ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

বাফুফের প্রশংসা করলেন সজীব ওয়াজেদ জয়

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ এপ্রিল, ২০২০, ৭:৫৩ পিএম

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের প্রভাবে সারাবিশ্বের মতো স্থবির হয়ে গেছে পুরো বাংলাদেশ। বিশ্বব্যাপী আতঙ্ক এই ভাইরাস যাতে ছড়িয়ে না পরে, সে কারণে সরকারী নির্দেশনায় বাংলাদেশের সবাই এখন ঘরে অবস্থান করছেন। সরকারের নির্দেশে গত ২৬ মার্চ থেকে শুরু হয়েছে সাধারণ ছুটি। যা অঘোষিত লকডাউন। এই ছুটি থাকবে চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত। এমন পরিস্থিতিতে কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি হচ্ছেন বাংলাদেশের দিন-মজুর, খেটে খাওয়া অসহায় মানুষ। ঘর থেকে বের হতে না পারলে কাজ করা হবেনা। আর কাজ করতে না পারলে জীবন ধারণের জন্য পেটের আহারও জুটবে না। এইসব মানুষের এমন কোন অবলম্বন নেই যা আকঁড়ে ধরে তারা বেঁচে থাকার উপায় খুঁজবে। তবে আশার কথা হচ্ছে- এসব অসহায় মানুষদের খাদ্য সহায়তা করছেন সরকার।

সরকারী সহযোগিতার পাশাপাশি দেশের বিত্তবান ও স্বচ্ছল অনেক মানুষও খাদ্যসামগ্রী দিয়ে অসহায়দের বেঁচে থাকার অবলম্বন হচ্ছেন। তাদের পাশাপাশি দেশের অনেক শিল্প প্রতিষ্ঠানও এগিয়ে এসেছে অসহায়দের সাহায্য করতে।

তবে এসবের মধ্যে ব্যতিক্রম বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। করোনাভাইরাস আতঙ্কে দেশে সাধারণ ছুটি শুরু হওয়ার পর থেকেই তারা প্রতিদিন দুপুরে দুইশ অসহায় মানুষকে রান্না করা খাবার বিতরণ করছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত তাদের এই কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন।

অসহায় খেটে খাওয়া মানুষদের পাশে খাদ্য সহযোগিতা নিয়ে দাঁড়ানো বাফুফের উদ্যোগের সংবাদ প্রকাশ হয়েছে বিভিন্ন জাতীয় সংবাদ মাধ্যমে। সেগুলো চোখে পড়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুত্র এবং তার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের।

মঙ্গলবার রাতে নিজের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডলে একটি সংবাদ প্রকাশ করে বাফুফের কর্মকান্ডের উচ্ছ¡সিত প্রশংসা করেছেন সজীব ওয়াজেদ জয়। টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের জন্য গর্ব হচ্ছে। অসহায়, অভাগা মানুষদের মাঝে তারা নিরাপদে খাদ্য বিতরণ করছে। সব কিছু বন্ধ থাকার সময়টাতে তারা এ কাজ চালিয়ে যাবে। আমরা একসঙ্গেই করোনাভাইরাসের বিপক্ষে জয়ী হবো।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
কবি যোগীন্দ্রনাথ সরকার. ১ এপ্রিল, ২০২০, ৮:৪৬ পিএম says : 0
“আতা গাছে তোতা পাখি ডালিম গাছে মউ”, “ফড়িংবাবুর বিয়ে! টিকটিকিতে ঢোলক বাজায় ধুচনি মাথায় দিয়ে”, “দাদখানি চাল মুসুরির ডাল চিনি-পাতা দৈ”
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন