ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯ আশ্বিন ১৪২৭, ০৬ সফর ১৪৪২ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

ইটভাটার ধোঁয়ায় ফসলের ক্ষতি

মহসীন আলী মন্জু, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) থেকে : | প্রকাশের সময় : ৫ জুন, ২০২০, ১২:০০ এএম

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের নওদাবস ও ফুলবাড়ী সদর ইউনিয়নের নাগদাহ গ্রামে ইটভাটার বিষাক্ত ধোঁয়ায় ধান, ফলের গাছ, বাঁশঝাড় ও সুপারির ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। ক্ষতির শিকার হচ্ছেন শতাধিক কৃষক ও দিনমজুর পরিবার। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা ভাটা মালিকের কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করলেও তারা কালক্ষেপণ করে যাচ্ছেন। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীরা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

গতকাল সকালে সরেজমিন দেখা গেছে, উপজেলার খড়িবাড়ী সাইফুর রহমান সরকারি কলেজের নিকটবর্তী এবং বড়ভিটা ইউনিয়নের নওদাবশ গ্রামে অবস্থিত মেসার্স আলতাফ ব্রিকস নামে ইটভাটা থেকে নির্গত ধোঁয়ায় অন্তত ২০ বিঘা জমির ধান চিটা হয়ে গেছে। বাদামী রঙ ধারণ করে ঝরে পড়ছে বিভিন্ন জাতের গাছের পাতা। পুড়ে গেছে বাঁশঝাড়, কলাগাছ ও সুপারি গাছের পাতা ও কান্ড। পরিপক্ক হবার আগেই আম, নারিকেল, সুপারি, লিচুসহ বিভিন্ন ফলের গাছ থেকে ঝরে পড়ছে ফল।

নওদাবস গ্রামের মুকুল চন্দ্র রায়, বিশ্বনাথ রায়, কেচু মামুদ ও তাজুল ইসলামসহ অনেকের ধানক্ষেতের পাশাপাশি বাঁশঝাড়, ফলবতি সুপারি, আম, কাঁঠাল ও লিচু গাছের ফল ঝরে পড়ছে। একই অবস্থা জাহিদুল ইসলাম, ক্ষিতিশ চন্দ্র, কুমার বিশ্বজিৎ ও বাহারউদ্দিনসহ অনেকের।
ওই গ্রামের সুকুমার রায় জানান, ইটভাটার বিষাক্ত ধোঁয়ায় তার আম ও সুপারি গাছের ফল ঝরে পড়ছে। প্রতি বছরেই ইটভাটা থেকে নির্গত ধোঁয়ায় শতশত কৃষকের ফসলসহ গাছপালা ক্ষতিগ্রস্ত হলেও ভাটা মালিকের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলে না।

নাগদাহ ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোজাম্মেল হক জানান, ভাটার বিষাক্ত ধোঁয়ায় পার্শ্ববর্তী প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকার বিভিন্ন প্রজাতির গাছপালা ও ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ভাটা মালিকের সাথে কথা বলেছি। কিন্তু তারা গুরুত্ব দিচ্ছে না।
মেসার্স আলতাফ ব্রিকসের মালিক আলহাজ আলতাফ হোসেন বলেন, গত মাসের ঘূর্ণিঝড়ের সময় ভাটা থেকে নির্গত ধোঁয়ায় এলাকার কিছু গাছপালা ও ফসলের সামান্য ক্ষতি হয়েছে। যাদের ক্ষতি হয়েছে তাদের ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহবুবুর রশীদ জানান, ইটভাটার বিষাক্ত ধোঁয়ায় ফসল ও গাছপালার ক্ষতির ঘটনা মৌখিকভাবে শুনেছি। মাঠ পর্যায়ের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাকে পাঠিয়ে ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণ করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. মাছুমা আরেফিন বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাবাসীর কাছ থেকে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন