ঢাকা রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫ আশ্বিন ১৪২৭, ০২ সফর ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

আক্রমণ, অসন্তোষ এবং মিথ্যাচারপূর্ণ বিবৃতি

হোয়াউট হাউসের অভ্যন্তরে-২

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ১২:০৪ এএম

ট্রাম্প প্রায়শই কীভাবে তাকে চিত্রিত করা হয়েছে তা সন্ধান করেন। তিনি এ মাসে প্রকাশিত একটি নিবন্ধের ওপর ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন। বিবৃতিতে প্রকাশ হয় যে, তার স্বাস্থ্য সচিব অ্যালেক্স এম. এজার ট্রাম্পকে মহামারী হওয়ার সম্ভাবনা সম্পর্কে জানুয়ারিতে সতর্ক করেছিলেন। ট্রাম্পের সহযোগীরা জানিয়েছেন, তিনি হতাশ হয়েছেন যে, তাকে দোষ দেয়া হচ্ছে এবং এজারকে আরো ইতিবাচকভাবে চিত্রিত করা হয়েছে।

ট্রাম্প তার বন্ধুদের বলেছেন যে, তার ধারণা, এজার তার গলা চড়িয়ে নিজের খ্যাতি বাঁচানোর জন্য সংবাদ মাধ্যমের সাথে কাজ করছেন। হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র হোগান গিডলি অবশ্য বলেছেন যে, প্রেসিডেন্টের মনোযোগ তার সংবাদ কভারেজের দিকে নিবদ্ধ। তবে গিডলি এক বিবৃতিতে জানান যে, ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার হ’লো আমেরিকান জনগণের স্বাস্থ্য এবং সুরক্ষা।’

ট্রাম্পের সহযোগীরা জানিয়েছেন, মার্চের মাঝামাঝিতে প্রেসিডেন্টের পয়েন্ট কমে যায় যখন কোভিড-১৯ এর মৃত্যু ও সংক্রমণ প্রতিদিন বেড়েই চলছিল, ট্রাম্প ভাইরাসটিকে ‘চীন থেকে আগত এক ব্যক্তি’ হিসাবে চিত্রিত করেন এবং এটি ফ্লুর চেয়ে মারাত্মক কিছু নয় বলে মন্তব্য করেন। ট্রাম্পের দাতা সংগঠনের প্রচারণা প্রতিনিধি এবং মাইপিলো’র প্রধান নির্বাহী মাইক লিন্ডেল মার্চের শেষের দিকে হোয়াইট হাউসে গিয়েছিলেন এবং বলেছিলেন যে, প্রেসিডেন্ট এতটাই বিমর্ষ ছিলেন যে, লিন্ডেল তাকে এক ডেমোক্র্যাট ভোটার বন্ধুর পাঠানো একটি বার্তা দেখানোর জন্য ট্রাম্পের ফোনটি টেনে নেন। সেই ডেমোক্র্যাট বন্ধুটির মনে হয়েছিল যে, ট্রাম্প ভালভাবে দায়িত্ব পালন করছেন।
লিন্ডেল জানান যে, প্রশংসা শুনে ট্রাম্প পুলকিত হয়ে ওঠেন। তিনি বলেন, ‘আমি কেবল তাকে একটু আত্মবিশ্বাস দিতে চেয়েছিলাম।’
দৈনিক ব্রিফিংস :
হোয়াইট হাউস করোনভাইরাস টাস্কফোর্সের দৈনিক ব্রিফিংটি হ’ল দিনের সেই অংশটি ট্রাম্প যেটির জন্য অপেক্ষায় থাকেন। যদিও এমনকি রিপাবলিকানরাও বলেছেন, প্রেসিডেন্টের সেই ২ ঘন্টার রাজনৈতিক আক্রমণ, অসন্তোষ এবং মিথ্যাচার তাকে রাজনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। ট্রাম্প এর কিছুই শুনতে নারাজ। সহযোগীরা বলছেন, তিনি সংবাদ বিবৃতিকে প্রাইম টাইম প্রদর্শনী হিসাবে দেখেন। তিনি এখন চাইলেও আর জনসমাবেশে করতে পারছেন না। তাই বিষয়টিকে তিনি সমাবেশের সেরা বিকল্প হিসেবে নিয়েছেন।

ট্রাম্প খুব কমই ব্রিফিংয়ের আগে টাস্কফোর্স সভায় অংশ নেন এবং ক্যামেরার সামনে উপস্থিত হওয়ার আগে সাধারণত তিনি প্রস্তুতি গ্রহণ করেন না। তিনি প্রায়শই দিনের মূখ্য আলোচ্য বিষয়গুলির একবারে চ‚ড়ান্ত সংস্করণটি দেখেন যা তার সহায়তাকারীরা প্রথমবারের মতো তার জন্য প্রস্তুত করে। যদিও সহযোগীরা জানিয়েছেন, তিনি সংবাদমাধ্যমে সারাসরি পড়ার আগে মার্কার দিয়ে দাগিয়ে বিষয়গুলির সমন্বয় করে নেন।
তিনি সেগুলি ঝটিকা গতিতে নিজের মনে বলতে বলতে দেখে নেন যাতে সাংবাদিকদের সাথে প্রশ্নোত্তরের হয়রানিতে তিনি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন। এই পর্বটি তিনি উপভোগ করেন।
গভর্নর কুওমোসহ তার দৈনিক বিবৃতির বাকি সমালোচকরা অবধারিতভাবে তুলে ধরেছেন যে, প্রেসিডেন্টের কার্যদিবসের ২ ঘণ্টা সময় যদি প্রাইম টাইম সংবাদ বিবৃতি আয়োজনেই উৎসর্গীকৃত থাকে, তাহলে প্রকৃতপক্ষে মহামারীটির সমাধান করবে কে?
এমনকি ড. অ্যান্থনি এস ফাউচি, মহামারীটি সামাল দেয়ার সর্বোত্তম উপায় সম্পর্কে প্রেসিডেন্টকে পরামর্শ দেয়ার জন্য নিযুক্ত বিশেষজ্ঞদের মধ্যে একজন, ট্রাম্প সম্পর্কে অভিযোগ করেছেন, প্রতিদিনকার সংবাদ বিবৃতিতে তিনি আবশ্যকীয়ভাবে যে পরিমাণ সময় ব্যয় করেন, সেটির প্রভাব ট্রাম্পকে নিঃশেষ করে দিতে পারে। তবে, প্রেসিডেন্টের উপর এর বিপরীতধর্মী প্রভাব রয়েছে। তিনি কীভাবে বিষয়টিতে নিয়োজিত হয়েছেন, তা প্রায় একটি দুর্ঘটনার শামিল। (চলবে)

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (9)
Shirazuzzaman Helala ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ১২:৫২ এএম says : 0
জয়নাল হাজারীর ভাই ডোনাল্ড হাজারী
Total Reply(0)
Hasan Hafijul Haq Rony ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ১২:৫২ এএম says : 0
লোকটাকে মানুষ খারাপ ভাবছে। আসলে সে সত্যিই তার দেশের মানুষকে বাঁচাতে চায়। একটা দেশের রাস্ট্রপতি হিসেবে সে ভেতরে ভেতরে অনেক ভেঙে পড়েছে। তাইতো যা তার মুখে আসে বলে দিচ্ছে।
Total Reply(0)
Zillur Rahaman ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ১২:৫২ এএম says : 0
বিশ্বের সেরা জোঁকার। আমেরিকানরা না পারে সইতে, না পারে বিদায় করতে। এ রকম গোঁয়ার গোবিন্দ আমেরিকার ইতিহাসে কোন রাষ্ট্রপ্রধান আর আসেনি। এবার ডাক্তারি বিদ্যায় নোবেল পুরষ্কার নিশ্চিত!
Total Reply(0)
Md Shahidul Islam Shahid ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ১২:৫২ এএম says : 0
ট্রাম কে ধন্যাবাদ জানাই WHO অর্থ সহয়তা বন্ধ করার জন্য. মানুষকে বাচিয়ে রাখার কোন ভুমিকা নেই তাদের কাছে শুধু সাবান দিয়ে হাত ধোয়া ছাড়়া
Total Reply(0)
Ripan Shaha ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ১২:৫৩ এএম says : 0
এ ক্ষেত্রে তাকে আমি দোষ দিচ্ছি না , দেশের জনগন এভাবে আক্রান্ত হলে এবং মারা গেলে কোন প্রধানমন্ত্রীরই মাথা ঠিক থাকার কথা নয় , কারন তারা যে অনেক স্নায়ু চাপে থাকে এটা মনে হয় জনগন ভুলে যায় ।জাতীর কথা চিন্তা করে কোন দিক কূল না পেয়ে উনি চিকিৎসকদের বলেছেন , এই পদ্ধতিরগুলো অবলম্বন করা যায় কিনা গবেষণা করে দেখুন ।
Total Reply(0)
Nazim Nus ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ১২:৫৪ এএম says : 0
পঞ্চাশের উর্ধে কোন বয়স্ক লোক কে গুরুত্বপূর্ণ পদে রাখা ঠিক নয়, কারণ বয়স হলে মানুষের জ্ঞান লোপ পায় কি বুঝাতে চেয়ে কি বলে তা তারা নিজেরাই জানেনা।। ইয়াংদের গুরুত্বপূর্ণ পদে আসতে হবে বয়স্কদের অবসর দিতে হবে।
Total Reply(0)
Mazharul Rana ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ১২:৫৪ এএম says : 0
ট্রাম্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তাকে বাংলাদেশের সাস্থ মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টার দায়িত্ব দেওয়া হোক। সাথে জয়নাল হাজারী কে রাখা হোক।
Total Reply(0)
Dalia Akter ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ১২:৫৪ এএম says : 0
আমি ও তাকে বেশি দোষারোপ করছি না কারন বুঝে বলুক আর না বুঝে বলুক তার দেশের মানুষের জন্য তার ভালবাসার বহিঃপ্রকাশ।
Total Reply(0)
Syed Monirul Karim Monir r ২৭ এপ্রিল, ২০২০, ১২:৫৪ এএম says : 0
আসলেই তিনি দেশের জনগণকে ভালোবাসেন। তাই জনগণকে বাচানোর জন্য যে কোন উপায় অবলম্বন করতে চায়। তার কথাগুলো বাচ্চাদের মত মনে হলেও, তিনি যে জনগণের জন্য উদগ্রীব সেটা প্রমাণ করে
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন