ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

লাদাখ সীমান্তে শক্তিশালী অস্ত্র মজুদ করছে চীন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ জুন, ২০২০, ১০:১৯ এএম | আপডেট : ১১:৪০ এএম, ১ জুন, ২০২০

লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনার মধ্যে এবার সীমান্তে শক্তিশালী অস্ত্র মজুদ করছে চীন। উভয় দেশের সেনাবাহিনী পূর্ব লাদাখের সীমান্ত অঞ্চলে ধীরে ধীরে ভারী অস্ত্র নিয়ে আসছে। সীমান্ত এলাকার কাছেই কামান এবং যুদ্ধের গাড়িসহ ভারী সরঞ্জাম ও অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আসা হচ্ছে। খবর কলকাতা২৪’র।

সামরিক সূত্রের খবর, ওই এলাকায় বিগত ২৫ দিন ধরে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘাতের উত্তেজনাপূর্ণ পরিবেশ রয়েছে।

চীন ও ভারত উভয় দেশ একদিকে যেমন সামরিক ও কূটনৈতিক পর্যায়ে আলোচনার মাধ্যমে এই বিরোধ নিষ্পত্তি করার চেষ্টা চালাচ্ছে। তেমনই একইভাবে ওই অঞ্চলে দুই দেশের সেনাবাহিনীই যুদ্ধের সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য নানা কাজ করছে।
বর্তমানে চীন মিলিটারি সীমান্তের যে এলাকায় রয়েছে সেখান থেকে ভারতের অংশে ঢুকতে মাত্র কয়েকঘণ্টা লাগবে। লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের বিভিন্ন জায়গায় ভারতের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়াচ্ছে চীন।

সূত্র জানিয়েছে, চীনা সেনাবাহিনী লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের কাছের ঘাঁটিগুলোতে নানা যুদ্ধের গাড়ি ও ভারী যুদ্ধের সঞ্জাম নিয়ে এসেছে।


ভারতীয় সেনাবাহিনীও চীনা বাহিনীকে পাল্লা দিতে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করেছে। এছাড়া আর্টিলারের মতো অস্ত্র ওই এলাকায় পাঠানো হয়েছে। ভারতীয় বিমান বাহিনীও ওই এলাকায় নিজেদের কড়া নজরে রেখেছে।

সূত্রের খবর, ইতোমধ্যেই একাধিকবার মুখোমুখি হয়েছে ভারত-চীন। তবে ফিংগার ফোর অঞ্চলে বিশাল সংখ্যায় চীন সেনা শক্তি প্রদর্শন করে দুটি রাস্তা এবং লেকের রুটের ব্যবহারে ক্ষমতা কায়েম করার চেষ্টা করেছে, তবে তা সফল হয়নি।

এদিকে, চীনকে কিছুটা হলেও কাবু করেছে ভারত। দেশের মাটির কোনওদিকেই চীন সেনাদের ঢুকতে না পারার সব ব্যবস্থা করা হয়েছে। সতর্ক রয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।

ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, এই সমস্যা সমাধানের জন্য চীনের সঙ্গে সামরিক ও কূটনৈতিক পর্যায়ে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা চলছে।
 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
Sanjay ১ জুন, ২০২০, ৮:৫১ পিএম says : 0
Army hota 6i
Total Reply(0)
MD.Merizul islam ১ জুন, ২০২০, ১১:৪৩ এএম says : 0
চীনের একটা ....ও ছিরতে পারবে না।
Total Reply(0)
jack ali ১ জুন, ২০২০, ১২:১৮ পিএম says : 0
Let them muslim killer fight each other and wipe out each others army then we can live in peace in this region.
Total Reply(0)
সাইফ ১ জুন, ২০২০, ২:৪৭ পিএম says : 0
lol চীন যদি আসলেই ডুকতে চাইতো তবে তারা আরো আগেই পারতো আসলেই তারা চায়না।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন