ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস পুরোদমে সচল

রফিকুল ইসলাম সেলিম | প্রকাশের সময় : ৪ মে, ২০২০, ১২:০৪ এএম

লকডাউনেও পুরোদমে সচল চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস। দেশের প্রধান সমুদ্রবন্দর ভিত্তিক এ রাজস্ব আদায়কারী প্রতিষ্ঠানে এখন দারুন ব্যস্ততা। চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে আমদানি পণ্যের শুল্কায়ন চলছে দ্রুতগতিতে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য, জরুরি চিকিৎসা ও সেবাসামগ্রীর পাশাপাশি শিল্পের কাঁচামাল, ক্যাপিটাল মেশিনারিজসহ সব পণ্যের শুল্কায়ন হচ্ছে। এতে চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্যখালাস বাড়ছে, জট কমছে।

বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) অনুমোদনক্রমে চট্টগ্রাম বন্দরের ২৫ কিলোমিটারের মধ্যে ১৯টি বেসরকারি আইসিডিতে (অফডক) সব ধরনের পণ্য খালাস হচ্ছে। এতে আমদানিপণ্য খালাসে আরও গতি আসছে। আমদানি কাঁচামালের সরবরাহ স্বাভাবিক থাকায় করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে দেশে চলমান লকডাউনেও শিল্প কলকারখানা সেই সাথে অর্থনীতির চাকা কিছুটা হলেও সচল রয়েছে।
সমুদ্রপথে পণ্যের ৯৩ শতাংশ আমদানি-রফতানি হয় চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে। আমদানি পণ্যের শুল্কায়ন হয় এনবিআর খাতের বৃহৎ রাজস্ব আদায়কারী প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের মাাধ্যমে। চট্টগ্রাম বন্দর ভিত্তিক এ কাস্টম হাউসের কর্মকর্তা কর্মচারীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কাজ করছেন। কাস্টম হাউসের সাথে বন্দরের বিভিন্ন জেটি, তিনটি ইপিজেড, ১৯টি অফডক, চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, এফ ডিভিশন, এ আই আর শাখা থেকে শুরু করে কাস্টম নিলাম শাখাও চালু আছে।

চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের কমিশনার মোহাম্মদ ফখরুল আলম ইনকিলাবকে বলেন, কাস্টম হাউসের সব বিভাগ পুরোদমে সচল রয়েছে। দ্রুত আমদানিপণ্যের শুল্কায়ন করা হচ্ছে। কিছু কিছু বিভাগে কাজের খুব চাপ। সেখানে অতিরিক্ত লোক দিয়ে কাজ শেষ করা হচ্ছে। অযথা সময়ক্ষেপণ যেন না হয় সেটিও তদারক করা হচ্ছে। তিনি বলেন, আগে দিনে ছয় হাজার বিল অব এন্ট্রি জমা হতো এখন তা দেড় হাজারে নেমে এসেছে। এতে চাপ কিছুটা কমলেও দ্রুত কাজ শেষ করা হচ্ছে। কাস্টম হাউসের পুরো লোকবল কাজে লাগানো হচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন