ঢাকা, মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৯ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

পুলিৎজারে ভূষিত কাশ্মীরের ৩ সাংবাদিক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ মে, ২০২০, ২:৩৯ পিএম

বিশ্বে আবারো আলোচিত হল কাশ্মীরের নাম। ভারতের আগ্রাসনে বিধ্বস্ত কাশ্মীরের না দেখা চেহারা দুনিয়ার সামনে তুলে ধরেছিলেন অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস সংবাদমাধ্যমের তিন কাশ্মীরি ফটোগ্রাফার দার ইয়াসিন, মুখতার খান এবং ছান্নি আনন্দ। এই অনন্য কাজের স্বীকৃতি হিসেবে তাদের হাতে উঠে এল ২০২০ সালের পুলিৎজার পুরস্কার ফিচার ফটোগ্রাফি বিভাগে। পুরস্কার প্রাপকদের নাম সোমবার ঘোষণা করা হয়।

পুলিৎজার বোর্ডের প্রধান ডানা ক্যানেডি বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন ইউটিউবে লাইভ স্ট্রিমিংয়ের মাধ্যমে। সাধারণত নিউ ইয়র্কের কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে এক এলাহি অনুষ্ঠানে প্রতি বছর বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। এবছর করোনার প্রকোপে বদলে গিয়েছে সব নিয়ম। পুলিৎজার বোর্ডের ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে এই বিশেষ পুরস্কারের জন্যে কাশ্মীরের তিন চিত্রগ্রাহককে বেছে নেয়া হয়েছে কারণ তারা বিতর্কিত হিমালয় অঞ্চলের জীবনযাপনের অনন্য সব দলিল লেন্সবন্দি করেছেন।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কখনও কারফিউয়ের মধ্যে, কখনও অপরিচিতদের বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে আবার কখনও সবজির বস্তায় ক্যামেরা লুকিয়ে এই তিন চিত্রগ্রাহক প্রতিবাদ, বিক্ষোভ, পুলিশ, আধাসামরিক বাহিনী এবং উপত্যকার রোজনামচার যে ছবি ক্যামেরাবন্দি করেছেন তা এক কথায় অনন্য।

সেই সব ছবির ফাইল নিরাপদে সংবাদসংস্থার দিল্লি দফতরে পৌঁছে দেয়ার জন্যে তারা অনুরোধ করতেন বিমান যাত্রীদের। এভাবেই প্রতিদিন মৃত্যুর সঙ্গে লুকোচুরি শেষে লেন্সে ধরা পড়েছে না দেখা কাশ্মীরের ছবি।

দার ইয়াসিন এবং মুখতার খান দু’জনেই শ্রীনগরের বাসিন্দা। অন্যদিকে ছান্নি আনন্দ জম্মু জেলার বাসিন্দা। পুরস্কারের কথা জানতে পেরে আনন্দে বাক্যহারা হয়ে গিয়েছিলেন আনন্দ। একটি সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, ‘খবরটা শুনে বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না।’ অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের প্রেসিডেন্ট এবং সিইও গ্যারি প্রুইটের বক্তব্য, এদের কাজ একাধারে অসাধারণ এবং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

দার ইয়াসিন বলেন, সবসময়ই কাশ্মীরে সাংবাদিকতা ছিল ইঁদুর-বিড়ালের খেলা। আর এতে করে আমরা আরও বেশি আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠতাম যে কখনই স্তব্ধ করা যাবে না।

উল্লেখ্য, গত বছর ভারতের অধিকৃত মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ রাজ্য কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকার। এই পদক্ষেপ ঘিরে ওই অঞ্চলে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েনের পাশাপাশি দীর্ঘমেয়াদি কারফিউ জারিসহ নাগরিক অধিকার সীমিত করা হয়। তখন বিক্ষোভের সময় দুর্লভ ছবি তোলেন ওই তিন সাংবাদিক। সূত্র: বিবিসি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন