ঢাকা বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০১ ব্শৈাখ ১৪২৮, ০১ রমজান ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে নাটকীয় জয় দক্ষিণ আফ্রিকার

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ মার্চ, ২০২০, ১১:৩৯ এএম | আপডেট : ১১:৪৭ এএম, ১ মার্চ, ২০২০

ওয়ানডেতে জয় দিয়ে শুরু করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি সিরিজে হারের পর ওয়ানডে সিরিজের শুরুটা কিন্তু দুর্দান্তই হলো স্বাগতিকদের। পার্লে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে অস্ট্রেলিয়াকে ৭৪ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে কুইন্টন ডি ককের দল।

দক্ষিণ আফ্রিকার এই জয়ের নায়ক হেনরিক ক্লাসেন। তার হার না মানা ১২৩ রানের ইনিংসে ভর করেই ৭ উইকেটে ২৯১ রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করায় প্রোটিয়ারা। জবাবে ইনিংসের ২৯ বল বাকি থাকতে ২১৭ রানেই গুটিয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া।

রান তাড়ায় নেমে ৩৪তম ওভারে ৩ উইকেটে ১৭৪ রান ছিল অস্ট্রেলিয়ার। ৯৮ বলে দরকার তখন ১১৮ রান, হাতে ৭ উইকেট। মনে হচ্ছিল, সহজেই জিতে যাবে অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু অসিদের সেই শক্ত অবস্থান থেকে নাটকীয়ভাবে দলকে ম্যাচে ফেরান প্রোটিয়া বোলাররা। শেষ পর্যন্ত সহজ জয়ও এনে দেন।

অথচ দক্ষিণ আফ্রিকার শুরুটা একদমই ভালো ছিল না। ইনিংসের প্রথম বলেই জানেমন মালানকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন মিচেল স্টার্ক। এরপর খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি কুইন্টন ডি কক আর টেম্বা বাভুমাও। ডি কক ১৫ রান করে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন জশ হ্যাজলউডের বলে, ২৬ রান করা বাভুমাকে বোল্ড করেন প্যাট কামিন্স। ৪৮ রানে ৩ উইকেট হারায় প্রোটিয়ারা।

তৃতীয় উইকেটে ক্লাসেনের সঙ্গে কাইল ভেরেনের ৭৮ রানের জুটিতে লড়াইয়ে ফেরে স্বাগতিকরা। তবে ভালো খেলতে খেলতে হাফসেঞ্চুরির ঠিক আগে কামিন্সের বলে আউট হয়ে যান ভেরেনও (৪৮), বিপদ আবারও ফেরত আসে দক্ষিণ আফ্রিকার।

সেখান থেকে ডেভিড মিলারের সঙ্গে ১৪৯ রানের দুর্দান্ত এক জুটি ক্লাসেনের। ৭০ বলে ৬৪ রান করা মিলারকে ফিরিয়ে এই জুটিটি শেষ পর্যন্ত ভাঙেন সেই কামিন্স। কিন্তু ক্লাসেনকে আটকানো যায়নি। ১১৪ বলে ৭ বাউন্ডারি আর ৩ ছক্কায় ১২৩ রানের ঝড়ো এক সেঞ্চুরিতে অপরাজিত থেকে যান তিনি। এটি ছিল তার ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি।

২৯২ রানের লক্ষ্যে নেমে ডেভিড ওয়ার্নার (২৫), স্টিভেন স্মিথ (৭৬) আর মার্নাস লাবুসচাগনের (৪১) ব্যাটে একটা সময় বেশ ভালো অবস্থানে ছিল অস্ট্রেলিয়া। হঠাৎই নাটকীয়ভাবে কোণঠাসা হয়ে পড়ে তারা।

৪৯ রানে ২ উইকেট হারানোর পর তৃতীয় উইকেটে ৮৪ রানের জুটি গড়েন স্মিথ আর লাবুসচাগনে। ৩৪তম ওভারে ৩ উইকেটে ১৭৪ রানে ছিল তাদের দল। সেখান থেকে আর ৪৩ রান তুলতে হারায় শেষ ৭ উইকেট।

দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে ৩টি উইকেট নেন লুঙ্গি এনগিদি। তাবারেজ শামসি আর এনরিচ নর্টজের শিকার ২টি করে উইকেট।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন