ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১০ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বাবার কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত করোনায় প্রথম মৃত্যুবরণকারী সাংবাদিক খোকন

মোহাম্মদ আবদুল অদুদ | প্রকাশের সময় : ২৯ এপ্রিল, ২০২০, ৩:১৩ পিএম

দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুবরণকারী সাংবাদিক ও কবি, দৈনিক সময়ের আলোর সিটি এডিটর ও চিফ রিপোর্টার হুমায়ুন কবীর খোকনের (৫০) লাশ কুমিল্লার মুরাদনগরের রাজাচাপিতলা গ্রামে দাফন করা হয়েছে। বুধবার (২৯ এপ্রিল) বেলা ১১টার দিকে স্বল্প সংখ্যক লোকের অংশগ্রহণে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে বাবার কবরের পাশে দাফন করা হয়।

হুমায়ূন কবীর খোকন দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া প্রথম সাংবাদিক। রিজেন্ট হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শাহেদ আজ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আমরা রাতেই নমুনা সংগ্রহ করে পাঠিয়েছিলাম, ভোরে আমাদের জানানো হয়েছে, তার করোনাভাইরাস পজিটিভ এসেছে।সাংবাদিক খোকনের স্ত্রী ও সন্তানদের হোম আইসোলেশনে থাকতে বলা হয়েছে জানিয়ে রিজেন্ট হাসপাতালের জনসংযোগ কর্মকর্তা শিবলী বলেন, আমাদের ডাক্তাররা সার্বক্ষণিক তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখবেন।
মুরাদনগরের বাঙ্গরা বাজার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এলাকার সর্বস্তরের লোকজন সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর খোকনের জানাজায় অংশ নিতে উপস্থিত হলেও করোনার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে নির্দিষ্ট সংখ্যক কয়েকজনকে নিয়ে জানাজা শেষ করে দ্রুততম সময়ে দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার রাতে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর খোকন রাজধানীর উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

সদা হাস্যোজ্জল ও বিনয়ী হিসেবে সুপরিচিত খোকন কুমিল্লা সাংবাদিক ফোরাম-ঢাকা’র সভাপতি ছিলেন। এছাড়াও তিনি দৈনিক সময়ের আলোর আগে দৈনিক আজকের কাগজ, মানবজমিন, দৈনিক মাতৃভূমি, আমাদের সময়, আমাদের অর্থনীতিসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে বেশ সুনামের সঙ্গে কাজ করেছেন।

জানা যায়, গত ১৫ দিন ধরে বাসা থেকেই অফিস করছিলেন খোকন। মঙ্গলবার সকালে তার শ্বাসকষ্ট ও মাথাব্যথা দেখা দেয়। এর পর শারীরিক অবস্থা অবনতির দিকে গেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির অ্যাম্বুলেন্সে করে রাত ৯টার দিকে তাকে রিজেন্ট হাসপাতালে নেয়া হয়। হাসপাতালে ভর্তির সময়ই তার অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল। ডাক্তাররা চেষ্টা করলেও ঘণ্টাখানেকের মধ্যে তার মৃত্যু হয়।
সাংবাদিক খোকন ১৯৭৩ সালে কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানার চাপিতলা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। স্কুলজীবন পার করেছেন চাপিতলা অজিফা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয়ে। পরে দেবিদ্বার সুজাত আলী সরকারী কলেজ থেকে সম্মান পাশ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই মেয়ে, এক ছেলে রেখে গেছেন।
খোকনের মৃত্যুতে সাংবাদিক সমাজে ও সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন সেতুমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক, উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের, কুমিল্লা সাংবাদিক ফোরামের প্রধান উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম, সময়ের আলোর প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহসহ আরও অনেকে।

এছাড়া ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ), বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে), ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে), জাতীয় মানবাধিকার সোসাইটি, কুমিল্লা সাংবাদিক ফোরাম-ঢাকা (সিজেএফডি) সহ বিভিন্ন সংগঠন শোক জানিয়েছেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন