ঢাকা, মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৯ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

পাকিস্তানী জেএফ-১৭ কেন ভারতের রাফাল বিমানের জন্য গুরুতর হুমকি!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ মার্চ, ২০২০, ২:৫৩ পিএম

গ্লোবাল টাইমসের মতে এবং ইউরেশিয়ান টাইমসের গবেষণা অনুযায়ী জেএফ-১৭ জঙ্গিবিমানের নতুন সংস্করণে চীনের উচ্চ-প্রযুক্তির জে-২০ জঙ্গি বিমানের অত্যাধুনিক সরঞ্জামগুলো সংযুক্ত করা হয়েছে, যেগুলো জেএফ-১৭ এর যুদ্ধ সক্ষমতা বহুগুণ বাড়িয়ে দেবে।

বিভিন্ন সোশাল মিডিয়ায় প্রকাশিত ছবি অনুযায়ী, জেএফ-১৭ বিমানে চীনের রাষ্ট্রায়ত্ব অ্যাভিয়েশান ইন্ডাস্ট্রি কর্পোরেশানের বহু বাণিজ্যিকভাবে অপ্রচলিত প্রযুক্তি সংযুক্ত করা হয়েছে।

এর মধ্যে রয়েছে বড় ধরনের হলোগ্রাফিক ডিসপ্লে এবং সমন্বিত ককপিট ডিসপ্লে, যেটা জে-২০ বিমানে ব্যবহার করা হয়েছে। সেই সাথে রয়েছে অ্যাডভান্সড ইনফ্রারেড মিসাইল অ্যাপ্রোচ ওয়ার্নিং সিস্টেম, যেটা জে-২০ জঙ্গি বিমানে ব্যবহার করা হয়েছে।

বিশ্লেষকেরা বলচেন, জেএফ-১৭ বিমান পাইলটদের পরিস্থিতি সম্পর্কে আরও বেশি সচেতন করবে। বিমান ওড়ানোর চেয়ে যুদ্ধের দিকে বেশি মনোযোগ দিতে পারবেন তারা। ২০১৯ সালের মার্চে, জঙ্গি বিমানটির প্রধান ডিজাইনার ইয়াং ওয়েই বলেছিলেন যে, জেএফ-১৭ ব্লক থ্রি বিমানের উন্নয়ন ও উৎপাদন চলছে এবং তৃতীয় ব্লকের বিমানগুলোতে তথ্য-ভিত্তিক যুদ্ধ সক্ষমতা ও অস্ত্র সংযুক্ত থাকবে।

জেএফ-১৭ জঙ্গি বিমানে চীনের দূরপাল্লার পিএল-১৫ মিসাইল স্থাপনের সংবাদটি ভারতীয় বিমান বাহিনীর মধ্যে উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে। গ্লোবাল টাইমস এর আগে জানিয়েছিল যে, আপগ্রেডেড জেএফ-১৭ বিমানে ইনফ্রারেড অনুসন্ধান ও ট্র্যাকিং সিস্টেমের সাথে সাথে ক্রস-সেকশান রাডার থাকবে, যেটাতে আধা-স্টেলথি বিমানের অস্তিত্ব ধরা পড়বে। পিএল-১৫ এর যে বিয়ন্ড ভিজুয়াল রেঞ্জ সক্ষমতা রয়েছে, সেটা পেন্টাগনের মধ্যেও মারাত্মক উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে বলে জানা গেছে।

পিএল-১৫ মিসাইলের স্ট্রাইকিং রেঞ্জ সর্বোচ্চ ৩০০ কিলোমিটারের চেয়ে কম। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের যে এআইএম-১২০ মিসাইল রয়েছে, সেটার রেঞ্জ মোটামুটি ১৮০ কিলোমিটারের মতো। সে কারণেই যুক্তরাষ্ট্রের এই উদ্বেগ।

২০১৫ সালে যখন পিএল-১৫ মিসাইলের উন্নয়ন শুরু হয়, তখন এটা নিয়ে মারাত্মক উদ্বেগ জানিয়েছিলেন মার্কিন জেনারেল হার্বার্ট চার্লিসলে।

পিএল-১৫ মিসাইলগুলো রাডার-পরিচালিত অস্ত্র এবং এটার বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে মার্কিন নির্মিত এএমআরএএএম এবং রাশিয়ার আর-৭৭ এর চেয়েও এর রেঞ্জ বেশি। ভারতীয় বিমান বাহিনীর কাছে রাশিয়ান মিসাইল রয়েছে।

পিএল-১৫ মিসাইলে কনভেনশনমাল রকেট মোটর ব্যবহার করা হয়েছে। অন্যদিকে ভারতীয় বিমান বাহিনীর রাফাল জঙ্গি বিমানে ব্যবহার করা হচ্ছে মিটিওর মিসাইল। মিটিওর মিসাইলগুলোর রেঞ্জ ১৫০ কিলোমিটারের আশেপাশে। তবে পিএল-১৫ এর চেয়ে আকারও এগুলো ছোট।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন