ঢাকা, শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০২০, ২১ চৈত্র ১৪২৬, ০৯ শাবান ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

চীনের ১২টি আন্ডারওয়াটার ড্রোন ভারত মহাসাগরে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ মার্চ, ২০২০, ১২:৩৮ এএম

ভারত মহাসাগরে আন্ডারওয়াটার ড্রোনের বহর মোতায়েন করেছে চীন। এসব ড্রোন ইতোমধ্যে ৩,৪০০ পর্যবেক্ষণ রিপোর্টও পাঠিয়েছে। চীন সরকারের সূত্র জানায়, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরের মাঝামাঝি এসব ড্রোন মোতায়েন করা হয় এবং ফেব্রুয়ারিতে ফিরিয়ে নেয়া হয়। সি ইউং গ্লাডার নামের এসব ড্রোন হলো ‘আনক্রুড আন্ডারওয়াটার ভেহিকেল’ (ইউইউভি)। পানির নিচে মাসের পর মাস এগুলো পরিচালনা করা যায়। চীনের মোতায়েন করা ইউইউভিগুলো মার্কিন নেভির ইউইউভি-গুলোর অনুরূপ। ২০১৬ সালে মার্কিন নৌবাহিনীর এমন একটি ইউইউভি আটক করে চীন। যুক্তরাষ্ট্রের দাবি ছিলো নৌচলাচলের স্বাধীনতা রক্ষায় এটা মোতায়েন করা হয়েছিলো। ফলে অযুহাত পেয়ে চীন এখন ভারত মহাসাগরে গণহারে ইউইউভি মোতায়েন করছে। তারা আর্কটিক অঞ্চলেও একটি আইস ব্রেকার থেকে সি উইং মোতায়েন করেছে। গত বছর ডিসেম্বরে প্রকাশিত রিপোর্টগুলোতে বলা হয়েছিলো ভারত মহাসাগরীয় মিশনে চীন ১৪টি ইউইউভি মোতায়েন করতে যাচ্ছে। এখন মনে হয় বাকি দুটিতে কারিগরি সমস্যা দেখা দিয়েছিলো। বিশেষ জরিপ জাহাজ জিয়াংইয়াংহুং-০৬ থেকে এগুলো মোতায়েন করা হয়। পরে জাহাজটি চীনের রিঝুতে ফিরে আসে। চীনের সি উইং ইউইউভি-র সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ‘লিটোরাল ব্যাটেলস্পেস সেন্সিং-গ্লাইডারের’ (এলবিএস-জি) বেশ মিল রয়েছে। ২০১৬ সালে দক্ষিণ চীন সাগরের আন্তর্জাতিক পানি সীমায় এমন একটি এলবিএস-জি আটক করে চীন। পরে ক‚টনৈতিক রেষারেষির পর যুক্তরাষ্ট্রকে ইউইউভিটি ফেরত দেয়া হয়। তবে যুক্তরাষ্ট্রেরটি দেখে চীন সি উইং তৈরি করেনি। মার্কিন নৌবাহিনীর ঘটনার কয়েক মাস আগেই চীনের স‚ত্রগুলো এ ধরনের ইউইউভি তৈরির আভাস দিয়েছিলো। তবে আমেরিকারটি নিশ্চিতভাবে চীনাদের প্রভাবিত করেছে এবং দেখতেও প্রায় একই রকম। ড্রোন পানির তলের বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করে মাদার শিপে পাঠায়। যেমন: তাপমাত্র, লবনাক্ততা, টার্বিটিডি, ক্লোরোফিল, অক্সিজেনের মাত্রা, ইত্যাদি। চীন যেসব তথ্য সংগ্রহের দাবি করছে সেগুলো আপাত দৃষ্টিতে নির্দোষ মনে হলেও সাবমেরিন যুদ্ধের জন্য এসব তথ্য জরুরি। ফোর্বস, এসএএম।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (7)
Moin Ahmed ২৪ মার্চ, ২০২০, ১:৩৫ এএম says : 0
এসুযোগে এখন আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়ার ডুবো জাহাজও চলে আসবে। ভারত বলেন, চীন বলেন, আমেরিকা বলেন, এসব পরাশক্তিদের দাপটে আঞ্চলিক শান্তি বিনস্ট হলে আমাদের মতো দেশগুলিরই বেশি ঝামেলা হবে।
Total Reply(0)
Shajol Roy Shajol Roy ২৪ মার্চ, ২০২০, ১:৩৬ এএম says : 0
চীন ভারত কে কঠিন ভয় পায় কারন ভারতের জন্য এশিয়ায় মাতববরী করতে পারেনা আর অলপ নিরাপওা পরিশদে ভারত ঢুকলে বাঁশ দিব????
Total Reply(0)
Abul Kalam Azad ২৪ মার্চ, ২০২০, ১:৩৬ এএম says : 0
এটা ভারত ও চীনের বিষয়। এখানে কোন বাংলাদেশীর খারাপ মন্তব্য না করাই সমীচীন হবে কারণ এই দুটিই আমাদের বন্ধু রাষ্ট্র, এদের কারো সাথেই আমাদের কোন শত্রুতা নেই ।
Total Reply(0)
Sajibul Haque ২৪ মার্চ, ২০২০, ১:৩৭ এএম says : 0
সব কিছু অবান্তর চিন্তা ভাবনা এরা কখনো যুদ্বে জড়িত হবে না কারন এরা জানে যে যুদ্ব হলে দুইদেশের অর্থন্যতিক অবস্হা খারাপ হবে
Total Reply(0)
S.k. Sarkar ২৪ মার্চ, ২০২০, ১:৩৭ এএম says : 0
ভাই, ভারত মহাসাগরে আজকে ঢুকছে, কাল কিন্তু বঙ্গোপসাগরে ঢুকবে। সেটা মাথায় রাখবেন।
Total Reply(0)
Mahbur Rahman ২৪ মার্চ, ২০২০, ১:৩৮ এএম says : 0
ভার‌তের মাতব্ব‌রি শুধু বাংলা‌দেশ ও নেপাল ভুটা‌নের সা‌থে ।পাকিস্থান আর চী‌নের সা‌থে লাগ‌লে জ‌ন্মের শিক্ষা দি‌য়ে দে‌বে ।
Total Reply(0)
Mahbur Rahman ২৪ মার্চ, ২০২০, ১:৩৮ এএম says : 0
ভার‌তের মাতব্ব‌রি শুধু বাংলা‌দেশ ও নেপাল ভুটা‌নের সা‌থে ।পাকিস্থান আর চী‌নের সা‌থে লাগ‌লে জ‌ন্মের শিক্ষা দি‌য়ে দে‌বে ।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন