ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বরিশাল বাদে দক্ষিণাঞ্চলে করোনা সংক্রমন পরিস্থিতির অবনতি, মৃত্যুর তালিকা বাড়ছে কমছে সুস্থতার সংখ্যা

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১১ জুলাই, ২০২০, ১২:২৫ পিএম

বরিশাল বাদে দক্ষিণাঞ্চলের ৫টি জেলার করোনা সংক্রমন পরিস্থিতির আবারো অবনিত ঘটেছে। শণিবার দুপুরের পূর্ববর্তি ২৪ ঘন্টায় নতুনকরে আরো ১০৮ জন অক্রান্ত ছাড়াও পিরোজপুরের নেসারাবাদে ৮০ বছরের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। ফলে দক্ষিণাঞ্চলে সরকারী হিসেবেই করোনা সংক্রমনের সংখ্যা ৪ হাজারের কাছেÑ ৩,৯৪৪। মৃত্যুর তালিকায় লিপিবদ্ধ হয়েছে ৮২ জনের নাম। এরমধ্যে গত ১ জুলাই থেকে ৯৭৬জন আক্রান্ত ও ২২ জনের মৃত্যু ঘটেছে। অপরদিকে শণিবার সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যাটাও আগের দিনের ৬৬ থেকে প্রায় অর্ধেক, ৩৮-এ হৃাস পেয়ে মোট ১ হাজার ৪৬২ জনে দাড়িয়েছে । শের এ বাংলা মেডিকেল কলেজে শুক্রবার ২৫৮ জনের রক্তের নমুনা পরিক্ষায় ৭২ জনের দেহে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়েছে। 

গত ২৪ ঘন্টায় নতুন সংক্রমিত ১০৮ জনের মধ্যে পটুয়াখালীতে ৩৩, পিরোজপুরে ৩০, ভোলাতে ১৪, ঝালকাঠীতে ১১ এবং বরিশাল ও বরগুনাতে ১০ জন করে রয়েছেন। তবে বরিশালে রক্ত পরিক্ষা কম হওয়ায়ই আক্রান্তের সংখ্যা আগের দিনের ৫৪ থেকে ১০-এর হ্রাস পেয়েছে বলে ওয়াকিবাহাল মহল জানিয়েছে। রবিবার থেকে এ সংখ্যা আবারো বৃদ্ধির আশংকা করছেন মহলটি। এদিকে পটুয়াখালীতেও পরিস্থিতির কোন উন্নতি হচ্ছে না। শুক্রবার ২৭ আক্রান্তের স্থলে শণিবার সংখ্যাটা ৩৩-এ উন্নীত হয়েছে। গত দিন পনের যাবতই পটুয়াখালীতে সংক্রমনের হার যথেষ্ঠ উদ্বেগজনক। এমনকি এ জেলাতে মৃত্যু হারও জাতীয় ও আঞ্চলিক হারের চেয়ে বেশী। জেলাটিতে শণিবার দুপুর পর্যন্ত ৬৩৯ জন আক্রান্তের বিপরিতে মৃত্যু হয়েছে ২৪ জনের।
নতুন করে পিরোজপুরের পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে। ইতোমধ্যে জেলাটিতে ৩৭৪ জন আক্রান্তের বিপরিতে মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের। এ জেলায় ৭ জুলাই ১৬ জন, ৮ জুলাই ৩ জন, ৯ জুলাই ৫ জন, ১০ জুলাই ২৬ জন থেকে ১১ জুলাই আক্রান্তের সংখ্যাটা ৩০-এ উন্নীত হল। এমনকি শণিবার জেলাটিতে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যাটিও ছিল শূণ্য। এপর্যন্ত জেলায় মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৮১ জন। ভোলাতেও নতুন করে করেনা সংক্রমন বৃদ্ধি পেয়ে শণিবার মোট ১৪ জন আক্রান্ত হবার খবর পওয়া গেছে। আগের দিন কোন আক্রান্ত ছিলনা। জেলাটিতে এ পর্যন্ত ৫ জনের মৃত্যু সহ মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৭৬। গত দুদিনে নুতন করে কেউ সুস্থ হয়ে না উঠেলেও মোট সংখ্যাটা এ পর্যন্ত ১৯৯।
ঝালকাঠীতেও নতুনকরে আরো ১১ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছে। আগের দিন সংখ্যাটা ছিল দুজনে। এমনকি গত দুদিনে এ জেলা থেকে কারো সুস্থতার খবরও মেলেনি। জেলাটিতে এ পর্যন্ত মোট ৩১৮ জন আক্রান্তের বিপরিতে মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের। আর মোট সুস্থ হয়েছেন ১৫১ জন। রাজাপুর ও নলছিটি উপজেলার অবস্থা যথেষ্ঠ ঝুকিপূর্ণ। বরগুনাতেও শণিবার দুপুরের পূর্ববর্তি ২৪ ঘন্টায় নুতন করে ১০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। যা আগের দিন ছিল ৫ জন এবং বৃহস্পতিবারে ৮জন। জেলাটিতে এ পর্যন্ত ৩৬৮ জন আক্রান্তের বিপরিতে মৃত্যু হয়েছে ৫ জনের। আর শণিবারে ৭ জন সহ মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৯৭ জন।
এদিকে শণিবারের হিসেবে বরিশালে নতুনকরে ১০ জন করোনা সংক্রমনের কথা বলা হলেও রক্ত পরিক্ষার সংখ্যা বাড়লে আজকালের মধ্যে এ সংখ্যাটাও আবার বাড়তে পারে বলে শংকিত ওয়াকিবাহল মহল। শণিবার দুপুর পর্যন্ত বরিশাল জেলায় মোট আক্রান্ত ১ হাজার ৮৬৯ জনের মধ্যে মহানগরীতেই সংখ্যাটা প্রায় এক হাজার ৬শ। আর জেলায় মৃত্যুর সংখ্যাটাও উদ্বেগজনক পর্যায়ে, ৩১ জন। যার মধ্যে মহানগরীতেই প্রায় ১৬ জন। শণিবারে মাত্র ১জন সহ মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫৫২ জন। সুস্থতার হার ৩০%-এর কম।
শের এ বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করেনা ওয়ার্ডে শণিবার সকালের পূর্ববর্তি ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৩ জনকে ভর্তি করা হলেও ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে দু জনকে। অপরদিকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ৫ জনকে ভর্তি করা হলেও ছাড়া পেয়েছেন চারজন। বর্তমানে হাসপাতালটির করোনা ওয়ার্ডে ৫৫ জন ও আইসোলেশনে ৬১ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। হাসপাতালটিতে ভর্তিকৃতদের মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় ১৫ জনের রক্ত পরিক্ষায় ৫ জনের দেহে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। হাসপাতালটির এ দুটি ওয়ার্ডে এ পর্যন্ত ভর্তিকৃত ৮৫১ জনের মধ্যে ১২২ জনের মৃত্যু হলেও সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ৬১০জন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন