ঢাকা, শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ২৭ আষাঢ় ১৪২৭, ১৯ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

তুরস্কের মসজিদে লাইট দিয়ে ঘরে থাকার বার্তা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ এপ্রিল, ২০২০, ৫:১০ পিএম

তুরস্কের একটি প্রাচীন মসজিদে দুই মিনারের মধ্যে ছোট ছোট লাইট দিয়ে বিভিন্ন বার্তা দেয়া হচ্ছে একটি শত বছরের ঐতিহ্য। এগুলো সাধারণত তারাবীর নামাজের সময় গুটিয়ে রাখা হয়। তবে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে এবার ঐতিহ্য ভেঙ্গে সেই লাইটগুলো দিয়ে এবারের রজমানে মুসলিমদেরকে ঘরে থাকার বার্তা দেয়া হয়েছে।

ইস্তাম্বুলের ফাতি শহরে ৪০০ বছরের পুরনো অটোমান-যুগের মসজিদটির উঁচু মিনারগুলো থেকে আলো দিয়ে ধর্মীয় বার্তা ছড়িয়ে দেয়ার এই পদ্ধতিটি ‘মাহিয়া’ নামে খ্যাত। এটি তুরস্কের একটি অনন্য এবং শত বছরের পুরানো ঐতিহ্য। লাইট ঝুলানোর প্রক্রিয়াটি এ ক্ষেত্রে অভিজ্ঞ শিল্পীদের দ্বারা তদারকি করা হয়। স্কেচগুলো অনুসরণ করে তারা বিভিন্ন রঙের লাইট বাল্ব তারের সাথে সাজিয়ে কাঙ্ক্ষিত বার্তাটি বানানো হয়। এরপর পুলি ব্যবহার করে মসজিদের দুই মিনারের মধ্যে টাঙ্গিয়ে দেয়া হয়। লাইটগুলোর মাধ্যমে সাধারণত বিশাল অক্ষরে ধর্মীয় বার্তা ফুটিয়ে তোলা হয় এবং এটি দূর থেকে দৃশ্যমান। রোজাদারদের অনুপ্রেরণা দেয়ার উদ্দেশ্যে এটি করা হয়।

চলতি বছর, রমজানের শুরুতে তুরস্কে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব শিখরে উঠায় এবারের বার্তাগুলোতেও পরিবর্তন এসেছে। এ শিল্পের হাতে গোণা কয়েকজন বিশেষজ্ঞই এখনো থেকে গেছেন। তাদের একজন কাহারমান ইলদিজ জানান, তিনি তার দীর্ঘ ক্যারিয়ারে দুটি মিনারের মধ্যে আলো জ্বালানোর সময় প্রথমবারের মতো একটি মাস্ক পরেছিলেন। তিনি বলেন, ‘আমরা রমজান মাসে সুন্দর ধর্মীয় বার্তা দিচ্ছিলাম। এই মাসে এই মহামারীর কারণেই সব অন্যরকম হয়ে গেল। আমরা এবার মহামারির সাথে সম্পর্কিত বার্তা দিচ্ছি।’ এ সময় তিনি ‘ঘরে জীবন সাজান’ এমন লেখা আলোকসজ্জা বের করছিলেন। তারপরে তিনি মিনারগুলির মধ্যে একটি দড়িতে লাইটগুলি একের পর এক ঝুলাতে শুরু করেন কারণ তিনি এবং তার সহকর্মীরা সামাজিক দূরত্বের নিয়ম যত্ন সহকারে মেনে চলছেন। রমজানে প্রতি সন্ধ্যায় মাগরিবের আজানের আগে এগুলো জ্বালানো হয়।

মসজিদ ফাউন্ডেশনের জেনারেল ডিরেক্টর বুরহান এরসয় জানান, ‘মাহিয়া শত বছর ধরে কোরআনের আয়াত থেকে সুন্দর বার্তা দিয়েছে। তবে এ বছর প্রথমবারের মতো মাহিয়া আমাদের স্বাস্থ্য রক্ষার জন্য বার্তা দিচ্ছে।’ এছাড়াও ‘দায়বদ্ধ থাকুন, সুস্থ থাকুন’ এবং ‘বাড়িতে থাকুন, সুস্থ থাকুন’ এ ধরণের বার্তাও দেয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান। সূত্র: রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন