ঢাকা, সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০১ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান বন্ধে ডিসিদের চিঠি

বর্ধিত ছুটির প্রজ্ঞাপন জারি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩ এপ্রিল, ২০২০, ১২:০৪ এএম

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে পহেলা বৈশাখের সব ধরনের অনুষ্ঠান ও কার্যক্রম স্থগিত করেছে সরকার। বন্ধ করা হয়েছে পার্বত্য অঞ্চলের বৈসাবি উৎসবের অনুষ্ঠানও। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সকল জেলা প্রশাসককে (ডিসি) চিঠি দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

গতকাল বুধবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব মোহাম্মদ আবদুল ওয়াদুদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়। চিঠিতে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস জনিত রোগের বিস্তার রোধে জনসমাগম পরিহার করার লক্ষ্যে পহেলা বৈশাখ বা এই উপলক্ষে সব ধরনের অনুষ্ঠান/কার্যক্রম স্থগিত করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো। তিন পার্বত্য জেলার বৈসাবিসহ অন্যান্য অনুষ্ঠানও স্থগিত করা হয়েছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার সকালে জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে এ নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় তিনি ডিজটাল উপায়ে নববর্ষের অনুষ্ঠান পালন করতে আহ্বান জানান। পহেলা বৈশাখ উপলক্ষ্যে রমনা বটমূলে ছায়ানটের বর্ষবরণের প্রভাতী আয়োজন শুরু হয় ১৯৬৭ সাল থেকে। এরপর ১৯৭১ সাল ছাড়া প্রতি বছররই অনুষ্ঠিত হয়েছে ছায়ানটের বর্ষবরণ অনুষ্ঠান।

অফরদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান ছুটি আরও ৭ দিন বাড়িয়েছে সরকার। আগামী ৫ থেকে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এর সঙ্গে দুই দিন ১০ ও ১১ এপ্রিল সাপ্তাহিক ছুটি যুক্ত হয়েছে। তাই ছুটি থাকছে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত।

গতকাল জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। মানুষের জীবন জীবিকার স্বার্থে রিক্সা, ভ্যানসহ যানবাহন, রেল, বাস পর্যায়ক্রমে চালু করা হবে। আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গত ২৬ মার্চ থেকে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত দেশে ছুটি চলছে। দ্বিতীয় দফা মিলিয়ে দেশ টানা ১৭ দিন ছুটিতে থাকবে।

জরুরি সেবা বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, ফায়ার সার্ভিস, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, টেলিফোন, ও ইন্টারন্টে ইত্যাদি এ ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না। কৃষি পন্য, সার-কীটনাশক, খাদ্য শিল্প পন্য, চিকিৎসার সারঞ্জামাদি, জরুরি ও নিত্য প্রয়োজনীয় পন্য পরিবহন এবং কাঁচা বাজার, খাবার, ওষুদের দোকান, ও হাসপাতাল ছুটির আওতাবর্হিভূত থাকবে। জরুরি প্রয়োজনে অফিসসমূহ খোলা যাবে। প্রয়োজনে ওষুধ শিল্প, উৎপাদন ও রফতানিমুখী শিল্প কলকারখানা চালু রাখতে পারবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন