শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৫ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ফের গৃহযুদ্ধে দক্ষিণ সুদান

প্রকাশের সময় : ১২ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

দুই নেতার অনুগত বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষের বিস্তার
ইনকিলাব ডেস্ক : দক্ষিণ সুদানের প্রেসিডেন্ট সালভা কির এবং তার একসময়ের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট রিক মাচারের অনুগত বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষ অব্যাহত থাকায় দেশটি আবারো গৃহযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছে বলে বিবিসিকে জানিয়েছেন রিক মাচারের সামরিক মুখপাত্র। ২০১১ সালের ৯ জুলাই সুদানের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভ করে দক্ষিণ সুদান। পঞ্চম স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানী জুবায় প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ ও জাতিসংঘ ভবনের কাছে দুপক্ষে সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় দেশটির প্রেসিডেন্ট ও প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট বৈঠক করছিলেন। এই সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা নিয়ে ভিন্নমত রয়েছে। তবে অধিকাংশের ধারণা, সংঘর্ষের প্রথম দিনেই অন্তত ২৫০ জন নিহত হয়েছে। আর এতে গত রোববার পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা দাঁড়ায় ২৭২ জন। ২০১৩ সালে প্রেসিডেন্ট কির ভাইস প্রেসিডেন্ট মাচারকে বরখাস্ত করেন। এরপর প্রেসিডেন্ট কিরের দিনকা নৃগোষ্ঠী ও মাচারের নুয়ের গোষ্ঠীর অনুগতদের মধ্যে গৃহযুদ্ধ শুরু হয়। প্রায় ২০ মাস ধরে টানা লড়াইয়ের পর গত বছরের আগস্টে এক শান্তিচুক্তির মাধ্যমে এর অবসান হয়। কিন্তু চুক্তির অন্যতম প্রধান শর্তানুযায়ী দুই নেতার কেউই নিজ নিজ বাহিনীতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে পারেননি। এই প্রতিদ্বন্দ্বী দুই নেতার বৈঠক চলাকালে তাদের সমর্থকদের মধ্যে আধাঘণ্টার বন্দুকযুদ্ধের পর নগরীর বেশ কয়েকটি স্থানে ব্যাপক আকারে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। তবে গত শনিবার শহরের বাইরে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত থাকলেও গত রোববার শহরের জাতিসংঘ ভবনের সামনে ফের দুপক্ষের মধ্যে তীব্র সংঘর্ষ শুরু হয়। জাতিসংঘ জানিয়েছে, মর্টার ও ভারী গোলাবর্ষণের কারণে শহরের বাসিন্দরা পালিয়ে যাচ্ছে। তবে কী নিয়ে দুপক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়েছে তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। জুবায় অবস্থানরত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ত্রাণকর্মী বলেছেন, প্রায় ৩০ থেকে ৪০ মিনিট ধরে জেবেল এলাকা লক্ষ্য করে ভারী গোলাবর্ষণের শব্দ শুনেছি আমরা। গত শুক্রবারের লড়াইয়ে অন্তত ২৫০ জন নিহত হয়। স্থানীয় রেডিও স্টেশন তামাজুজ’র খবরে বলা হয়, লড়াইয়ে নিহতের সংখ্যা ২৭৬ জন হতে পারে।
উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে প্রেসিডেন্ট কির ভাইস প্রেসিডেন্ট মাচারকে বরখাস্ত করার পর দিনকা নৃগোষ্ঠীর কির ও নুয়ের গোষ্ঠীর মাচারের অনুগতদের মধ্যে গৃহযুদ্ধ শুরু হয়। দুই বছর টানা লড়াই চলার পর গত বছর অগাস্টে এক শান্তিচুক্তির মাধ্যমে এর অবসান হয়। কিন্তু শান্তিচুক্তির অন্যতম প্রধান শর্তানুযায়ী দুই নেতার কেউ নিজ নিজ অনুগত বাহিনীকে শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে পারেননি। বিশ্বের নবীনতম দেশ দক্ষিণ সুদানের স্বাধীনতা দিবস ছিল গত শনিবার। এর আগে গত শুক্রবার দুই নেতা প্রেসিডেন্ট ভবনে পরস্পরের সঙ্গে মিলিত হন। এখানে কির ও মাখারের দেহরক্ষীদের মধ্যে গোলাগুলি শুরু হলে নতুন করে লড়াই ছড়িয়ে পড়ে বলে জানা গেছে। তাদের অনুগত বাহিনীগুলোর মধ্যে কী নিয়ে সর্বশেষ সংঘর্ষের সূত্রপাত তা জানেন না বলে দাবি করেছেন উভয় নেতা। এএফপি, বিবিসি, রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন