ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০, ২৬ আষাঢ় ১৪২৭, ১৮ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

হোম ভেন্যুতে চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরাকে হারাল মোহামেডান

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৭ মার্চ, ২০২০, ৮:২২ পিএম

ঘরোয়া ফুটবলের মর্যাদাপূর্ণ আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) দ্বাদশ সংস্করণে আগের ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্ধী ঢাকা আবাহনী লিমিটেডের কাছে বিধ্বস্ত হয়েছিল ঐতিহ্যাবাহী ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। কিন্তু পরেই ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়িয়েছে সাদাকালোরা। হারিয়েছে বিপিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন শক্তিশালী বসুন্ধরা কিংসকে। শনিবার বিকেলে হোম ভেন্যু কুমিল্লার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ স্টেডিয়ামে মোহামেডান ১-০ গোলে হারায় বসুন্ধরাকে। বিজয়ী দলের হয়ে একমাত্র জয়সূচক গোলটি করেন নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড উগুচুকো ওবি মোনেকে। এই জয়ে মোহামেডান পাঁচ ম্যাচের তিনটি জিতে ও দুই হারে ৯ পয়েন্ট পেয়ে তালিকার পঞ্চমস্থানে উঠে এলো। সমান ম্যাচে বসুন্ধরা তিন জয় এবং একটি করে ড্র ও হারে ১০ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয়স্থানেই রইল। একই দিন ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে লিগের অন্য ম্যাচে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব হারিয়েছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে।

এবারের লিগ শুরু হওয়ার নিজের হোম ভেন্যুতে কালই ছিল মোহামেডানের প্রথম ম্যাচ। কুমিল্লার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ স্টেডিয়ামে অভিষেক হওয়া ম্যাচে যোগ্যতর দল হিসেবেই জয় পায় সাদাকালোরা। শক্তিশালী প্রতিপক্ষকে মোকাবেলা করতে গিয়ে সমান তালেই লড়েছে মোহামেডান। একাধিক সুযোগ পেয়ে একটি কাজে লাগিয়ে ঠিকই জয় তুলে নিয়েছে তারা। বসুন্ধরাও সুযোগ পেয়েছে। কিন্তু মোহামেডানের রক্ষণদূর্গ ভেদ করতে পারেননি ড্যানিয়েল কলিন্দ্রেসরা। সাদাকালোদের ডিফেন্ডাররা দৃঢ়তার সঙ্গে বসুন্ধরার সব আক্রমণ ফিরিয়ে দেন।

আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে খেলা চললেও ম্যাচের প্রথমার্ধে খুঁজে পাওয়া যায়নি সেই চেনা বসুন্ধরাকে। যদিও গোল হওয়ার মতো প্রথম আক্রমণটি তারা করেছে। ম্যাচের ১৩ মিনিটে কোষ্টারিকার বিশ্বকাপ তারকা ড্যানিয়েল কলিন্দ্রেসের ক্রসে ফরোয়ার্ড তৌহিদুল আলম সবুজ পা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হলে গোলের সহজতম সুযোগ নষ্ট করে বসুন্ধরা। পাল্টা আক্রমণে গিয়ে মোহামেডানও গোলের সুযোগ সৃষ্টি করে। কিন্তু বসুন্ধরার শক্ত রক্ষণদেয়াল ভাঙতে পারেননি সাদাকালোদের ফরোয়ার্ডরা। তবে হাল না ছেড়ে চেষ্টার পর চেষ্টা চালায় মতিঝিলের দলটি। অবশেষে সাফল্য পায় তারা। ম্যাচের ২৪ মিনিটে এগিয়ে যায় মোহামেডান। এসময় রাকিব খানের বাড়ানো বল ধরে ডি-বক্সের বাইরে থেকে ডান পায়ের চমৎকার শটে বসুন্ধরার গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকোকে পরাস্ত করেন নাইজেরিয়ার ফরোয়ার্ড ওবি মোনেকে (১-০)। এগিয়ে যাওয়ার পর ব্যবধান বাড়াতে মরিয়া ছিল মোহামেডান। ম্যাচের ৩৫ মিনিটে সেই সুযোগও ছিল। এসময় সুলেমানে দিয়াবাতের ক্রসে বসুন্ধরার গোলমুখ থেকে হেড নিতে পারেননি ইউসুফ সিফাত। বল চলে যায় ক্রসবারের উপর দিয়ে। পিছিয়ে থেকে বিরতিতে গেলেও দ্বিতীয়ার্ধেও বসুন্ধরা পারেনি নিজেদের স্বাভাবিক খেলাটি খেলতে। মূলত মাঠের মাঝে থাকা ক্রিকেটের পিচ তোলা হয়েছিল ক’দিন আগে। তাই মাঝমাঠ ছিল অসমান। খেলার জন্য প্রায় অনুপোযোগী মাঠে দু’দলেরই খেলতে অসুবিধা হয়। তবে শক্তির বিচারে বসুন্ধরার যেমন খেলা উচিত ছিল ঠিক তেমনটি তারা খেলতে পারেনি। উল্টো মোহামেডানের ফুটবলারদের মাঝে দেখা গেছে উজ্জীবিত ভাব। দ্বিতীয়ার্ধেও তারা দারুণ একটি সুযোগ পেয়েছিল। কিন্তু তা কাজে লাগতে পােেরনি। ম্যাচের ৬৪ মিনিটে দিয়াবাতের ক্রসে সিফাত লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নিলে তা বাইরে চলে যায়। ফলে ব্যবধান দ্বিগুণ করার সুযোগ নষ্ট করে মোহামেডান। বাকি সময় দু’দলই আক্রমণাতœক ফুটবল উপহার দিলেও আর কোন গোল হয়নি। ফলে লিগে প্রথম হারের স্বাদ নিয়ে মাঠ ছাড়ে বসুন্ধরা কিংস।

এদিন বিকেলে ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ২-১ গোলে হারিয়েছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে। বিজয়ী দলের গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড ওমরজোবে এবং আইভরি কোস্টের ফরোয়ার্ড বালো ফামুসা একটি করে গোল করেন। সাইফের হয়ে এক গোল শোধ দেন ফয়সাল আহমেদ ফাহিম। এটা জামালের টানা তৃতীয় জয় হলেও সাইফের প্রথম হার। জয়ের নেশায় ছুটতে থাকা শেখ জামাল চার ম্যাচে টানা তিন জয় ও এক হারে ৯ পয়েন্ট নিয়ে আছে তালিকার চতুর্থস্থানে। অন্যদিকে হারলেও পাঁচ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়স্থান ধরে রেখেছে সাইফ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
হৃদয় ৮ মার্চ, ২০২০, ১২:২১ পিএম says : 0
মোহামেডান এর ফিকচার কবে কবে?
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন