ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭, ২৩ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

রাউজানে নতুন ১৩ জনসহ করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২৬২

এক সংবাদকর্মীসহ সুস্থ ১০৭ জন

রাউজান (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৭ জুলাই, ২০২০, ৯:২১ পিএম

রাউজানে আরও ১৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতাল সুত্রে এ তথ্য জানা যায়। উপজেলা কমপ্লেক্স সুত্রে আরো জানা যায়, রাউজানে এ পযন্ত করোনা রোগী সংখ্যা ২৬২ জনে দাড়িয়েছে। সুস্থ হয়েছে প্রায় ১০৭ জন। উপজেলায় মারা গেছেন একজন। এ পর্যন্ত নমুনা সংগ্রহ হাজারের কাছাকাছি।
এর আগে সোমবার ২৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৪ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। ওইদিন উপসর্গ আছে রাউজানের এমন ২৮ জন বাসিন্দার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে মোট ১৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।
রাউজান উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নুর আলম দীন বলেন, এ উপজেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে। প্রায় প্রতিদিনই পাওয়া যাচ্ছে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৬২। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১০৭ জন। একজন মারা গেছেন। এ ছাড়া করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন অন্তত ৩০ জন।
এদিকে রাউজান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়োজিত স্বাস্থ্যকর্মী ও তার শিশুসন্তানসহ একই পরিবারের তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ তথ্য নিশ্চিত করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্যকর্মী হেলাল উদ্দিন (৩৫) বলেন, প্রথমে আমি এরপর আমার ১২ বছর বয়সী মেয়ে ইমা মনি ও ছোট ভাই এরিয়া এফসি (আর্মি) এর কার্যালয় চট্টগ্রাম সেনানিবাসের অফিস সহায়ক গোলাম মোস্তফা (৩০) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। বর্তমানে আমি ও আমার ছোট ভাই মোস্তফা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলশসনে আছি। আমার মেয়ে বাড়িতে আলাদা ঘরে আইসোলশনে আছে।’
জানা যায়, করোনা আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মী ও তার ভাই মোস্তফা উপজেলা মধ্যম কদলপুর গ্রামের আবুল হোসেন পোস্ট মাস্টারের বাড়ির মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে
এছাড়াও রাউজান উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবদুল্লাহ আল মাহমুদ ভূইয়া ও তাঁর স্ত্রী আফরোজ আফরানা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গত রবিবার রাতে প্রাপ্ত রিপোর্টে তাদের করোনা পজিটিভ আসে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবির সোহাগ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন ‘এসিল্যান্ড আবদুল্লাহ আল মাহমুদ ভাইয়া ও তার স্ত্রীর উপসর্গ থাকায় গত শনিবার রাউজান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তারা নমুনা দেন। নমুনা পরীক্ষায় তাদের দুইজনেরই করোনা পজেটিভ আসে। তিনি বলেন, স্বামী-স্ত্রী দুজনেই এখন রাউজানের সরকারি বাসায় হোম আইসোলেশনে আছেন।
উল্লেখ্য, গত ২১দিন করোনা আক্রান্ত থাকার পর আইসোলেশনে থেকে সুস্থ হয়েছেন উপজেলায় কর্মরত সাংবাদকর্মী মো. আরফাত হোসেন। মঙ্গলবার (৭ জুলাই) সকালে দ্বিতীয়বার করোনা পরীক্ষায় তার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। এর আগে গত ১৭ জুন তার করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন