ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

চেন্নাইয়ে তৃতীয় দফায় আটকে পড়া ১৬৪ জন বাংলাদেশীকে আজ ফিরিয়ে আনছে ইউএস-বাংলা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ এপ্রিল, ২০২০, ১১:৪১ এএম | আপডেট : ১২:২৬ পিএম, ২২ এপ্রিল, ২০২০

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে তৃতীয় দফায় ভারতের চেন্নাইতে আটকে পড়া ১৬৪ বাংলাদেশীকে ফিরিয়ে আনছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। গত ২০ ও ২১ এপ্রিলের ধারাবাহিকতায় আজ বুধবার (২২ এপ্রিল) বিকাল ৩টা ৩০ মিনিটে চেন্নাই থেকে তৃতীয় দফায় আটকে পড়া যাত্রী নিয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পৌঁছাবে। এছাড়া আগামী ২৪ ও ২৫ এপ্রিল চেন্নাই থেকে ঢাকায় আরো দু’টি ফ্লাইট পরিচালনা করবে ইউএস-বাংলা। ফ্লাইটগুলো ১৬৪ আসনের বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে ফ্লাইট পরিচালিত হচ্ছে। চেন্নাই থেকে দুপুর ১২:১৫ মিনিটে ছেড়ে আসবে এবং বিকাল ৩:৩০ মিনিটে ঢাকায় পৌঁছাবে। 

বুধবার (২২ এপ্রিল) ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানিয়েছেন জেনারেল ম্যানেজার (পিআর) মো. কামরুল ইসলাম।

গত একমাসের অধিক সময় ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে চিকিৎসার জন্য আটকে রয়েছে হাজার হাজার বাংলাদেশী। গত ১৭ মার্চ থেকে আকাশপথে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারনে কোনোভাবেই বাংলাদেশী যাত্রীরা দেশে ফিরে আসতে পারছিলো না, এ অবস্থায় ভারতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যেগে আটকে পড়া বাংলাদেশী যাত্রীদের ফিরিয়ে নেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে এবং সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। বিশেষ ফ্লাইটগুলোতে শুধুমাত্র বাংলাদেশীরাই ভ্রমণ করতে পারবে।

উল্লেখ্য, যাত্রীদের করোনাভাইরাস মুক্ত কোভিড-১৯ নেগেটিভ সার্টিফিকেট থাকলে অবশ্যই নিজ নিজ বাসায় হোম কোয়ারান্টাইনে থাকতে হবে। আর যেসকল যাত্রীদের কোভিড-১৯ নেগেটিভ সার্টিফিকেট নাই সেসকল যাত্রীদের সরকার নির্ধারিত প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে থাকার নির্দেশনা রয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Mohammed Shah Alam Khan ২২ এপ্রিল, ২০২০, ১১:০৪ পিএম says : 0
গত ১৮ এপ্রিল বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তাঁর ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তায় বলেছিলেন ভারত থেকে বংলাদেশীদেরকে ফিরিয়ে আনা হবে। সেটা যে এত শীগ্র কার্যকরি করা হবে এটা ভাবতেও অবাক লাগে। আমাদের নেত্রী হাসিনা একজন সাহসী নেত্রী হবার পরও ভারতের কাছে নতজানু হয়ে পড়েন এটাই আমার কাছে সবসময়ে আশ্চার্য লাগে। কিন্তু করার নেই কিছুই এটাই সত্য। আজ করোনায় বাংলাদেশে বিস্তার লাভ করেছে বিদেশ থেকে আগতদের মাধ্যমে এটা বাংলাদেশের আপামর জনগণ জানেন। এরপর আবার ভারতের বর্তমান সরকারি দল ও মুদী সরকার যেভাবে বিনা কারনে মুসলমানদেরকে অত্যাচার অবিচার করে তুলছে সেই ভারতের ক্ষমতাসীন দলের কাছে আমাদের দেশের সরকার নতজানু এটা ভাবা যায় না...... মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে আমি ভারতের প্রতি কৃতজ্ঞ এবং ভারতের বিষয়ে কিছু বলতে সাবধানতা অবলম্বন করে থাকি। একইভাবে বাংলাদেশে অবস্থানরত হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের প্রতিও সহানুভূতিশীল থাকতে চেষ্টা করি। এমনকি আমি নিজে আমার বাসার একজন জবরদখলকারি হিন্দু লোককে উঠাতে পারছিনা উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশের কারনে। শুধু তাই নয় এই হিন্দু ভদ্রলোক বাড়ির ছাদ জোড় দখল করে সেখানে শেরেক করা মানে মূর্তি পূজার জন্যে ফুলে চাষ করে প্রতিদিন বাড়িতে আমরা যেমন আল্লাহ্‌র এবাদদ করি তিনি (হিন্দু) পুতুল পুজা করেন। এমন কি আমি একদিন বাড়ির গেরেজে বড় করে দোয়া মাহফিল করেছিলাম তারপর চলে আসি। আমার অবর্তমানে সে ছাদে সামিয়ানা টানিয়ে বড় আকারে হিন্দু জামায়েত করে পুতুলের মূর্তি এনে ঢাক ডোল পিটিয়ে পূজা করে এটা গত বছরের বিষয়। আমি এবার আবার বড় করে দোয়া মাহফিল করতে চাইলে সেও একই ভাবে পুতুল পুজা করবে বলে আমাকে বাড়ির ৪ তলার দখলদারের মাধ্যমে জানায়। আমি স্থম্বিত হয়ে যাই তাঁর কর্মকাণ্ড দেখে, এখন থানাও আমার পাশে নেই কারন আমি প্রবাসি দেশে থাকিনা সেজন্যে এনারা আমার প্রতি ভরসা পান না। এদিকে আবার এই হিন্দু ভদ্রলোকের আত্মীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কর্মরত আছেন এটাও আমাকে একই বাড়ির ৪ তলার দখলদার জানিয়েছে। সেই কারনেই উত্তরা পশ্চিম থানা চুপ এবং একই কারনে এলাকার উত্তরা ১৩ নং সেক্টরের সমিতি ও কমিশনার এনারা (হিন্দু লোকের) সমর্থনে থাকায় আমার আরো বিপদ হয়েছে। এখন আমি তাঁর (হিন্দু লোকটা) কাছে অতি নগণ্য হিসাবে পরিগণিত, তাই আল্লাহ্‌র কাছে আমি আমার ফরিয়াদ করেছি এখন আল্লাহ্‌ একমাত্র আমার ভরসা। আমার এটা বলার উদ্দেশ্য যেহেতু ’৭১ সালে ভারত মানে হিন্দুদের রাষ্ট্র আমাদেরকে আশ্রয় দিয়েছিল এবং যুদ্ধের সাহায্য ও সহযোগিতা করেছিল সেহেতু ৫০ বছর পরও তারা আমাদেরকে গোলামের মত ব্যাবহার করবে এটা ঠিক নয়... নিন্দুকের অনের আগে থেকেই বলে আসছিল বাংলাদেশের সঠিক চিত্র হচ্ছে এটা ভারতের একটি অঘোষিত অঙ্গ রাজ্য... এখন আওয়ামী লীগের শাসন আমলে হিন্দুদের দূরত্বের কারনে এটাই সত্যে পরিণত হয়েছে বলে অনেকেই মনে করছেন... আল্লাহ্‌ আমাদের সহায় হউন সাথে সাথে আল্লাহ্‌র শেরকারিদের হাত থেকে আমাদেরকে রক্ষা করুন এটাই প্রার্থনা। আমিন
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন