ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

উত্তেজনা হ্রাসে সম্মত চীন-ভারত

সিকিম সীমান্তে হাতাহাতির ভিডিও ফাঁস কর্পস কমান্ডার পর্যায়ের বৈঠক ইতিবাচক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ জুন, ২০২০, ১২:০১ এএম

চীন ও ভারতের মধ্যে কর্পস কম্যান্ডার পর্যায়ের বৈঠক ইতিবাচক হয়েছে। ১১ ঘণ্টার ম্যারাথন বৈঠক শেষে একটি সূত্র বলছে, আন্তরিক ও গঠনমূলক পরিবেশের মধ্যেই বৈঠক হয়েছে। সূত্রের দাবি, চীন ও ভারতের সেনাবাহিনী পারস্পরিক সমঝোতার মাধ্যমে ঐক্যমত্যে পৌঁছেছে যে, তারা দ্ব›েদ্বর জায়গাগুলি থেকে বেরিয়ে আসবে। দু’দেশের মধ্যে দ্বিতীয় ধাপের সেনা কর্তাদের বৈঠক চলে দীর্ঘ ১১ ঘণ্টা ধরে। বৈঠকে প‚র্ব লাদাখের সব দ্ব›েদ্বর বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা হয়েছে এবং দু’পক্ষই এগুলো নিয়ে পরবর্তীতেও আলোচনা এগিয়ে নিয়ে যাবে বলে ঠিক করেছে। দ্ব›দ্ব থেকে বেরিয়ে আসার রোডম্যাপ কী হবে, তা নিয়েই বৈঠক হবে সেনাকর্তাদের মধ্যে। সূত্রের মারফৎ এই খবর জানা গেলেও ভারতে সরকারিভাবে এখনও বৈঠকের নির্যাস বিষয়ে কোনও বিবৃতি দেয়া হয়নি। তবে শীর্ষস্থানীয় আঞ্চলিক সামরিক কমান্ডারদের মধ্যে আলোচনার পরে উভয় পক্ষ পরিস্থিতি শীতল করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সম্মত হয়েছে বলে জানিয়েছেন চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়াং।

৬ জুন কর্পস কম্যান্ডার স্তরের বৈঠকেও সিদ্ধান্ত হয়েছিল ডি-এসক্যালেশনের। তবে তাতে কাজের কাজ কিছু যে হয়নি, তার প্রমাণ গালওয়ানের অশান্তি। এই বৈঠকের পর দু’দেশই কীভাবে সেনা ও অস্ত্রসম্ভার সরিয়ে নেয়া হবে, তা নিয়ে আলোচনা চালাবে বলে খবর।

পূর্ব লাদাখের গালওয়ানে চীন-ভারত সেনাদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘাতের পর এক সপ্তাহ কেটে গেছে। এখনও জারি রয়েছে ‘স্ট্যান্ড অফ’। অর্থাৎ, মুখোমুখি দাঁড়িয়ে দু’পক্ষ। কেউ কারও অবস্থান থেকে এক ইঞ্চিও পিছু হঠেনি। এমন পরিস্থিতিতে সোমবার ফের বৈঠকে বসেছিলেন দু’দেশের সেনাকর্তারা। পূর্ব লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছেই মলডোতে হয় এই বৈঠক। প্রেস ট্রাস্ট অফ ইন্ডিয়ার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সোমবারের বৈঠকে লেহতে মোতায়েন ১৪ নম্বর কোরের লেফটেন্যান্ট জেনারেল হরেন্দ্র সিংহ এবং চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির দক্ষিণ শিনজিয়াং মিলিটারি ডিস্ট্রিক্টের মেজর জেনারেল লিন লিউয়ের প্রায় ১১ ঘণ্টা বৈঠক হয়।

ঝাও লিজিয়াং একটি নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, ‘বৈঠকে উভয় পক্ষই তাদের পার্থক্যগুলি মোকাবেলা করতে, পরিস্থিতি সামাল দিতে এবং সংলাপ এবং পরামর্শের মাধ্যমে পরিস্থিতি দ্রুত স্বাভাবিক করতে চায়’। ঝাও যোগ করেন, উভয় পক্ষ ‘স্পষ্ট ও গভীর-মতামত বিনিময় করেছে’ এবং ‘সংলাপ বজায় রাখতে এবং সম্মিলিতভাবে সীমান্ত অঞ্চলে শান্তি ও প্রশান্তির উন্নয়নে সম্মিলিত প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে’।

করোনভাইরাস নিয়ে আলোচনা করার জন্য ভারত, চীন ও রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের মধ্যে গতকালের নির্ধারিত ভার্চুয়াল আলোচনার আগের দিন আকসাই চীনের চুশুল এলাকায় বিশ্বের জনবহুল দু’টি দেশের মধ্যে বৈঠক হয়।

সিকিম সীমান্তে হাতাহাতির ভিডিয়ো ফাঁস
ফের হাতাহাতির ঘটনা সামনে এসেছে চীন ও ভারতীয় সেনাদের মধ্যে। এবার সেনা অফিসারদের হাতাহাতির একটি ভিডিয়ো প্রকাশ্যে এসেছে। এই ভিডিয়োটি সিকিমের বরফঢাকা কোনও উপত্যকার। ভিডিয়োটি ঠিক কবেকার তা স্পষ্ট ভাবে বোঝা না গেলেও লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চীন ও ভারতীয় সেনার মধ্যে প্রাণঘাতী সংঘর্ষের পরই এই হাতাহাতির ঘটনা ঘটে বলে মনে করা হচ্ছে। ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, এক ভারতীয় সেনা জওয়ান এক চীনা অফিসারের মুখে সজোরে ঘুসি মারেন। দুই দিকের সেনাকেই একে অপরের উদ্দেশ্যে গো ব্যাক এবং ডোন্ট ফাইট জাতীয় কথা বলতে শোনা যায়।

পাঁচ মিনিটের বেশি সময়ের এই ভিডিয়োয় দুই বাহিনীকেই কোনও রকম অস্ত্র ব্যবহার করতে দেখা যায়নি। তবে শারীরিক সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে উভয় পক্ষের সেনা। কয়েক মিনিটের মধ্যে আস্তে আস্তে হাতাহাতি বন্ধ হয়।
পূর্ব লাদাখের মলডো এলাকায় গলওয়ানের সংঘাত নিয়ে সমাধানসূত্র বের করতে আলোচনায় বসেন চীন ও ভারতীয় বাহিনীর লেফটেন্যান্ট জেনারেলরা। দুই বাহিনীর শীর্ষ স্তরে বৈঠকে দিনই এই ভিডিয়ো প্রকাশিত হয়। এর আগে গত ৬ জুন দু বাহিনীর মধ্যে লেফটেন্যান্ট জেনারেল পর্যায়ে বৈঠক হয়। গত ১৫ জুন লাদাখের গালওয়ানে চীনা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে মৃত্যু হয় ২০ জন ভারতীয় সেনার। আহত হন আরও ৭৬ জন। চীন বাহিনীতেও বেশ কয়েকজন হতাহত হন হলে সূত্রের খবর।

গলওয়ানের সংঘর্ষে দুই বাহিনী কোনও আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার না করলেও লাঠি, রড ও পাথর দিয়ে হামলা হয়। কাঁটা লাগানো এক বিশেষ ধরনের লাঠিও হামলায় ব্যবহৃত হয়া। গালওয়ানের সঙ্ঘাতে ৪৫ জন চীনা সেনার মত্যু হয়েছে বা গুরুতর আহত হয়েছে বলে ভারতীয়রা দাবি করে আসছে। তবে চীন স্বীকার করেছে যে, গালওয়ানে তাদের এক কম্যান্ডিং অফিসারের মৃত্যু হয়েছে। সূত্র : এএফপি, ডেইলি মেইল ও টাইমস অব ইন্ডিয়া।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Mohammed Kowaj Ali khan ২৪ জুন, ২০২০, ১০:৪৫ এএম says : 0
ভারত ভয়ে কাঁপে থর।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন