছে, ‘একমাসের জন্য দিল্লিতে ১৪৪ ধারা’। ব্যবহৃত মূল ছবিটি ছিল একজন মুসলিম ব্যক্তির যিনি দাঙ্গাকারীদের কাছ থেকে করুণা ভিক্ষা করছিলেন।

মহারাষ্ট্রের শীর্ষস্থানীয় দৈনিক সকাল আইন-শৃঙ্খলার দিকটিতে জোর দেয়। তাদের শিরোনাম ‘দেখামাত্র গুলি করুন’।

বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা দাঙ্গার শিকার করিমপুরের ব্যবসায়ী মুহাম্মদ ফুরকানের পুত্র এবং দিল্লির পুলিশ হেড কনস্টেবল রতন লালের মধ্যে মিলের বিষয়টি তুলে ধরে। তাদের শিরোনাম: ‘কী দোষ করেছিল বাবা’ -প্রশ্ন সন্তানদের। সূত্র : স্ক্রোল.ইন

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (9)
Mohammad Sanwar Hossain Rony ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০৮ এএম says : 0
করোনাভাইরাস এর কথাটি ভুলে যাসনা কাফেরের দল।।ভুলে যাসনা আল্লাহ এক, তিনি অসিম খমতার অধিকারি।আল্লাহ তদের বিচার করবে চীনদের মত। অপেক্ষায় থাক।
Total Reply(0)
Sarker Saheb ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০৮ এএম says : 0
হে আল্লাহ,আপনি একটা কিছু করুণ,মুসলিম হয়েও না পারছি অপর মুসলিম ভাইবোনদের পক্ষে লড়াই করতে না পারছি এইসব বর্বরোচিত দৃশ্য সহ্য করতে,হে সবকিছুর মালিক আপনি রহম করুন
Total Reply(0)
Kazi Imam Hasan ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০৮ এএম says : 0
সামান্য করোনাভাইরাস পুরো চায়না কে কি করছে এইটা হতে পারে ইন্ডিয়া দেখে নাই। চায়নাও চেয়ে ছিল আল্লাহর কুরআন কে বন্ধ করে দিতে মসজিদ বন্ধ করে দিতে কিন্তু পারে নাই। আল্লাহ হিন্দু ভাইদের বুঝার তৌফিক দান করুন আমিন
Total Reply(0)
Shawkat Ali ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০৯ এএম says : 0
বিজেপি-আরএসএস এর প্রেতাত্মারা তো বাংলাদেশেও খুব সক্রিয় বর্তমানে। এদের চেনার উপায় এদের বাম হাতে লাল সুতা থাকে। সরকারকে এখনই এদের ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে হবে। নাহলে বাংলাদেশেও এরা দাঙ্গা লাগাবে। বাংলাদেশে এরাই রাতের আঁধারে মাটির মুর্তি ভাঙ্গে, মসজিদে আগুন দেয়, কুরআন শরিফ পুড়ায়।
Total Reply(0)
Awulad Hossin ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:১০ এএম says : 0
প্রিয় বাংলাদেশের মুসলিম ভাই ও বিশ্ব মুসলিম ভাইয়েরা আল্লাহর কসম আল্লাহর কসম আল্লাহর কসম আমরা মুসলমান না যদি আমরা মুসলমান হইতাম তাহলে ইন্ডিয়াতে এমনভাবে মুসলমানদের উপর নির্যাতন চলছে অথচ আমরা আজকে সারা পৃথিবীর মুসলিম বিশ্ব চুপ কেন মুসলমান না হিন্দু বেশি খারাপ
Total Reply(0)
Al Mahmud ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:১০ এএম says : 0
এ ক্ষেত্রে পীর সাহেব গন কি প্রতিবাদ মিছিলও করবেন না ? মুসলিমদের পাশে কি দাড়াবেন না ?
Total Reply(0)
Rezaul Karim ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:১০ এএম says : 0
আমাদের প্রধানমন্ত্রীর কি প্রতিক্রিয়া??? বন্ধু জে মুসলমানদেরকে নিজাতন করছে তার জন্য প্রধানমন্ত্রী কি কোনো কথা বলেনি???
Total Reply(0)
Anichur Rahman ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:১০ এএম says : 0
তোমরাও রেডি হয়ে যাও চিনের মতো তোমাদেরও হবে, খুবই দ্রুত ধেয়ে আসছে তোমাদের উপর গজব নাজিল হবেই ইনশাআল্লাহ
Total Reply(0)
Jafrul Hasan Farhad ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:১১ এএম says : 0
সারা পৃথিবীর মুসলমান আজ নীরব কেন? বাড়তে মুসলমানরা কি অবস্থায় আছে আপনারা দেখেছেন?
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন