ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ইনকিলাবের ওপর আঘাত তৌহিদী জনতা প্রতিহত করবে

বিভিন্ন সংগঠনের নিন্দা ও প্রতিবাদ অব্যাহত

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২ জুলাই, ২০২০, ১২:০৫ এএম

দৈনিক ইনকিলাবের অনলাইন ভার্সনে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনকে কেন্দ্র করে পত্রিকাটির সম্পাদক আলহাজ এ এম এম বাহাউদ্দীন ও সংশ্লিষ্ট রিপোর্টারের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়েরের ঘটনায় বিভিন্ন সংগঠনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ অব্যাহত রয়েছে। পৃথক পৃথক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশ, ইসলাম এবং মানবতার আস্থা ও ভালোবাসার প্রতীক দৈনিক ইনকিলাব। আপোষহীন ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনই পত্রিকাটির মূলভিত্তি। স¤প্রতি একটি প্রতিবেদনকে কেন্দ্র করে কুচক্রি মহল বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ইনকিলাবের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে পত্রিকাটির কণ্ঠরোধের পাঁয়তারা করছে।

তারা বলেন, সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের কারণে যদি মামলা খেতে হয় তাহলে সংবাদপত্রের স্বাধীনতা কোথায়? কুচক্রী ও সুযোগসন্ধানী মহল সংবাদপত্রের স্বাধীনতার উপর নগ্ন হস্তক্ষেপ করে সংবাদপত্রের কণ্ঠরোধ করতে চায়। এ ধরনের অপচেষ্টায় দৈনিক ইনকিলাবকে সত্য প্রকাশ থেকে বিরত রাখা যাবে না। ইনকিলাবের ওপর মামলা হামলা যে কোনো আঘাত আসলে ইসলামপ্রিয় তৌহিদী জনতা জীবনবাজী রেখে তা প্রতিহত করবে ইন শা আল্লাহ। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহার করে ইনকিলাব কর্তৃপক্ষের নিকট প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার আহবান জানান।

বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলন : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক আলহাজ এ এম এম বাহাউদ্দীন ও সংশ্লিষ্ট রিপোর্টারের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়েরের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, সাংবাদিক ও সংবাদপত্রের স্বাধীনতা বিরোধী এই কালো কানুনটি প্রণয়ন করা হয়েছে মতপ্রকাশের পথ রূদ্ধ করতেই। গণমাধ্যম ও নাগরিকদের বিরদ্ধে কথায় কথায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপব্যবহার মেনে নেয়া যায় না। তিনি আরও বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে মানুষের মতপ্রকাশের নাগরিক অধিকারের পাশাপাশি এখন গণমাধ্যম কর্মীদের স্বাধীনতা কেড়ে নিয়ে দেশে এক নায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করছে। পরিষ্কারভাবে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন গণমাধ্যম ও বাক স্বাধীনতার জন্য মারাত্মক হুমকি। অবিলম্বে ‘নিবর্তনমূলক’ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করতে হবে। তিনি বলেন, দেশ, ইসলাম এবং মানবতার আস্থা ও ভালোবাসার প্রতীক দৈনিক ইনকিলাব। আপোষহীন ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনই পত্রিকাটির মূলভিত্তি। স¤প্রতি একটি প্রতিবেদনকে কেন্দ্র করে বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ইনকিলাবের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে পত্রিকাটির কণ্ঠরোধের পাঁয়তারা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, যদি সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের কারণে মামলা খেতে হয় তাহলে সংবাদপত্রের স্বাধীনতা কোথায়? কুচক্রি ও সুযোগসন্ধানী মহল সংবাদপত্রের স্বাধীনতার উপর নগ্ন হস্তক্ষেপ করে সংবাদপত্রের কণ্ঠরোধ করতে চায়। দৈনিক ইনকিলাবকে সত্য প্রকাশ থেকে বিরত রাখা যাবে না। তিনি অবিলম্বে হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহার করে ইনকিলাব কর্তৃপক্ষের নিকট প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার আহবান জানান।

আল-এমদাদ সেবা সংস্থা বাংলাদেশ : আল এমদাদ সেবা সংস্থা বাংলাদেশ-এর চেয়ারম্যান মুফতি ফখরুল ইসলাম ও মহাসচিব মুফতি আব্দুল আলীম বলেছেন, ইনকিলাব যুগ যুগ ধরে তৌহিদী জনতার কথা বলে আসছে। হয়রানিমূলক মামলা দিয়ে ইনকিলাবের কন্ঠরোধের অপচেষ্টা সফল হবে না। নেতৃদ্বয় বলেন, ইনকিলাব জন্মলগ্ন থেকেই ইসলাম ও জনগণের পক্ষে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করে যথাযথ দায়িত্ব পালন করছে। ইনকিলাবের বিরুদ্ধে মামলা করায় প্রমাণিত হয়েছে দেশে সংবাদপত্রের স্বাধীনতা বলতে কিছুই নেই। এ মামলার কারণে সরকারের ভাবমর্যাদা চরমভাবে ক্ষুন্ন হবে। দৈনিক ইনকিলাবের ওপর মামলা হামলা যে কোনো আঘাত আসলে ইসলামপ্রিয় তৌহিদী জনতা ইনকিলাব রক্ষায় জীবনবাজী রেখে তা প্রতিহত করতে প্রস্তুত রয়েছে। নেতৃদ্বয় বলেন, অবিলম্বে ইনকিলাবের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার করুন। তারা বলেন, সত্যের সন্ধানে ইনকিলাব কোনো দিন অশুভ শক্তির সাথে আপোষ করেনি।

সম্মিলিত ইসলামী ঐক্যজোট : চেয়ারম্যান প্রবীণ রাজনীতিবিদ বর্ষীয়ান আলেমেদ্বীন আল্লামা জাফরুল্লাহ খান ও মহাসচিব অ্যাডভোকেট খায়রুল আহসান ইনকিলাব সম্পাদকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, দৈনিক ইনকিলাব যুগ যুগ ধরে ইসলাম মানবতা ও দেশ জনগণের পক্ষে বলিষ্ঠ ভ‚মিকা রাখছে। যার কারণে জনগণের কাছে আস্থা অর্জন করেছে পত্রিকাটি।

নেতৃদ্বয় বলেন, ওদের জানানেই হুমকি ধমকি ভয় ভীতি দেখিয়ে মামলা হামলা করে দৈনিক ইনকিলাবকে সত্য প্রকাশ থেকে বিরত রাখা যাবে না। নেতৃদ্বয় অনতিবিলম্বে হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান। খেলাফতে ইসলামী বাংলাদেশ : ইনকিলাবের বিরুদ্ধে মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে খেলাফতে ইসলামী বাংলাদেশ এর মহাসচিব ও ইসলামী ঐক্যজোটের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা ফজলুর রহমান বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন এখন গলার কাটা হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিতর্কিত এই আইন বাতিল করে গণমাধ্যমের স্বকীয়তা ও সংবাদকর্মীদের স্বার্থ ঠিক রেখে নতুন আইন করতে হবে। অন্যথায় দেশে দুর্নীতির সয়লাব বন্ধ হবে না। বরং যেসব গণমাধ্যম দুর্নীতি বিরোধী সংবাদ পরিবেশন করবে তারাই দুর্নীতিবাজদের আইনের মারপ্যাচে হয়রানির শিকার হবে। বিবৃতিতে মাওলানা ফজলুর রহমান অবিলম্বে ইনকিলাবের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (7)
তানিয়া ১ জুলাই, ২০২০, ২:১৭ এএম says : 0
ইনকিলাবের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে।
Total Reply(0)
রাসেল ১ জুলাই, ২০২০, ২:১৮ এএম says : 0
এ মামলা প্রত্যাহার করা না হলে দেশের সাধারণ জনগণ মাঠে নামতে বাধ্য হবে।
Total Reply(0)
মারিয়া ১ জুলাই, ২০২০, ২:১৮ এএম says : 0
আমরা অবিলম্বে দৈনিক ইনকিলাবের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানাচ্ছি।
Total Reply(0)
কাওসার ১ জুলাই, ২০২০, ২:১৮ এএম says : 0
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ইনকিলাব সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের স্বেচ্ছাচারিতা ছাড়া আর কিছুই না।
Total Reply(0)
সাইফুল ১ জুলাই, ২০২০, ২:১৯ এএম says : 0
ইনকিলাব সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে সংবাদপত্রের স্বাধীনতার ওপর নগ্ন হস্তক্ষপের অপচেষ্টা চালাচ্ছে।
Total Reply(0)
Mohammad Zainal Abedin ১ জুলাই, ২০২০, ৪:০৩ এএম says : 0
The Daily Inqilab is a vanguard of Bangladesh, it’s identity and independence. I personally owe to it. It helped me and many others to establish as patriotic journalists and researchers. Let this daily survive.
Total Reply(0)
এ, কে, এম জামসেদ ১ জুলাই, ২০২০, ১০:১৬ এএম says : 0
বর্তমানে কথা বলার স্বাধীনতা নাই। সঠিক লিখার স্বাধীনতা নাই।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন