ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বগুড়া এক্সিম ব্যাংকের কর্মকর্তা মির্জাপুরে উদ্ধার

প্রকাশের সময় : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) উপজেলা সংবাদদাতা : রাজশাহী থেকে অপহরণ হওয়া বগুড়া এক্সিম ব্যাংকের বরখাস্ত হওয়া এসএভিপি আখতারুজ্জামান ওরফে কচি (৫০) মির্জাপুর থেকে উদ্ধার হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুর উপজেলার ধেরুয়া এলাকায় টহল পুলিশের কাছে হাজির হয় সে। তবে অপহরণের পর কচির উদ্ধার হওয়ার বিষয়টি সন্দেহের চোখে দেখছে মির্জাপুর থানা পুলিশ।
আখতারুজ্জামান রাজশাহী জেলার বোয়ালিয়া থানার ধানসিঁড়ি শিরোইল মঠপুকুর গ্রামের আফসার উদ্দিন আহমেদের ছেলে।
বোয়ালিয়া থানার এজারহার সূত্রে জানা গেছে, বরখাস্ত হওয়া এসএভিপি আখতারুজ্জামান গত ২১ জানুয়ারি দুপুর দেড়টার দিকে রাজশাহী শহরের নিউমার্কেটের পূর্ব গলি মাওলানা কাসেমি মাদরাসা রোডের দক্ষিণ পাশে বন্ধু জিয়াদুর রহমানের নন্দিতা প্রেসে বসে ছিলেন। এমন সময় অজ্ঞাতনামা দু’লোক এসে তাকে জোরপূর্বক সাদা মাইক্রোবাসে তুলে অপরহণ করে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে আকখতারুজ্জামানের পিতা আফসার উদ্দিন আহমেদ ওই দিনই বোয়ালিয়া মডেল থানায় হাজির হয়ে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন।
এদিকে উদ্ধার হওয়া আখতারুজ্জামান কচি পুলিশকে জানিয়েছেন, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুর উপজেলার ধেরুয়া নাসির গ্লাস ফ্যাক্টরীর সামনে চোখ বাঁধা অবস্থায় তাকে ফেলে রেখে যায় অপহরণকারীরা।
কচি পুলিশের কাছে আরো জানান, অপরহরণকারীরা গত ১৩ দিনই তাকে চোখ বেঁধে এক কাপড়ে রেখেছিল। চোখ বেঁধে ফেলে রাখার আগে অপহরণকারীরা তাকে জানায়, একটু দূরে পুলিশ রয়েছে আমরা চলে যাওয়ার ১৫ মিনিট পর তুই পুলিশের কাছে যাবি। পরে তারা চলে যাওয়ার পর কচি পুলিশের কাছে যান। এদিকে অপহরণ হওয়া কচির উদ্ধার হওয়ার বিষয়টি সন্দেহের চোখে দেখছে পুলিশ। চোখ বাঁধা অবস্থায় এক পোশাকে ১৩ দিন থাকার পরও আখতারুজ্জামান ওরফে কচিকে অনেকটা সুস্থ ও স্বাভাবিক দেখাচ্ছিল। পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন চোখ বাঁধা অবস্থায় থাকলেও তার চোখে কোনো দাগ ছিল না এমনকি এক পোশাকে থাকলেও তার পরনের পোশাক ছিল পরিপাটি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন