ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

২৪ ঘন্টায় এক চিকিৎসকসহ ১০জনের মৃত্যু

ঢামেকের করোনা ইউনিটে ২৫দিনে ২৮২জনের মৃত্যু

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৬ মে, ২০২০, ৫:৪২ পিএম

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে নারায়ণগঞ্জ হাসপাতালের অবসরপ্রাপ্ত গাইনি বিভাগের সিনিয়র কনসালট্যান্ট চিকিৎসক আমেনা খান মারা গেছেন। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর এলাকার আমেনা ক্লিনিকের গাইনি বিভাগের চিকিৎসক ছিলেন তিনি। একই সঙ্গে আমেনা ক্লিনিকের মালিক ছিলেন তিনি। এ নিয়ে দেশে চারজন চিকিৎসকের করোনায় মৃত্যুবরন করেন। গত ২৪ঘন্টায় মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত ঢামেকের করোনা ইউনিটে ১০জন মৃত্যুবরন করেছেন। এদের মধ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৫জনের মৃত্যু হয়েছে। ১জন মহিলাসহ অন্যান্যরা করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরন করেছেন। সোমবার ঢামেকের করোনা ইউনিটে ১৯জন মৃত্যুবরন করে। গত ২মে থেকে করোনা ইউনিটে মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত ২৫দিনে মোট নারী ও পুরুষ মিলে ২৮২জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৬৩জন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান এবং অন্যরা করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যান।
হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছেন, করোনা ইউনিটে কোভিড-১৯ পজিটিভ রোগী ছাড়া উপসর্গ আছে এমন রোগী, নিউরো সার্জারি, অর্থোপেডিক্স, শিশু বিভাগের রোগীরাও চিকিৎসা পাচ্ছেন। এমনকি করোনা আক্রান্ত অন্তঃসত্ত্বা নারীদের চিকিৎসা দেয়া হয়। তাই অনেক সাধারণ রোগী আছে বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে শেষ মুহুর্তে ঢামেকে আসেন। যখন আসে তখন চিকিৎসকদের আর কিছু করার থাকে না। এদিকে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এমন দাবি করলেও করোনা ইউনিটে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী, রোগীর স্বজন, মৃত রোগীর স্বজনরা ভিন্ন অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। এখানে আসা গুরুত্বর অসুস্থ অনেক রোগী সময়মতো সেবা পাননা বলেও কেউ কেউ অভিযোগ করেছেন।
ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের হেমাটোলজি বিভাগের প্রধান ও প্লাজমা থেরাপির জন্য গঠিত কমিটির প্রধান অধ্যাপক ডা. এম এ খান বলেন, যারা প্লাজমা দিচ্ছেন তাদের ভয়ের কোনও কারণ নেই, তারা নিরাপদ থাকবেন। কোনও ধরনের রি-ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা নেই। কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে যারা সুস্থ হয়েছেন তাদের প্রতি অনুরোধ, আপনার দেয়া প্লাজমাতে সুস্থ হতে পারেন আরেকজন মানুষ। তাই সবাইকে এগিয়ে আসতে অনুরোধ করছি।
উল্লেখ্য, গত ১৫ এপ্রিল দেশের প্রথম চিকিৎসক হিসেবে সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈন উদ্দীনের মৃত্যু হয়। এরপর গত ৩ মে দেশের অন্যতম হেমাটোলজিস্ট এবং ল্যাবরেটরি মেডিসিন স্পেশালিস্ট অধ্যাপক কর্নেল (অব.) মো. মনিরুজ্জামানের মৃত্যু হয়। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১২ মে রাজধানীর ইবনে সিনা হাসপাতালের রেডিওলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. মেজর (অব.) আবুল মোকারিম মো. মহসিন উদ্দিন মারা যান। এ নিয়ে দেশে চারজন চিকিৎসকের করোনায় মৃত্যুবরন করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন