ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

দফায় দফায় ফিরছে অবৈধ প্রবাসীরা, বিদেশ প্রত্যাগতদের পুনর্বাসনে ৭শ’কোটি টাকা বরাদ্দ

শামসুল ইসলাম | প্রকাশের সময় : ৩০ মে, ২০২০, ২:২১ পিএম

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণের মাঝে মধ্যপ্রাচ্যের তেল সমৃদ্ধ দেশ কুয়েত ও মালদ্বীপ থেকে দফায় দফায় অবৈধ প্রবাসী কর্মীরা খালি হাতে দেশে ফিরছে। প্রত্যাগত এসব অসহায় প্রবাসী কর্মীদের পরিবার পরিজন চরম হতাশায় ভুগছেন। সরকার বিদেশ প্রত্যাগত প্রবাসী কর্মীদের পুনর্বাসনে দু’দফায় ৭শ’ কোটি টাকা বরাদ্দ দিচ্ছে। শিগগিরই এসব অর্থ বিলি-বণ্টনের প্রক্রিয়া শুরু হবে।
শুক্রবার ও আজ শনিবার মালদ্বীপ-কুয়েত থেকে ৬৮৮ জন অবৈধ কর্মী দেশে ফিরছে। দেশ দু’টিতে আরো প্রায় ৫ হাজার অবৈধ কর্মী দেশে ফেরার প্রহর গুণছে। ঢাকা বিমান বন্দর থেকে নিজ নিজ বাড়ি ফিরতে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী ইমরান আহমদের নির্দেশে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড থেকে প্রত্যাগত প্রবাসী কর্মীদের নগদ ৫ হাজার টাকা করে সহায়তা দেয়া হচ্ছে। বিমান বন্দর কল্যাণ ডেস্কের এডি ফখরুল আলম আজ এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
অর্থনৈতিক মন্দা এবং মরণঘাতী মহামারী পরিস্থিতিতে সউদীসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো থেকেও লাখ লাখ প্রবাসী কর্মী দেশে ফেরার ঝুঁকিতে রয়েছেন। এসব দেশগুলোতে প্রায় ৪০ লাখ বাংলাদেশি অবস্থান করছে।
বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রায় ১ কোটি রেমিট্যান্স যোদ্ধা (বাংলাদেশি কর্মী) কঠোর পরিশ্রম করে দেশের অর্থনীতির চাকাকে সচল রেখেছেন। করোনা মহামারীর মধ্যেও প্রবাসী আয় বা রেমিট্যান্স ফের ঘুরে দাঁড়িয়েছে। ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে রেকর্ড পরিমাণ রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসী কর্মীরা। চলতি মাসের প্রথম ২১ দিনে ১১২ কোটি ১০ লাখ ডলার পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। বাংলাদেশি টাকায় যার পরিমাণ ৯ হাজার ৫২০ কোটি টাকা। বাংলাদেশ ব্যাংক এ তথ্য জানিয়েছে।
প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানায়, বিদেশ প্রত্যাগত অসহায় প্রবাসী কর্মীদের পুনর্বাসনে সরকার ব্যাপক উদ্যোগ নিচ্ছে। প্রত্যাগত অসহায় কর্মীদের পুনর্বাসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫শ’ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। শিগগিরই এসব অর্থ প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকে পাঠানো হবে। এছাড়া প্রত্যাগত কর্মীদের পুনর্বাসনে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড থেকে ২শ’ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই এসব অর্থ প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংককে হস্তান্তর করা হবে। আজ শনিবার প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন ইনকিলাবকে এ তথ্য জানান।
এক প্রশ্নের জবাবে প্রবাসী সচিব বলেন, বিদেশ প্রত্যাগত কর্মীরা সরকারের ঋণের অর্থ নিয়ে মেয়ের বিয়ে দেয়া এবং ছেলের চিকিৎসা করালে হবে না। ঋণ বিতরণের অর্থ দিয়ে সঠিকভাবে বিনিয়োগ হচ্ছে কিনা সে ব্যাপারে প্রত্যাগত কর্মীদের ট্রেনিং দেয়া হবে। প্রবাসী সচিব বলেন, সরকারের ঋণের টাকায় যথাযথ বিনিয়োগের মাধ্যমে প্রত্যাগত কর্মীদের প্রতিটা পরিবার যাতে স্বাবলম্বি হতে পারে এ ব্যাপারে জোড়ালোভাবে মনিটর করা হবে।
বায়রার ইসি’র অন্যতম সদস্য গোলাম মাওলা রিপন আজ শনিবার ইনকিলাবের সাথে আলাপকালে বিদেশ প্রত্যাগতদের পুনর্বাসনে ৭শ’ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, বিদেশ প্রত্যাগত প্রবাসী কর্মীরা করোনাভাইরাস মহামারীর আগে বিদেশে কঠোর পরিশ্রম করে প্রচুর রেমিট্যান্স দেশে পাঠাতো। এখন তাদের আয় রোজগারের কোনো পথ নেই। এসব প্রত্যাগত প্রবাসী কর্মীদের মাঝে সুষ্ঠুভাবে ঋণ বিতরণে কোনো প্রকার অহেতুক হয়রানি এবং অনিয়মের ঘটনা না ঘটে সে ব্যাপারে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।
উল্লেখ্য,করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে গত ১ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত অবৈধ অভিবাসীদের কুয়েত ছাড়ার জন্য সময়সীমা নির্ধারণ করে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করে দেশটির সরকার। প্রায় সাড়ে ৪ হাজার অবৈধ বাংলাদেশি কর্মী সাধারণ ক্ষমার আবেদন করে। কুয়েত সরকার তাদের থাকা-খাওয়া এবং বাংলাদেশে পৌঁছে দেয়ার ঘোষণা দেয়। রাজধানী কুয়েত সিটির বাইরে চারটি ক্যাম্পে তাদের রাখা হয়েছে।
কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, দেশটিতে এক লাখ ৬০ হাজার অবৈধ অভিবাসী রয়েছে। এবার ২০২০ এর সাধারণ ক্ষমার সুযোগ নিয়েছেন ২৫ হাজার অবৈধ অভিবাসী। অর্থাৎ এখনও এক লাখ ৩৫ হাজার অবৈধ অভিবাসী সাধারণ ক্ষমার সুযোগ নেয়া থেকে বিরত রয়েছে। তবে এর মধ্যে বাংলাদেশি কতজন তা জানা যায়নি। দেশটিতে প্রায় ১৫ থেকে ১৭ হাজার অবৈধ বাংলাদেশি অভিবাসী রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
মালদ্বীপস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের একটি সূত্র জানায়, মালদ্বীপের লকডাউনের কারণে অফিস-আদালত শিল্প-কারখানা হোটেল-রেস্টুরেন্ট সবকিছুই বন্ধ থাকায় প্রবাসী কর্মীরা কর্মহীন হয়ে পড়েছে। করোনা উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দেশটিতে বসবাস করা বাংলাদেশের প্রায় ৫০ হাজার প্রবাসী কর্মী চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। এর মধ্যে মালদ্বীপ থেকে বাংলাদেশে ফিরে আসবে দেড় হাজারের বেশি প্রবাসী কর্মী। করোনার কারণে বিভিন্ন সমস্যায় থাকা প্রবাসী কর্মীরা যারা স্বেচ্ছায় দেশে ফেরত আসার জন্য নিবন্ধন করেছেন সেসব কর্মীকে পর্যায়ক্রমে দেশে ফেরত নিয়ে আসা হচ্ছে। শুক্রবার রাতে মালদ্বীপ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট যোগে ১৯৮ জন প্রবাসী কর্মী দেশে ফিরেছে। আজ শনিবার বিকেলে দেশটি থেকে আরো ২০০ জন অবৈধ কর্মী দেশে ফিরছেন। রাতে কুয়েত থেকে একটি বিশেষ ফ্লাইট যোগেও ২৯০ জন্য অবৈধ কর্মী দেশে পৌঁছার কথা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
Abdul Sattar ৩০ মে, ২০২০, ৫:০১ পিএম says : 0
Good
Total Reply(0)
শাহজাহান ৩০ মে, ২০২০, ৬:৩২ পিএম says : 0
সরকার ভালো উদ্দেগ নিতেচে। নিচের স্তরের লোকগুলো সব লুটেপুটে খাবে। শুধু সেনাবাহিনীর মাধ্যমে যদি বন্টন হয় তাহলে যদি জনগণ কিচু পায়।!
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন