ঢাকা রোববার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২০ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সিদ্ধান্ত গ্রহণে চলছে ভার্চ্যুয়াল বৈঠক কিংকর্তব্যবিমূঢ় বিচার বিভাগ

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৬ এপ্রিল, ২০২০, ১২:৫৪ পিএম

কিংকর্তব্য বিমূঢ় হয়ে পড়েছে বিচার বিভাগ। প্রাণঘাতি করোনায় ছিন্নভিন্ন সব। রাষ্ট্রের তিন স্তম্ভের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এ বিভাগের ওপরও পড়েছে প্রভাব। জাতির এ ক্রান্তিলগ্নে বিভাগটির গুরুত্ব যেমন তীব্র-তেমনি করোনা সংক্রমণ রোধে সংশ্লিষ্টদের নিরাপত্তার স্বার্থেই বিভাগটি সক্রিয়ও করা যাচ্ছে না। ফলে একবার সীমিত পরিসরে চালু করার সিদ্ধান্ত নেয়া হলেও সমালোচনার মুখে তা স্থগিত করতে হয়। এ নিয়ে বৈঠক চলছে দফায় দফায়। আইনজীবীসহ বিভিন্ন মহলের অনুরোধে একবার বিচার বিভাগ চালু করার সিদ্ধান্ত নিলেও পরদিনই সেটি বাতিল হয়ে যাচ্ছে। এর আগে গত ২৪ মার্চ এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সব আদালতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। সর্বশেষ গত ২৩ এপ্রিল ছুটি বাড়িয়ে ৫ মে পর্যন্ত করা হয়। সুপ্রিম কোর্ট রেজিস্ট্রার জেনারেল দফতরের তথ্যমতে, করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে গত ২৬ মার্চ থেকে ৫ দফা সাধারণ ছুটি বাড়ানো হয়। ফলে এক মাসেরও বেশি সময় ধরে আদালত বন্ধ আছে। করোনা বিস্তারের শুরুতে সীমিত পরিসরেও আদালতের কার্যক্রম চালু না রাখার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয় সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। তবে শুধুমাত্র দৈনন্দিন গ্রেফতার হওয়া আসামিদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার স্বার্থে চালু রাখা হয় চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট। কিন্তু এতে নতুন গ্রেফতার হওয়া আসামি,কারাবন্দী আসামিদের জামিন সম্ভব হচ্ছিলো না। এ প্রেক্ষিতে আইনজীবীদের একটি অংশ নাগরিকের মৌলিক মানবাধিকার রক্ষার প্রয়োজনে যেকোনো আদলে আদালত চালু করার অনুরোধ জানান। এ প্রেক্ষিতে গত ২৩ এপ্রিল জেলা ও দায়রা জজ, মহানগর দায়রা জজ, চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্র্রেট আদালত এবং চীফ মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের কার্যক্রম সপ্তাহে দুই দিন পরিচালনার সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া সিদ্ধান্ত হয় হাইকোর্টের একটি একক বেঞ্চ, আপিল বিভাগের চেম্বার কোর্টও চালুর। কিন্তু করোনা ভয়াবহ বিস্তারের প্রেক্ষাপটে এ সিদ্ধান্তকে ‘আতœঘাতি’ হিসেবে উল্লেখ করে সমালোচনা আসতে থাকে বিচার বিভাগ সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে। পরে ২৫ এপ্রিল এ সিদ্ধান্ত ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত করা হয়। পরবর্তী সিদ্ধান্ত নিতে রোববার ‘ফুল কোর্ট সভা’ ডাকেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী বেলা সাড়ে ১২টায় ভার্চ্যুয়াল বৈঠক চলছে।
এর আগে সকালে জনসমাগম এড়াতে শুধুমাত্র ভার্চ্যুয়াল কোর্ট চালুর অনুরোধ জানিয়ে প্রধান বিচারপতির কাছে আবেদন জানায় সুপ্রিম কোর্ট বার। এছাড়া আজ সকালে সকালে করোনা মহামারী থেকে আদালত সংশ্লিষ্ট সকল স্তরের কর্মকর্তা,কর্মচারি, আইনজীবী,সহকারি,বিচারপ্রার্থী, নিরাপত্তাকর্মীদের জীবন রক্ষায় আদালত বন্ধের দাবি জানিয়ে প্রধান বিচারপতির কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে ‘সাধারণ আইনজীবীদের অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ নামক একটি সংগঠন। করোনা মহামারি থেকে আদালত সংশ্লিষ্ট সকল স্তরের কর্মকর্তা, কর্মচারী, আইনজীবী, সহকারী, মক্কেল, নিরাপত্তাকর্মীদের জীবনের সুরক্ষায় আদালত বন্ধের দাবি জানিয়ে প্রধান বিচারপতির কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে সাধারণ আইনজীবীদের অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। এসব আবেদন-নিবেদন বিবেচনায় নিয়ে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন সুপ্রিম কোর্টের অন্যান্য বিচারপতিগণের সঙ্গে বৈঠক করছেন বলে জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল অফিসার ব্যারিস্টার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন