ঢাকা, শুক্রবার, ০৫ জুন ২০২০, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১২ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বিলাসবহুল বিনোদন সম্ভার

কিম জং-উনের প্রমোদ রেল-১

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ এপ্রিল, ২০২০, ৮:৪৯ পিএম

কয়েকদিন আগেই উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং-উনের অসুস্থতার খবরে শোরগোল পড়ে গিয়েছিল সামাজিক ও গণমাধ্যমগুলিতে। দক্ষিণ কোরিয়ার একটি অনলাইন ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম থেকে জানা গিয়েছিল যে, কিম জং-উন হৃদযন্ত্রে অস্ত্রোপচারের পর সঙ্কটজনক অবস্থায় একটি রিসর্টে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সামাজিক মাধ্যমে ছড়ানো কিছু গুজবে এও বলা হয় যে, শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন উত্তর কোরিয়ার ৩৬ বছর বয়সী এই শাসক।
গত ১১ এপ্রিলের পর উত্তর কোরিয়ার কোনো সরকারি সংবাদমাধ্যমেই কিমের ছবি বা ভাষণ প্রকাশিত হয়নি। পিয়ংইয়ংয়ের কোনো সংবাদমাধ্যম তার স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিষয়ে মুখ খোলেনি। গত ১৫ এপ্রিল উত্তর কোরিয়ার জন্মদিবসের কোনো অনুষ্ঠানেও দেখা যায়নি কিমকে।
কিম জং-উন বেঁচে আছেন কি মরে গেছেন, নাকি গুরুতর অসুস্থ হয়ে কোথাও চিকিৎসাধীন, তা নিয়ে বেশ কদিন ধরেই চলছে জল্পনা। এমন সব জল্পনাকল্পনা নতুন মাত্রা পেয়েছে উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের বিশেষ ট্রেনটিকে চলতি সপ্তাহে রিসর্ট শহর উনসানের একটি স্টেশনে ২ দিন ধরে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখায়। উপগ্রহের তোলা ছবিগুলো থেকে যদিও নিশ্চিত হওয়া সম্ভব হয়নি যে, সেই ট্রেনে কিম ছিলেন কি না বা তিনি উনসানেই অবস্থান করছেন কি না। তবে কিমের বিশেষ ট্রেনটি নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ সংবাদপত্র দি সান। প্রতিবেদনটি ২ পর্বে প্রকাশিত হবে। আজ ১ম পর্ব তুলে ধরা হলো ঃ
উত্তর কোরিয়ার স্বৈরশাসক কিম জং-উনের স্বাস্থ্যের বিষয়ে গুজব চলাকালে নিখোঁজ থাকার পর তার মার্কামারা ট্রেনটিকে গত সপ্তাহে দেশটির রিসর্ট শহর ওয়ানসানে উপস্থিত হতে দেখা যায়। কিম মারা গেছেন এই দাবি ওঠার পর পশ্চিমা গুপ্তচর সংস্থাগুলো খবরের সত্যতা জানতে তাকে উপগ্রহের মাধ্যমে ট্র্যাক করতে শুরু করে। এরপরই প্রেসিডেন্টের বিলাসবহুল রেলগাড়িটি উপগ্রহের তোলা ছবিতে স্পষ্ট হয়ে ওঠে।
কিমের বিশেষ ট্রেনটি তার অস্ত্র-সজ্জিত মার্সিডিজ বহন করে থাকে এবং কখনো কখনো মার্সিডিজটির সাথে কিমের ব্যক্তিগত মোবাইল টয়লেট বহনকারী অন্য একটি সাঁজোয়া গাড়িও বহন করে এটি। ২০টি বগিসম্বলিত রেলগাড়িটিতে গোলাপী চামড়ার সোফার একটি লাউঞ্জ, স্যাটেলাইট টিভিসহ একটি আধুনিক সম্মেলন ও অফিস কক্ষ এবং রসনা বিলাসের জন্য সর্বোত্তম খাবারের পসরাসম্পন্ন একটি বিশেষ বগি রয়েছে।
ট্রেনটি কিমের পছন্দের আমদানিকৃত খাবার এবং উচ্চস্তরের পানীয় ও মদে ভরপুর বলে জানা যায়।
বলা হয়ে থাকে যে, সুইজারল্যান্ডে শিক্ষিত কিমের বিশেষ পছন্দের সুইস পনির, ক্রিস্টাল শ্যাম্পেইন এবং এনেসি কনিয়্যাকের যোগান রয়েছে ট্রেনে এবং ট্রেনটি সম্পূর্ণভাবে পরিচালনা করা হয় কিমের নিজের হাতে বাছাইকৃত বিনোদন বাহিনীর বিভিন্ন পদ থেকে সংগ্রহ করা একদল সুন্দরী কুমারী নারী দিয়ে। (চলবে)

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
jack ali ২৯ এপ্রিল, ২০২০, ৯:১৫ পিএম says : 1
May Allah wipe out this Kim by coronavirous. He enjoy his life luxuriously whereas majority people in North Korea suffer from hunger.
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন