ঢাকা শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

মিয়ানমারের দুই সেনা প্রধানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা ব্রিটেনের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ জুলাই, ২০২০, ৪:২৭ পিএম

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর প্রধান মিন অং লাইং এবং উপ প্রধান সো উইনের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ব্রিটেন। সোমবার ব্রিটেনের সংসদকে এই তথ্য জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব বলেছেন, ‘মুক্ত গণমাধ্যম, ধর্মীয় স্বাধীনতা রক্ষা এবং মানবাধিকার লঙ্ঘন ঠেকাতে এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।’

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর প্রধান ও উপ প্রধানের বিরুদ্ধে গণহত্যা, মানবতাবিরোধী ও যুদ্ধাপরাধের তদন্ত এবং বিচারের সুপারিশ করেছিল জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন। তারা ছাড়াও এই তালিকায় রাশিয়া ও সউদী আরবের ৪৫ কর্মকর্তার নামও রয়েছে। এ বিষয়ে ডমিনিক রাব জানান, ‘সাম্প্রতিককালের নিকৃষ্ট মানবাধিকার লঙ্ঘনের’ বিভিন্ন ঘটনায় জড়িত থাকায় তাদের ব্রিটেনে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা এবং দেশটিতে থাকা তাদের সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

তালিকায় থাকা ব্যক্তিদের ২৫ জন রুশ এবং ২০ জন সউদী নাগরিক। রুশ নাগরিকদের বিরুদ্ধে আইনজীবী সার্গেই মাগনিটস্কি হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। অন্যদিকে সাংবাদিক জামাল খাশোগজি হত্যায় সন্দেহভাজন হওয়ায় সউদী কর্মকর্তাদের তালিকাভুক্ত করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। এছাড়া উত্তর কোরিয়ার একাধিক ব্যক্তিকেও নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনা হয়েছে। তবে নিষেধাজ্ঞার এই সিদ্ধান্ত খুব দ্রুত কার্যকর হবে না বলে মন্তব্য করেছেন ব্রিটেনের প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টির পররাষ্ট্র বিষয়ক মুখপাত্র লিসা ন্যান্ডি। ব্রিটেন আগে থেকেই দুর্নীতিবাজ, নির্যাতনকারী ও খুনীদের জন্য স্বর্গ, উল্লেখ করেন তিনি।

এদিকে ব্রিটেনের এমন পদক্ষেপের পাল্টা জবাব দেয়ার হুমকি দিয়েছে রাশিয়া। লন্ডনের রুশ দূতাবাস থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘ব্রিটেনের শত্রুতামূল পদক্ষেপের বিরুদ্ধে প্রতিশোধমূলক পদক্ষেপ নেয়ার অধিকার রাশিয়ার রয়েছে।’ এর আগে যুক্তরাষ্ট্রও এই ব্যক্তিদের উপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল। ব্রিটেনও একই সিদ্ধান্ত নেয়ায় স্বাগত জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘যুক্তরাজ্যের নিষেধাজ্ঞা নীতি এবং আমাদের দুই গণতন্ত্রের পারস্পরিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে এই নিষেধাজ্ঞা নতুন এক যুগের সূচনা করেছে।’

উল্লেখ্য, ইউরোপ থেকে বেরিয়ে যাওয়ায় ‘গ্লোবাল হিউম্যান রাইটস স্যাংশন রেগুলেশনস’ নামে নতুন নিষেধাজ্ঞা নীতি চালু করেছে ব্রিটেন। এই বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের সঙ্গে ব্রিটেনের কর্মকর্তারা একসঙ্গে কাজ করবে বলেও জানিয়েছেন রাব। সূত্র: এএফপি, ডিপিএ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
শীতবিকেল ৭ জুলাই, ২০২০, ৮:০০ পিএম says : 0
শয়তান
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন