ঢাকা, রোববার, ০৫ এপ্রিল ২০২০, ২২ চৈত্র ১৪২৬, ১০ শাবান ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

কুমুদিনী হাসপাতালের দেড়শতাধিক সেবিকার হাসপাতাল ত্যাগের চেষ্টা

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২১ মার্চ, ২০২০, ১০:১৩ পিএম

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে করোনা আতঙ্কে কর্মরত সেবিকারা হাসপাতাল ত্যাগের চেষ্টা করেন। শনিবার বিকেল থেকে কুমুদিনী নার্সিং স্কুল এন্ড কলেজের প্রায় দেড় শতাধিক সেবিকা হাসপাতাল ত্যাগের চেষ্টা করেন বলে জানা গেছে।
জানা গেছে, গত দুইদিন আগে শ্বাসকষ্ট নিয়ে কুমুদিনী হাসপাতালে একজন রোগী ভর্তি হন। কিন্ত ওই রোগীকে কর্মরত চিকিৎসকরা এড়িয়ে চলায় সেবিকাদের মধ্যে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে তারা একযোগে প্রায় দেড়শতাধিক সেবিকা তাদের তল্পীতল্পা নিয়ে বিকেলে হাসপাতাল গেইট দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। হাসপাতালে কর্তব্যরত নিরাপত্তাকর্মীরা তাদের আটকিয়ে উধ্বর্তন কর্তপক্ষকে অবহিত করেন। এ সময় তারা বাধাপ্রাপ্ত হয়ে হাসপাতালের পুরাতন ডক্টরস ক্লাবের সামনে অবস্থান নেন।
এদিকে সেবিকাদের হাসপাতাল ত্যাগের চেষ্টার খবর পেয়ে কুমুদিনী হাসপাতালের পরিচালক ডা. প্রদীপ কুমার রায়, কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা.আব্দুল হালিম, কুমুদিনী নার্সিং স্কুল এন্ড কলেজের প্রিন্সিপাল রিনা ক্রুস, কুমুদিনী হাসপাতালের এজিএম অনিমেশ ভৌমিক আতঙ্কিত সেবিকাদের সঙ্গে এসে কথা বলেন। আতঙ্কিত সেবিকারা রোগিদের সেবা দিতে তাদের সুরক্ষা পোষাক ও সরঞ্জাম না থাকার অভিযোগ তা সরবরাহের দাবি জানালে হাসপতালের পরিচালক ডা. প্রদীপ কুমার রায় তাদের সুরক্ষা দিতে সকল প্রকার সুরক্ষা সরঞ্জাম সরবরাহের আশ্বাস দেন। এসময় তিনি তাদের জানান, দুই একদিনের মধ্যে বিদেশ থেকে উন্নত মানের ৪ শতাধিক সুরক্ষা পোষাক হাসপাতালে এসে পৌছাবে।
এ ব্যাপারে কুমুদিনী হাসপাতালের এজিএম অনিমেষ ভৌমিকের সঙ্গে সন্ধায় কথা হলে তিনি জানান, কর্তপক্ষ তাদের দাবি পুরনের আশ্বাস দিলে সেবিকারা নিজ নিজ কাজে ফিরে গেছেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Prasenjit sarker ২২ মার্চ, ২০২০, ২:০৬ পিএম says : 0
Sefty pohak emergency dorkar all doctor and nurse Der.
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন