ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

কুমিল্লায় জনবল সঙ্কট

চাহিদানুযায়ী নমুনা সংগ্রহ করা যাচ্ছে না

কামাল আতাতুর্ক মিসেল | প্রকাশের সময় : ৫ জুন, ২০২০, ১২:০১ এএম

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) এলাকায় পর্যাপ্ত জনবল না থাকায় প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের নমুনা সংগ্রহ কার্যক্রম অনেকটাই ব্যাহত হচ্ছে। যার কারণে মানুষের চাহিদানুযায়ী নমুনাও সংগ্রহ করা যাচ্ছে না। এদিকে সঠিক সময়ে করোনার নমুনা সংগ্রহ না হয়ার কারণে কুমিল্লা নগরীতে সংক্রমণ বাড়ছে। গতকালও কুমিল্লা নগরীতে ৪৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

কুসিক সূত্র জানায়, কুমিল্লা নগরীতে করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়ে থাকে সিটি মেয়রের তত্ত¡াবধায়নে। দেশে করোনার সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত কুমিল্লা সিটি করপোরেশন এলাকায় করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৮৩৩টি। এর মধ্যে নমুনা পরীক্ষা শেষে রিপোর্ট এসেছে ৮০০টির মতো। যার মধ্যে করোনা পজিটিভ এসেছে ১৬০ জনের। এর মধ্যে মারা গেছেন চারজন এবং সুস্থ হয়েছেন ছয়জন। তবে পর্যাপ্ত লোকবল থাকলে আরও বেশি নমুনা সংগ্রহ করা যেত।

কুসিক সূত্রে আরও জানা যায়, কুমিল্লা নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডে করোনার নমুনা সংগ্রহ করার জন্য লোকবল রয়েছে মাত্র ৮ জন। যা চাহিদার চেয়ে অনেক কম। এত কম সংখ্যক লোকবল দিয়ে করোনার নমুনা সংগ্রহ করা সম্ভব হচ্ছে না। নগরীতে করোনা সংক্রমণ দেখা দেয়ার পর কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগের বেক্সিনেটর সুপারভাইজার পদে কর্মরত মো. জহিরুল ইসলামকে কুমিল্লা নগরীর করোনার নমুনা সংগ্রহের কো-অর্ডিনেটর করা হয়েছে। তিনি কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মা ও শিশু টিকাদান কর্মসূচি প্রকল্পে কর্মরত। তার অধীনে চারজন টিকাদানকারী রয়েছেন। বর্তমানে ওই টিকাদানকারী চারজনও করোনার নমুনা সংগ্রহ করছেন।

জহিরুল ইসলাম জানান, করোনার নমুনা সংগ্রহের জন্য সিভিল সার্জন অফিস থেকে দুইজন এবং সিটি করপোরেশনের মাস্টার রোলের দুইজন লোক রয়েছে। তবে সিটি করপোরেশনের মত এতবড় এলাকার জন্য আটজন লোক পর্যাপ্ত নয়। প্রতিদিন অন্তত এক থেকে দেড়শ জনের বেশি লোকজনের নমুনা সংগ্রহের আবেদন আসে। কিন্তু চাইলেও এত কম সংখ্যক লোকবল নিয়ে এত বেশি লোকজনের নমুনা সংগ্রহ করা যায় না। তাই জরুরি ভিত্তিতে এখানে জনবল বাড়ানো প্রয়োজন বলে জানান তিনি।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. মনিরুল হক সাক্কু বলেন, গত বুধবার কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউ ও করোনা হাসপাতাল উদ্বোধনের পরে এই বিষয়টি স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের কাছে উপস্থাপন করি। পরে তিনি করোনার নমুনা সংগ্রহের জন্য আরও আটজন লোকবল নিয়োগ দেয়ার অনুমোদন দেন। এছাড়া নিজের তহবিল থেকে পিসিআর মেশিনের জন্য এক কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন