ঢাকা, শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০২০, ২১ চৈত্র ১৪২৬, ০৯ শাবান ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

উলিপুরে যুবককে অপহরণ করে হত্যাচেষ্টা, আটক-৪

কুড়িগ্রাম জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৫ মার্চ, ২০২০, ৬:৫৮ পিএম

কুড়িগ্রামের উলিপুরে এক যুবককে ব্রহ্মপুত্র নদের নির্জন চরে হত্যার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ার সময় একদল দুর্বৃত্তকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। অপহৃত যুবক বালুচরে কৌশলে মোটর সাইকেল থেকে লাফ দিয়ে চিৎকার শুরু করলে স্থানীয় জনতা দুর্বৃত্তদের আটক করে ৯৯৯ এ ফোন করে। অভিযোগ উঠেছে, দুর্বুত্তরা ওই যুবকের কাছে মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে তাকে অপহরণ করে ব্রহ্মপূত্র নদের নির্জন চরে হত্যার উদ্দ্যেশে নিয়ে যাচ্ছিল। ঘটনাটি ঘটেছে, গত মঙ্গলবার গভীররাতে উপজেলার হাতিয়া ইউনিয়নের পালের ঘাট নামক স্থানে। এসময় অপহৃত যুবকের মোটরসাইকেলসহ দূর্বৃত্তদের ব্যবহৃত ৩টি মোটর সাইকেল উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

পরিবার ও থানা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ধরনীবাড়ি ইউনিয়নের মাদারটারী গ্রামের ইউসুফ আলীর মেয়ে সুলতানা ওরফে ইসমোতারা বেগম (২৬) ঢাকায় গার্মেন্টেসে চাকুরি করতো। এসময় সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ উপজেলার সরাই হাজিপুর গ্রামের আফছার আলীর পুত্র রাকিবুল ইসলামের (২৭) সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এরই এক পর্যায়ে তারা উভয়ের সম্মতিতে প্রায় ৩ বছর আগে বিয়ে করেন। স্ত্রী ইসমোতারা বাবার বাড়ি মাদারটারী গ্রামে আসলে গত সোমবার রাকিবুল শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে আসেন। গত মঙ্গলবার দুপুরে স্থানীয় রাশেদুল ইসলামের নেতৃত্বে কয়েকজন দুর্বৃত্ত ইসমোতারার বাড়িতে এসে তাদের বিয়ের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে বসে। এরই এক পর্যায়ে দূর্বৃত্তরা রাকিবুলের ব্যবহৃত মোটর সাইকেলসহ তাকে নিরাপদে রাখার কথা বলে জোর পূর্বক তার বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। দিনভর বিভিন্ন জায়গায় রাকিবুলকে নিয়ে ঘোরাঘুরি করে শারীরিক ভাবে নির্যাতন করে। এসময় দূর্বৃত্তরা রাকিবুলের কাছে ফাঁকা স্টাম্পে সই এবং ৩ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে। ওই দিন দিবাগত গভীর রাতে তাকে চাকরীচ্যুত সাবেক সেনা সদস্য এরশাদুল হকের নেতৃত্বে ৭/৮ জনের একটি দূর্বৃত্ত দল রাকিবুলকে হত্যার উদ্যেশে ব্রহ্মপুত্র নদের নির্জন চরে নিয়ে যাচ্ছিল। এসময় বালুচরে মোটর সাইকেল পড়ে গেলে রাকিবুল প্রাণ বাঁচাতে লাফিয়ে আত্মচিৎকার করে দৌঁড়াতে থাকে। তার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ব্রহ্মপুত্র নদের পালের ঘাট নামক স্থানে এসে ৪ দূর্বৃত্ত¡কে হাতেনাতে আটক করে গণধোলাই দিয়ে ৯৯৯ এ ফোন দেয়। পরে উলিপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ধরনীবাড়ি ইউনিয়নের মধুপুর গ্রামের ছামছুল ইসলামের পুত্র চাকরিচ্যুত সেনা সদস্য এরশাদুল হক (৩৭), একই ইউনিয়নের মাদারটারী গ্রামের আব্দুল মান্নানের পুত্র মাহাবুব আলম (২৬), আব্দুল লতিফের পুত্র রাশেদুল ইসলাম (৩২) ও ওমর আলীর পুত্র আব্দুর মান্নান (৩০) কে আটক থানায় নিয়ে আসে। এসময় ৪ দূর্বৃত্ত পালিয়ে গেলেও তাদের ব্যবহৃত ২টি মোটরসাইকেল উদ্ধার করে পুলিশ।
অপহৃত রাকিবুল জানান, মোটরসাইকেলে নিয়ে যাওয়ার সময় তারা আমাকে বলে,তোকে আজ জবাই করে ব্রহ্মপূত্র নদে ভাসিয়ে দেব। আমি কিভাবে বেঁচে গেলাম সে কথা ভাবতেও ভয় পাচ্ছি।

রাকিবুলের পিতা আফছার আলী জানান, মঙ্গলবার দুপুর থেকে আমার ছেলের মোবাইল ফোন দিয়ে কল করে আমার কাছ থেকে ৩ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করেন। আমি টাকা দিতে অপরাগতা জানালে আমার ছেলেকে মারধর করা অবস্থায় ফোন দিয়ে ছেলের কান্নাকাটি শোনায়। পরে বিষয়টি আমি রায়গঞ্জ থানায় অবগত করি।
উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটককৃত ৪ জনসহ ৮ দূর্বৃত্তের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের পর বুধবার দুপুরে আটককৃত ৪জনকে জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন