ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০, ১৯ চৈত্র ১৪২৬, ০৭ শাবান ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

এবার কী নামে ডাকা হবে?

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০৪ এএম

‘কী নামে ডেকে বলব তোমাকে’ জনপ্রিয় এই বাংলা গানটিই বোধহয় এই মুহ‚র্তে ব্রিটেনে সবচেয়ে চর্চিত প্রশ্ন। রাজপরিবার-রাজ পরিচয় ত্যাগ করেছেন প্রিন্স হ্যারি ও তার স্ত্রী মেগান মর্কেল। তারপর কী নামে ডাকা হবে ব্রিটেনের একসময়কার ছোট রাজকুমারকে, এই প্রশ্নে এখন জেরবার ব্রিটেনের বাসিন্দারা। 

সা¤প্রতিক এক অনুষ্ঠানে এ বিষয়ে অবশ্য স্পষ্ট উত্তর দিয়েছেন ‘প্রিন্স’ হ্যারি। এদিকে বাকিংহাম প্যালেস ছাড়ার পর কানাডার সমুদ্র সৈকতে বেশকিছু দিন কাটিয়েছেন তারা। সেখানে বিশেষ নিরাপত্তা পেতেন এই দম্পতি। কিন্তু এবার আর তাঁদের নিরাপত্তার জন্য কানাডা সরকার কানাকড়িও আর খরচ করবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে। ডায়নার ছোট ছেলে প্রিন্স হ্যারি ও ছোট বউমা মেগান মর্কেলকে এতদিন ‘ডিউক এন্ড ডাচেস অব সাসেক্স’ বলে ডাকা হত। কিন্তু জানুয়ারিতে সকলে হতবাক করে রাজ পরিবার ছাড়ার কথা ঘোষণা করেন হ্যারি। তারপরই নিয়মমাফিক তাঁদের সম্বোধনে বদল আসে। সা¤প্রতিক এক অনুষ্ঠানে হ্যারি জানান, তাঁকে ডিউক বা প্রিন্স নয়, স্রেফ হ্যারি বলে সম্বোধন করলেই চলবে। প্রসঙ্গত, বরাবরই ছক ভাঙা জীবনযাপনে অভ্যস্ত হ্যারি। সেই পথে চলেই ‘স্বাধীনভাবে বাঁচতে’ বাকিংহাম প্যালেস তথা রাজ পরিচয় ছেড়েছেন তিনি ও তার স্ত্রী। ফলে ব্রিটেনের আর পাঁচজনের মতোই তাঁকেও স্রেফ নাম ধরে সম্বোধন করলেই চলবে।
এদিকে ব্রিটেনের রাজবাড়ি ছেড়ে কানাডায় সমুদ্রের পাশে থাকছেন এই হ্যারি-মেগান। এতদিন সেখানে তাঁদের নিরাপত্তা দিত কানাডা রয়্যাল মাউন্টেড পুলিশ। যার সম্পূর্ণ খরচ বহন করত কানাডা সরকার। এবার মার্চের শুরু থেকেই নিরাপত্তা সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। সা¤প্রতিক এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, কানাডার ৭৭ শতাংশ মানুষই হ্যারি-মেগানের নিরাপত্তার জন্য কর দিতে রাজি নয়। পাশাপাশি এই দম্পতি ব্রিটেন রাজ পরিবারেরও সদস্য নয়। ফলে বিশেয নিরাপত্তা সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কানাডার জন নিরাপত্তা মন্ত্রী বিল বেøয়ার। সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন