ঢাকা, শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৩ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

সম্পাদকীয়

চিঠিপত্র

| প্রকাশের সময় : ১৫ মার্চ, ২০২০, ১২:০১ এএম

 

প্রবীণ নিবাস কমে আসুক
সভ্যতার উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে প্রবীণ নিবাসের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় গুরুজনের প্রতি দায়িত্বহীনতা সমাজে প্রকট। তাই প্রবীণ নিবাসের বিনাশ প্রয়োজন। যাদের জন্য একটি শিশু পৃথিবীর আলো দেখে পৃথিবীর রঙিন জীবনের স্বাদ গ্রহণ করে, সেই বাবা-মা আজ অবহেলিত। সন্তানদের প্রাপ্য সম্মান অর্জনের লক্ষ্যে যেন বাধা না পড়ে, সে জন্য বাবা-মা সর্বোচ্চ ত্যাগ করে। সমাজের সেই সুপ্রতিষ্ঠিত সন্তানের ঘরে পিতা-মাতার জায়গা হয় না। এই সমাজচিত্র পাল্টাতে আমাদের দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন প্রয়োজন। প্রবীণ নিবাসের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি না পেয়ে কমে আসুক। বাবা-মা তাদের প্রাপ্য সম্মানটুকু পাক এটাই আমাদের একমাত্র চাওয়া।
উম্মে সাদিয়া
শিক্ষার্থী, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।


যানজট নিরসনে চাই গণসচেতনতা
সড়কপথে প্রয়োজনের তুলনায় অধিক যানবাহন চলাচলে সৃষ্ট সমস্যাকে যানজট বলে। যানজট বিভিন্ন কারণে হয়ে থাকে। এর মধ্যে উলেল্গখযোগ্য প্রধান দুটি কারণ হচ্ছে, অবৈধভাবে রাস্তা দখল ও ট্রাফিক আইন অমান্য করা। একটি ম্যাগাসিটিতে শহরের প্রায় ২৫ শতাংশ রাস্তা থাকতে হয়; কিন্তু ঢাকাতে এখন মাত্র ৮ শতাংশ রাস্তা রয়েছে। প্রকৃতপক্ষে রাস্তা খুব প্রশস্ত; কিন্তু বিভিন্ন কারণে রাস্তা বøক হয়ে সংকুচিত হয়ে গেছে। পাশাপাশি রাস্তার ওপর দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে অনেক হিমশিম খেতে হচ্ছে। যানবাহন অধিক সময় ধরে একস্থানে দাঁড়িয়ে থাকে। আবার দেখা যায়, রাস্তার ওপর দখলদাররা দোকান, বাজার চালু করে দখল করে আছে। ময়লার পাত্র, ডাস্টবিন, যত্রতত্র গাড়ির পার্কিং দেখা যায়। এসব কিছু যানজট হওয়ার পেছনে দায়ী।অফিস যাত্রীরাও ঠিক সময়ে অফিসে যেতে পারছে না। অনেক সময় রোগীর গাড়ি যানজটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকা পড়ে থাকে। রাস্তাতে অনেক মুমূর্ষু রোগী মারা যায়। আমরা যদি সচেতনতার সঙ্গে রাস্তায় চলাচল করি, তাহলে যানজট নিরসন করা সম্ভব।
মকবুল হামিদ
চাঁদপুর।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন