ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ট্রলার ছিনতাইয়ের লক্ষে পিতা-পুত্রকে পরিকল্পিতভাবে খুন করেছে তিন ঘাতক

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৮ জুলাই, ২০২০, ১:১০ পিএম

চার লাখ টাকার একটি ট্রলার ছিনতাই করার জন্য নির্মমভাবে খুন করা হয়েছে পিতা-পুত্রকে। ঢাকার কেরানীগঞ্জ তেলাঘাটে গ্রেফতার হওয়া তিন ঘাতক বরিশালের পিতা-পুত্রকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। ছিনতাই করা ট্রলারটি বিক্রী করতে তারা সেখানে গিয়েছিল। বরিশাল পুলিশ লাইন্সের সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান জেলা পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম। গ্রেফÍারকৃত তিন ঘাতক হচ্ছে, বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুবারচর গ্রামের বাদশা হাওলাদার (৩৮), একই উপজেলার গোমা এলাকার মো. শাহিন খাঁ (২৫) ও হানিফ হাওলাদার (১৭)।

এসপি জানান, ওই তিনজনের মধ্যে বাদশা হাওলাদারের বিরুদ্ধে পূর্বে দুটি ডাকাতি মামলা রয়েছে। কিন্ত তারা পেশাদার খুনীদের মতো পরিকল্পিতভাবে পিতা-পুত্রকে খুন করে ট্রলার ছিনতাই করেছে। খুনের শিকার ইয়াসিনের মোবাইল ফোন খুনীরা নিয়ে যাওয়ায় ওই ফোন ট্রাকিং করে তিন ঘাতকের অবস্থান পুলিশ নিশ্চিত হয়।
হত্যাকান্ডের শিকার হেলাল উদ্দিন হাওলাদার (৫৫) তার ছেলে ইয়াসিন হাওলাদার (২০) পেশায় মাছ ধরার ‘চাই’ বিক্রেতা। তাদের বাড়ি পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার কলারদোয়ানিয়া গ্রামে। প্রত্যন্ত গ্রামের হাটে চাই বিক্রি করার জন্য পিতা-পুত্র মাসে ৯ হাজার টাকার চুক্তিতে ট্রলার ভাড়া করে বাকেরগঞ্জ উপজেলার কবাই এলাকায় গিয়েছিল। কিন্তু গত শুক্রবার ঘাতকদের হত্যার শিকার হয় পিতা-পুত্র।

এসপি জানান, ট্রলারটি ছিনতাইয়ের টার্গেট করে ঘাতকরা ৪/৫ দিন আগে থেকে পিতা-পুত্রের ওপর নজরদারী রাখে। গত শুক্রবার দুপুরে কবাই ইউনিয়নের শতরাজ হাটে ঘাতকরা পিতা-পুত্রের কাছ থেকে ৬০টি চাই কেনে। পরে ওই চাইগুলো তাদের নির্ধারিত স্থানে পৌঁছে দিতে বলে। চাই পৌঁছে দেয়ার জন্য ঘাতকদের সঙ্গে নিয়ে পিতা-পুত্র ট্রলারে রওয়ানা হন। পান্ডব নদীর চর ল²ীপাশা’র দুর্গম স্থানে পৌঁছালে সেখানে ট্রলার থামাতে বলা হয়। চাই’র মূল্য বাবদ টাকা দেবার কথা বলে পুত্র ইয়াসিনকে দূরে ডেকে নিয়ে তার গলা ছুড়ি চালিয়ে হত্যা করে এক ঘাতক। পরে পিতা হেলাল উদ্দিনকে পানিতে চুবিয়ে ও পেটে ছুরির চালিয়ে হত্যা করে ঘাতকরা।
এরপারেই তিন ঘাতক ট্রলারটি বিক্রির জন্য ঢাকার কেরানীগঞ্জে নিয়ে গিয়ে সোমবার পুলিশের হাতে ধরা পরে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন