ঢাকা, রোববার, ৩১ মে ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৭ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

বিনোদন প্রতিদিন

এখন বুঝি আম্মা কেন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়তে বলতেন-ফেরদৌস

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ মার্চ, ২০২০, ১২:০৩ এএম

গত ১৩ মার্চ থেকে সেল্ফ কোয়ারিন্টেনে আছেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস। মা, স্ত্রী, সন্তানকে রাজধানীর বনানী ডিওএইচএস’র বাসায় অবস্থান করছেণ। তবে প্রতি মুহুর্তে তিনি দেশবাসীর জন্য উৎকন্ঠার মধ্যে আছেন। এ পরিস্থিতিতে তিনি প্রত্যেককে বিনীত অনুরোধ করে বলেছেন, করোনাভাইরাসের মতো শক্তিশালী এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে আমাদের যুদ্ধ করতে হবে। সেই যুদ্ধটা করতে হবে আমাদেরকে নিজেদের ঘরের মধ্যে থেকেই। খুব জরুরি কাজ না হলে আমরা ঘরের বাইরে বের হবো না। ঘরের মধ্যে থেকেই নিজের পরিবারকে নিরাপদে রাখতে হবে। পাশাপাশি অন্য পরিবারকেও নিরাপদের মধ্যে রাখতে হবে। তরুণদের অনেকেই ঘরের মধ্যে থাকতে চায়না। তারা প্রায়ই বলে, ঘরের মধ্যে এতোটা সময় কীভাবে কাটাবো। তাদের উদ্দেশ্যে বলবো, একজন তরুণের কারণে যদি করোনাভাইরাস তার পরিবারের সবার মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে সেটা রোধ করা হয়তো আর কোনভাবেই সম্ভব হবে না। তাই নিজের পরিবারের সবার কথা ভেবে তরুণদের ঘরের মধ্যে নিজেকে গৃহবন্দী করে রাখাটাই আমি শ্রেয় মনে করি। এভাবে আমরা প্রত্যেকেই যদি নিজেদের অবস্থানে সচেতন হই, তাহলে করোনাভাইরাস আমরা প্রতিরোধ করতে পারবো। তিনি বরেন, যেখানে উন্নত বিশ্বের দেশগুলো করোনার বিরুদ্ধে হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে আমাদের জন্য এটা আরো অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং। অনেকেই হয়তো ভাবতে পারেন ঘরে বসে কী করা যাবে। ঘরে বসে অনেক কিছুই করা যায়, সবচেয়ে বড় কথা আমরা যারা সবসময় কাজে ব্যস্ত থাকি তাদেরকে এই মুহুর্তে পরিবার খুব কাছে পাবে। পিতা-মাতা ও সন্তানকে কাছে পাবে, দাদা-দাদী, নাতি-নাতনীদের কাছে পাব। গল্পের বই পড়ার প্রচুর সুযোগ যেমন রয়েছে, তেমনি ভালো ভালো সিনেমাও দেখা যেতে পারে। অনেকেই পেশাগত কাজের ফাঁকে ফাঁকে ফেসবুকে বুঁদ হয়ে থাকেন। এই অবসরে ফেসুবুকে বুঁদ হয়ে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় বিশ্বের কোথায় কী হচ্ছে, তা জেনে নিজেকে আরো সচেতন করা যেতে পারে। আমার আম্মা প্রায়ই বলেন, বাবা নামাজ পড়িও পাঁচ ওয়াক্ত। এখন অনুধাবন করছি আম্মা কেন একথা বলতেন। পরিস্কার পরিচ্ছনতা যে ঈমানের অঙ্গ, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়লে পাঁচবার অজু করা হয়। নিজেও পরিস্কার থাকা যায়। আর এখনতো সবাই বলছেন কিছুক্ষণ পরপর সাবান দিয়ে হাত ধুতে। যাতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত না হতে হয়। মূলকথা আমরা এখন নিজেদের পরিবারকে সময় দেই, নিজেরা সচেতন থাকি, দেশকে, দেশের মানুষকে সুরক্ষা করি। সবাই সম্মিলিতভাবে এই মুহুর্তে দেশের আইন কঠোরভাবে মেনে চলি, বেঁচে থাকলে ইনশাআল্লাহ আমাদের সুন্দর আগামী আমরা উপভোগ করতে পারবো।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন