ঢাকা, শনিবার, ০৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭, ১২ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

র‌্যাবের এএসপির বিরুদ্ধে স্ত্রী নির্যাতন-ভ্রূণ হত্যার মামলা

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৪ জুন, ২০২০, ১০:৫৮ পিএম

র‌্যাব সদর দফতরের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) নাজমুস সাকিবের বিরুদ্ধে ভ্রূণ হত্যা, স্ত্রী নির্যাতন, যৌতুক চাওয়ার অভিযোগ তুলে মামলা করেছেন তার স্ত্রী ইশরাত রহমান। বৃহস্পতিবার রাতে রমনা থানায় এ মামলা করা হয়। রমনা থানার ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, মামলায় ইশরাত রহমান তার স্বামী নাজমুস সাকিব, শ্বশুর সফিউল্লাহ তালুকদার, শাশুড়ি খালেদা সুলতানাকে আসামি করেছেন।
ওসি আরো বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে ই-মেইলের মাধ্যমে বাদীর আইনজীবী রমনা থানায় অভিযোগটি পাঠান। তবে ই-মেইলের মাধ্যমে অভিযোগ আমরা মামলা হিসেবে না নেয়ার কথা জানিয়ে তাকে স্বশরীরে থানায় আসতে বলি। পরে তিনি থানায় উপস্থিত হওয়ায় মামলাটি নথিভুক্ত করা হয়।
র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. সারওয়ার-বিন-কাশেম জানিয়েছেন, তারা অভিযোগের বিষয়টি সম্পর্কে অবগত হয়েছেন। অভিযোগগুলো তদন্ত করবে র‌্যাব। এএসপি নাজমুস সাকিব এর আগে স্ত্রীর কর্তৃক নির্যাতনে শিকার হয়ে থানায় চারটি সাধারন ডায়েরি করেন। সব বিষয় তদন্ত করা হবে র‌্যাবের পক্ষ থেকে বলে উল্লেখ করেন লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. সারওয়ার-বিন-কাশেম।
মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, নাজমুস সাকিবের (৩৪) সঙ্গে ইশরাত রহমানের ২০১৭ সালে মার্চে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে শ্বশুর মো. সফিউল্লাহ তালুকদার (৬০), শাশুড়ি খালেদা সুলতানা (৫২) তাদের যৌতুকলোভী এবং অত্যাচারী মনোভাব প্রকাশ করতে থাকেন। আসামিরা বিভিন্ন সময় ইশরাতকে তার বাবার কাছ থেকে নগদ টাকা এনে দিতে চাপ দিতে থাকেন। টাকা না দিলে সব আসামি মিলে তাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতেন। নির্যাতনের ভয়ে তিনি তার বাবার কাছ থেকে প্রায়ই নগদ টাকা এনে আসামিদের দিতেন।
অভিযোগে আরও বলা হয়, ১২ লাখ টাকা যৌতুক দিতে না পারায় আসামিরা ইশরাতের ওপর নির্যাতন চালাতে থাকেন। ওই সময় ইশরাত গর্ভবতী হলে তার ওপর আসামিদের নির্যাতনের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। তারা তালাকের ভয় দেখিয়ে ইশরাতকে গর্ভপাত করানোর চাপ দিতে থাকেন। ইশরাত রাজি না হলে তার ওপর নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে যায়। এক পর্যায়ে ২০১৯ সালের জুলাইয়ে ইশরাতের স্বামী নাজমুস সাকিব তালাকের ভয় দেখিয়ে গর্ভপাত করান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন