ঢাকা, সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৯ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

মৃত্যু ২২শ’ ছুঁইছুঁই : পরীক্ষা ও শনাক্ত রোগী বেড়েছে

দেশে করোনাভাইরাস

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ জুলাই, ২০২০, ১২:০২ এএম

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা ও রোগী শনাক্তের সংখ্যা বেড়েছে। কমেছে মৃতের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। পরীক্ষাকৃত ১৫ হাজার ৬৭২টি নমুনার মধ্যে ভাইরাসের উপস্থিতি মিলেছে ৩ হাজার ৪৮৯টি নমুনায়। গত মঙ্গলবার ১৩ হাজার ১৭৩টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩ হাজার ২৭ জন রোগী শনাক্ত এবং ৫৫ জনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এ পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ১৯৭ জনে। যার ৭৯ দশমিক ২৪ শতাংশই পুরুষ। নারী ২০ দশমিক ৭৬ শতাংশ। সংখ্যায় যথাক্রমে এক হাজার ৭৪১ ও ৪৫৬ জন। আর আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা এক লাখ ৭২ হাজার ১৩৪ জন। আরো ২ হাজার ৭৩৬ জনের সুস্থ হবার মধ্য দিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ৮০ হাজার ৮৩৮ জন। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২২ দশমিক ২৬ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৪৬ দশমিক ৯৬ শতাংশ, মৃত্যুর হার ১ দশমিক ২৮ শতাংশ।

দেশের করোনা পরিস্থিতির সর্বশেষ তথ্য নিয়ে গতকাল বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত বুলেটিনে প্রতিষ্ঠানের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) প্রফেসর ডা. নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানান। তিনি জানান, মোট ৭৫টি ল্যাবে গত ২৪ ঘন্টায় ১৫ হাজার ৮৮৩ টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ১৫ হাজার ৬৭২টি। এপর্যন্ত পরীক্ষাকৃত নমুনার সংখ্যা ৮ লাখ ৭৯ হাজার ১৫২টি। সংগৃহিত নমুনা অনুপাতে রোগী শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৩৬ শতাংশ। বুলেটিনে ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৪৬ জনের লিঙ্গ, বয়স ও এলাকা ভিত্তিক বিশ্লেষণে তিনি জানান, মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে ৩৮ জন পুরুষ ও ৮ জন নারী। ৩৮ জন হাসপাতালে ও ৮ জনের বাড়িতে মৃত্যু হয়েছে। বয়স বিভাজনে ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ২জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ২ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে একজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১৫ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১৬ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ৬ জন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে ৩ জন এবং ৯১ থেকে একশ বছরের মধ্যে একজন। ঢাকা বিভাগে ১২ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৪ জন, বরিশাল বিভাগে ৩ জন, রাজশাহী বিভাগে ৩ জন, খুলনা বিভাগে ৯ জন, সিলেটে ৪ জন, রংপুর বিভাগে একজন। বয়স ও বিভাগ অনুযায়ী মোট মৃত্যুর হার শূণ্য থেকে ১০ বছরে মধ্যে দশমিক ৫৯, ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ১ দশমিক ১৪, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ৩ দশমিক ৩২, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ৭ দশমিক ১৫, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ১৪ দশমিক ৭৫, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ২৯ দশমিক ০৯ এবং ষাটোর্ধ্ব বয়সের মধ্যে ৪৩ দশমিক ৯৭ শতাংশ।

বিভাগ অনুযায়ী মৃত্যুর হার ঢাকা বিভাগে ৫০ দশমিক ৮০, চট্টগ্রাম বিভাগে ২৫ দশমিক ১৯, বরিশাল বিভাগে ৩ দশমিক ৬৯, রাজশাহীতে ৫ দশমিক শূণ্য ১, ময়মনসিংহ বিভাগে ২ দশমিক ৩৭, সিলেটে ৪ দশমিক ৩২, খুলনা বিভাগে ৪ দশমিক ৮২, রংপুর বিভাগে ৩ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি, আইসোলেশন, কোয়ারেন্টানের তথ্য সম্পর্কে প্রফেসর ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৪৪৫ জন। হাসাপাতাল থেকে ছাড় পেয়েছেন ৬৩৯ জন। ৭৯২ জনকে আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে। আর ছাড়া পেয়েছেন ৮০৯ জন। হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে ২ হাজার ৬৯১ জনকে। ছাড়া পেয়েছেন ৩ হাজার ১৩৪ জন।

প্রসঙ্গত, দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় ৮ মার্চ। ওই দিন তিন জন আক্রান্তের তথ্য জানিয়েছিলো স্বাস্থ্য বিভাগ। ২ জুলাই দেশের সর্বোচ্চ রোগী শনাক্ত হয়। সেদিন ৪ হাজার ১৯ জন রোগী শনাক্ত হয় বলে জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। আর দেশে ১৮ মার্চ করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যু হয়। ওই দিন একজনের মৃত্যু হয়েছিলো। ৩০ জুন একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। ওই দিন মৃত্যু হয়েছিলো ৬৪ জনের।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন