ঢাকা, সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১৬ চৈত্র ১৪২৬, ০৪ শাবান ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

খালেদা জিয়ার জামিন সকালে, দুপুরে প্রত্যাহার

মানহানির মামলা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ মার্চ, ২০২০, ১২:০১ এএম

মানহানির অভিযোগে নড়াইলে দায়ের হওয়া এক মামলায় বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে সকালে স্থায়ী জামিন দেওয়ার পর দুপুরে সে রায় প্রত্যাহার করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এ মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে জারি করা রুল পুনরায় শুনানির জন্য এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে শুনানির দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল দুপুরে বিচারপতি আবু জাফর সিদ্দিকী ও বিচারপতি এএসএম আব্দুল মবীনের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।
আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে পুনরায় শুনানির জন্য আবেদন করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সামিরা তারানুম রাবেয়া। এর আগে সকালে নড়াইলের মানহানির মামলায় জারি করা রুল যথাযথ ঘোষণা করে এক বছরের স্থায়ী জামিন দেন হাইকোর্ট। এরপর দুপুরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সামিরা তারানুম রাবেয়া আদালতকে জানান, এ মামলায় খালেদা জিয়া ২০২১ সাল পর্যন্ত জামিনে আছেন। আমরা (রাষ্ট্রপক্ষ) এ মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে জারি করা রুলের ওপর শুনানি করতে চাই। তখন আদালত খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে পূর্বের জারি করা রুল শুনানি করতে নিজেদের রায় প্রত্যাহার করেন। আদালত বলেন, আমরা এ রুলের ওপর উভয়পক্ষকে শুনবো। এরপর আদালত খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে উভয়পক্ষের শুনানি করতে এপ্রিল মাসের প্রথম সপ্তাহের শুনানি হবে বলে দিন নির্ধারণ করেন।
ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সামিরা তারানুম রাবেয়া জানান, নড়াইলের মানহানির মামলায় খালেদা জিয়াকে স্থায়ী জামিন দেওয়ার সময় আমরা (রাষ্ট্রপক্ষ) আদালতে উপস্থিত ছিলাম না। তাই পরে আমরা আদালতকে বলি, এই মামলায় খালেদা জিয়া ২০২১ সালের জানুয়ারি মাস পর্যন্ত জামিনে আছেন। রাষ্ট্রপক্ষের কাছে এই মামলার নথি নেই। আমরা রুল শুনানি করতে চাই। তখন আদালত আমাদের আবেদন মঞ্জুর করে জামিন প্রত্যাহার করেন এবং তার জামিনের বিষয়ে জারি করা রুল পুনরায় শুনানির জন্য দিন ধার্য করে দেন। তাই তার জামিনের বিষয়ে পুনরায় রুল শুনানি হবে।
সকালে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানিতে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী।
মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে মন্তব্য করায় মানহানির অভিযোগে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ২০১৫ সালের ২৪ ডিসেম্বর নড়াইল সদর আমলি আদালতে মামলাটি করেন জেলার নড়াগাতী থানার চাপাইল গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান রায়হান ফারুকী ইমাম।
পরে ২০১৮ সালের ৫ আগস্ট এ মামলায় নড়াইলের আদালতে খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর হয়। এরপর ওই মামলায় জামিন চেয়ে খালেদা জিয়া একই বছরের ৯ আগস্ট হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন। পরে ২০১৮ সালের ১৩ আগস্ট খালেদা জিয়াকে এ মামলায় অন্তবর্তীকালীন জামিন দিয়ে রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট। এরপর ওই রুল যথাযথ ঘোষণা করে গতকাল বেগম খালেদা জিয়াকে স্থায়ী জামিন দিয়ে রায় ঘোষণা করেছিলেন হাইকোর্ট।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (8)
Md Akhtar Hosen ১৩ মার্চ, ২০২০, ১:১১ এএম says : 0
হাসিনার সরকারকে চিন থেকে কিছু শিক্ষা নেওয়ার দরকার
Total Reply(0)
Mamunur Rashid ১৩ মার্চ, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
বাংলাদেশের বিচার এখন ...দের হাতে
Total Reply(0)
Md Shahin ১৩ মার্চ, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
জামিন প্রত্যাহার না হলে বিচারক প্রত্যাহার হয়ে যাবেন তাই
Total Reply(0)
Anwar Hossen ১৩ মার্চ, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
একদিন আওয়ামিলীগ খুব আপসোস করবে। হয়তো আওয়ামিলীগ এর করুন পরিনতি বেগম খালেদা জিয়া দেখবে না
Total Reply(0)
Jahirul Islam Badol ১৩ মার্চ, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
very sad
Total Reply(0)
Jahirul Ep ১৩ মার্চ, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
আরো কত নাটক দেখব এটা তো নতুন না
Total Reply(0)
Yaon Khan ১৩ মার্চ, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
আইন বিভাগ স্বাধীন তাই
Total Reply(0)
মুহাঃ সারওয়ার হুসাইন ১৩ মার্চ, ২০২০, ৬:৩৯ এএম says : 0
বিচারকদের ক্ষমতাতো বহু আগেই মন্ত্রী এমপিরা ছিনিয়ে নিয়ে গেছে ৷ দুর্নিতীতে চ্যাম্পিয়ান আওয়ামিলীগ কখনই সঠীক বিচার করবেনা ৷ এটাই ওদের আসল চরিত্র ৷
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন