ঢাকা, বুধবার, ০৫ আগস্ট ২০২০, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বেসরকারি খাত এগিয়ে নিতে হবে : সালমান এফ রহমান

‘ডুইং বিজনেস সূচকে এই বছর ৩০ ধাপ এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ’

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৯ মার্চ, ২০২০, ১২:০১ এএম

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেসরকারি খাতের উন্নয়নের ওপর নির্ভরশীল। কাজেই দেশটাকে যদি এগিয়ে নিয়ে যেতে হয়, তাহলে বেসরকারি খাতকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। তিনি বলেন, তার (প্রধানমন্ত্রী) কথা হলো, দেশটাকে বেসরকারি খাতটাই এগিয়ে নিয়ে যাবে। সরকারের কাজটা হলো অনুক‚ল পরিবেশ তৈরি করে দেয়া। তিনি সেভাবেই এগিয়ে যাচ্ছেন।

গতকাল রোববার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক হোটেলে এক কর্মশালা ও মতবিনিময় সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি। ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর অনেকগুলো সরকারি খাত বেসরকারি হাতে তুলে দেন বলেও জানান সালমান এফ রহমান। তিনি বলেন, ১৯৯৬ সালে তিনি যখন প্রধানমন্ত্রী হলেন, তখন অনেকগুলো খাত মনোপোলি ছিল বা সরকারের কাছে ছিল। সেগুলো উনি কিন্তু বেসরকারি খাতের হাতে দিয়ে দিলেন। অনেকগুলো উদাহরণ আছে। যেমন মোবাইলফোন। তিনি ক্ষমতায় আসার সময় মাত্র একটা লাইসেন্স ছিল। এখন মোবাইলফোনের ৯০ ভাগের বেশি কার্যক্রম বেসরকারি খাতের। সরকারের একটা মোবাইলফোন কোম্পানি আছে, কিন্তু সেটার মার্কেট শেয়ার খুবই কম। বেশিরভাগই কিন্তু বেসরকারি খাত। তাছাড়া প্রাইভেট ব্যাংক, প্রাইভেট ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি, প্রাইভেট হাসপাতাল, প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি- মানে এমন কোনো খাত নেই যেখানে তিনি বেসরকারি খাতকে অনুমতি দেননি। ব্যবসা সহজীকরণের সম্পত্তি নিবন্ধন সূচক নিয়ে কর্মশালা ও মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

বিশ্বব্যাংকের সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী, ব্যবসা সহজীকরণ সূচকে বিশ্বের ১৯০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের বর্তমান অবস্থান ১৬৮তম। তার আগের বছর ১৭৬তম স্থানে ছিল বাংলাদেশ। অর্থাৎ এ সূচকে আট ধাপ এগিয়েছে দেশ। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা বলেন, ‘এ বছর বা ২০২০ সালে আমরা কমপক্ষে ৩০ ধাপ এগোব। আর আগামী বছর আমরা লক্ষ্যমাত্রা ১০০-এর নিচে বা দুই ডিজিটে চলে আসব।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, একটা দেশের ব্যবসা করা কতটা কঠিন বা সহজ প্রতিবছর তার সূচক নির্ধারণ করে বিশ্বব্যাংক। মূলত ১০টি খাতের ওপর ভিত্তিকরে বিশ্বব্যাংকব প্রতিবছর এই সূচক তৈরি করে। তার মধ্যে অন্যতম হলো, সম্পত্তি নিবন্ধনকৃত সম্পর্কিত সূচক। যেটি আইন ও বিচার বিভাগের সঙ্গে সম্পর্কিত। তিনি বলেন, ব্যবসা সহজীকরণ সূচকে উন্নতি করতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। আগামীতে এই সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান আরও ভালো হবে। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ স্বল্পউন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ার দ্বারপ্রান্তে রয়েছে। ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ, ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়ন, ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হবে। এছাড়া আমাদের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি এবং বিনিয়োগের পরিবেশ নিশ্চিত করতে পারলে আমাদের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে উলে­খ করে তিনি বলেন, উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণে দেশে বিনিয়োগকারীদের সর্বোচ্চ সুবিধা দিতে হবে। দেশের ক্রমবর্তমান উন্নয়ন ও শিল্পায়নের অন্যতম অবদান হলো বেসরকারি খাতের।

আইন সচিব গোলাম সারওয়ার বলেন, কোনো দেশের অর্থনীতির ১০টি মাপকাটিতে ব্যবসা সহজীকরণ সূচক নির্ধারণ করা হচ্ছে। বর্তমানে ১৯০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশে অবস্থান ১৬৮। এটা অনেক বেশি। তাই এই সূচক যাতে কমে আসে সেজন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে। আগামীতে এই সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান আরও উন্নতি করতে হবে।

এ সময় বিশ্বব্যাংকের অঙ্গসংগঠন আইএফসির প্রতিনিধি মিয়া রহমত আলী বলেন, বিশ্বব্যাংকের করা ইজি অব ডুইং বিজনেসের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১৯০টি দেশের ওপর গবেষণা করে দেখা যায়, সূচকে যদি ১ ভাগ উন্নতি হয়, তাহলে পরবর্তী ৩ থেকে ৫ বছরে আড়াইশ’ থেকে ৫০০ মিলিয়িন বিদেশি বিনিয়োগ হওয়ার সম্ভাবনা অত্যন্ত উজ্জ্বল। এ সময় বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান হিসেবে সিরাজুল ইসলামসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
SUSHILMAJUMDER ৯ মার্চ, ২০২০, ১১:৪৫ এএম says : 0
বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ভিত্তি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কারনে মজবুত আছে , তাই সালমান এফ রহমান সার এর ভূমিকা প্রশংসনীয়।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন