ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৬ আগস্ট ২০২০, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৫ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

ডি সিলভার পর থারাঙ্গা

ভারতের কাছে শ্রীলঙ্কার ম্যাচ ‘বিক্রি’

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২ জুলাই, ২০২০, ১২:০২ এএম

২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনাল পাতানোর অভিযোগ তদন্তের শুরুতে অরবিন্দ ডি সিলভাকে ছয় ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে শ্রীলঙ্কা পুলিশের নতুন প্রতিষ্ঠিত ক্রীড়া সম্পর্কিত দুর্নীতি দমন ইউনিট। শ্রীলঙ্কার ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ও সাবেক অধিনায়ক ডি সিলভা ২০১১ বিশ্বকাপের সময়ে দলটির প্রধান নির্বাচকের ভ‚মিকায় ছিলেন। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ৫৪ বছর বয়সী ডি সিলভা কোনো বিবৃতি দিতে রাজি হননি। আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, ছয় ঘণ্টা ধরে অন্তত তিনজন গোয়েন্দার বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়েছে তাকে।

গতপরশু কলম্বোতে দুর্নীতি দমন ইউনিটের সুপারিন্টেন্ডেন্ট জগথ ফনসেকা স্থানীয় গণমাধ্যমের কাছে বলেন, ‘আমরা ম্যাচ পাতানোর অভিযোগের (২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনাল) তদন্ত শুরু করেছি। অরবিন্দ ডি সিলভা যে বিবৃতি দিয়েছেন তার ভিত্তিতে আমরা ২০১১ সালের স্কোয়াডের অন্যতম খেলোয়াড় উপুল থারাঙ্গাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য বুধবার (গতকাল) তলব করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ রিপোর্টটি লেখা পর্যন্ত এরচেয়ে বেশি কিছু জানা যায়নি।
ওই আসরের ফাইনালে মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে লঙ্কানরা আগে ব্যাট করে ছুঁড়ে দিয়েছিল ২৭৫ রানের লক্ষ্য। জবাবে গৌতম গম্ভীর ও মহেন্দ্র সিং ধোনির দারুণ দুটি ইনিংসে ৬ উইকেটের জয় পেয়েছিল ভারত। ওপেনার গম্ভীর খেলেছিলেন ৯৭ রানের ইনিংস। অধিনায়ক ধোনির ব্যাট থেকে এসেছিল অপরাজিত ৯১ রান। ভারতের কাছে হেরে যাওয়া ওই ফাইনালের একাদশে আগের ম্যাচের একাদশ থেকে চারটি পরিবর্তন এনেছিল শ্রীলঙ্কা। এতগুলি পরিবর্তন নিয়ে তখন বিস্ময় ছিল অনেকেরই, প্রশ্ন ওঠে এখনও। ডি সিলভা ছিলেন ওই সময় জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক।
ওই বিশ্বকাপের সময়ের শ্রীলঙ্কার ক্রীড়ামন্ত্রী মাহিন্দানন্দা আলুথগামাগে গত ১৮ জুন অভিযোগ করেছিলেন, ২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনাল ভারতের কাছে বিক্রি করেছে তার দেশ। কয়েকদিন পর অবশ্য সুর পাল্টে তিনি বলেন, তার কেবল সন্দেহ হয়। ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে ম্যাচ পাতানো নিয়ে তদন্ত শুরু করার নির্দেশ দিয়েছে শ্রীলঙ্কা সরকার। বর্তমান ক্রীড়া মন্ত্রী দুল্লাস আলাহাপ্পেরুমা তদন্তের অগ্রগতি নিয়ে প্রতি দুই সপ্তাহ অন্তর প্রতিবেদনও চেয়েছেন।
মন্ত্রীর অভিযোগের পর ভারতের ক্রিকেট বোর্ডকেও ডি সিলভা আহবান করেছিলেন আলাদা করে তদন্ত করতে। প্রয়োজনে মহামারীর মধ্যেও ভারতে গিয়ে তিনি তদন্তে সহায়তা করবেন বলে জানিয়েছিলেন ৫৪ বছর বয়সী সাবেক এই ক্রিকেটার, ‘আমি আর চুপ থাকব না। এটা ভয়ংকর অভিযোগ। তার প্রমাণ দেওয়া উচিত। কাছে তথ্য থাকলে ৯ বছর কেন চুপ করে ছিল? এভাবে মিথ্যা বলে পার পেতে দেওয়া উচিত না। এটা তদন্তের জন্য আইসিসি, এসএলসি ও বিসিসিআইয়ের কাছে আমি অনুরোধ করছি।’
আলুথগামাগে অভিযোগ তোলার পরই অবশ্য তা উড়িয়ে দিয়েছিলেন ওই বিশ্বকাপের অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারা ও সিনিয়র ক্রিকেটার মাহেলা জয়াবর্ধনে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন