ঢাকা, বুধবার, ০৫ আগস্ট ২০২০, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

এবার ইরানের শিপিং কোম্পানির ওপর মার্কিন নতুন নিষেধাজ্ঞা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ জুন, ২০২০, ৯:১৬ এএম

পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে ইরানের ওপর নজিরবিহীন অবরোধ ও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেই চলেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। সম্প্রতি ওই কঠোর নিষেধাজ্ঞার দীর্ঘ তালিকায় যুক্ত হয়েছে ইরানের শিপিং কোম্পানিও।

গতকালই মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এক বিবৃতিতে বলেছেন: ইরানের শিপিং কোম্পানি আইআরআইএসএল এবং চীনা শিপিং কোম্পানি ই-সেইলের ওপর ৮ জুন থেকে ওই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হয়েছে। আমেরিকা চীনা ওই শিপিং কোম্পানিকে ইরানের সহযোগী কোম্পানি বলে মনে করে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকার গত ৬ মাস আগে ইরানের শিপিং কোম্পানিসহ তাদের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কয়েকটি কোম্পানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। দীর্ঘ ১৮০ দিনের সময়সীমা শেষে ওই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করে। পম্পেও তার বিবৃতিতে বলেছে যেসব কোম্পানি এরপর থেকে আইআরআইএসএল এবং ই-সেইলের মাধ্যমে পণ্য স্থানান্তর করবে তাদের ওপরও নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে। এই নিষেধাজ্ঞা আরোপের মধ্য দিয়ে আমেরিকা মূলত ইরানে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সরঞ্জামাদি প্রবেশের পথে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করলো।

অপরদিকে মার্কিন ট্রেজারি বিভাগ ওপেকও গতকাল তেল ও অন্যান্য পণ্য পরিবাহী ১২৫ টি ইরানি জাহাজকেও 'গণবিধ্বংসী মারণাস্ত্র সংশ্লিষ্ট নিষেধাজ্ঞা'র আওতায় এনেছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে আমেরিকা আসলে ভেনিজুয়েলায় ইরানি তেলের জাহাজ প্রবেশে বাধা দিতে অক্ষম হবার কারণেই এই নয়া নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করেছে। সেদিক থেকে বিচার করলে এই নিষেধাজ্ঞা ট্রাম্প সরকারের সামরিক ও রাজনৈতিক চরম ব্যর্থতারই প্রকাশ। ওয়াশিংটন আসলে এইসব নিষেধাজ্ঞা দিয়ে তেহরানের ওপর থেকে নিজেদের ব্যর্থতার প্রতিশোধ নিতে চায়।

সম্প্রতি ইরান মার্কিন নিষেধাজ্ঞাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ভেনিজুয়েলায় কয়েকটি তেল-ট্যাংকার পাঠিয়েছে। ইরানের পক্ষ থেকে তেলবাহী ট্যাংকার পাঠানোর পর আমেরিকা এসব ট্যাংকার আটক করার হুমকি দিয়েছিল। ইরান এবং ভেনিজুয়েলা পাল্টা হুমকি দেয়ার পর আমেরিকা পিছু হটে। তেল ট্যাংকারগুলো জ্বালানি খালাস (আনলোড) করার পর এখন ইরানের পথে রয়েছে। এই ঘটনাকে বিশেষজ্ঞরা ইরানের বৃহৎ বিজয় বলে মনে করছেন।

সূত্র: পার্সটুডে

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
সেবক মজুমদার ১০ জুন, ২০২০, ৯:২৭ এএম says : 0
আমেরিকার সামনে যে নির্বাচন ওই নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্প জিতার জন্য ইরানের উপর হামলা বা তেলের জাহাজ আটক করে নাই কারন এখন যদি কোন কারনে দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হয় তাহলে ডোনাল্ডট্রাম্প এর ভোট কমে যেতে পারে ডোনাল্ডট্রাম্প যদি আবার ক্ষমতায় আসে তাহলে নিশ্চিত ইরানকে আরো বেশি কষ্ট দিয়ে মারবে
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন