ঢাকা শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০, ১৭ আশ্বিন ১৪২৭, ১৪ সফর ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

প্রভাব খাটিয়ে স্বামীকে কাজ পাইয়ে দিতেন

ফের দুই দিনের রিমান্ডে করোনা টেস্ট জালিয়াত ডা. সাবরিনা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ জুলাই, ২০২০, ১২:০১ এএম

জেকেজি হেলথ কেয়ারের দুর্নীতিতে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের চিকিৎসক (বরখাস্ত) ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরীকে ফের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল দুপুরে ঢাকা মহানগর হাকিম মাসুদুর রহমান শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহের জন্য আজ আবার আরিফ-সাবরিনাকে মুখোমুখি করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

পুলিশ জানায়, গত ১৩ জুলাই সাবরিনাকে আদালতে হাজির করে চারদিনের রিমান্ডে চায় পুলিশ। পরে শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম শাহিনুর রহমান তার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গত বৃহস্পতিবার তিনদিনের রিমান্ড শেষ হয়। কিন্তু রিমান্ড শেষ হওয়ার আগের দিন তার স্বামী আরিফুল হক চৌধুরীকে সাত দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করা হয়। পরে শুনানি শেষে তাকে চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।
এরপর ডা. সাবরিনা ও আরিফকে একাধিকবার মুখোমুখি করা হয়। এ সময় একে অন্যের উপর দোষ দেন। এরই মধ্যে ডা. সাবরিনার রিমান্ড শেষ হয়ে যায়। পরে গতকাল দ্বিতীয় দফায় তাকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক লিয়াকত আলী।

রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, তিনদিনের রিমান্ডে থাকা অবস্থায় সাবরিনাকে দফায় দফায় মামলার বিষয়ে বিশদ জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এসময় মামলা সংক্রান্ত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেন তিনি। যা যাচাই-বাছাই চলছে। সাবরিনা তার সহযোগীদের নিয়ে সরকারি প্রতিষ্ঠানের নাম ও লোগো ব্যবহার করে প্রতারণার মাধ্যমে করোনাভাইরাসের পজিটিভ ও নেগেটিভের জাল রিপোর্ট সরবরাহ করেছিলেন। নিরীহ লোকদের টাকা আত্মসাৎ এবং অবহেলার মাধ্যমে রোগের সংক্রমণ বিস্তারে সহায়তা করে আসছে সাবরিনা। সাবরিনা স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিভিন্ন সূত্রে প্রভাব খাটিয়ে স্বামী আরিফুল হক চৌধুরীর জেকেজি হেলথ কেয়ারকে বিভিন্ন সরকারি কাজের আদেশ পাইয়ে দিতেন। ফলশ্রæতিতে জেকেজি হেলথ কেয়ার বেপরোয়াভাবে সমাজে এ ক্ষতিসাধন করে এবং বিপুল অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে বলে সাক্ষ্য প্রমাণে পাওয়া যায়।

আবেদনে আরো বলা হয়, মামলার সুষ্ঠু তদন্ত ও ন্যায় বিচারের স্বার্থে আসামির সহযোগী অন্যান্য পলাতক আসামিদের নাম ঠিকানা সংগ্রহ, গ্রেফতার, আলামত উদ্ধার, এছাড়া স্বাস্থ্য অধিদফতর ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে কোন ব্যক্তি এই ঘটনায় জড়িত তা উদঘাটনে আসামিকে আরও পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেয়া প্রয়োজন। শুনানি শেষে বিচারক সাবরিনাকে আরো দুই দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী হীরন জানান, শুনানির সময় কাঠগড়ায় সাবরিনা অনেকটাই নির্বিকার দেখা যায়। বিচারকের সঙ্গে কোনো কথা তিনি বলেননি, কোনো রকম প্রতিক্রিয়াও দেখাননি।

এদিকে সাবরিনার স্বামী জেকেজি হেলথ কেয়ারের সিইও আরিফুল হক চৌধুরী বর্তমানে দ্বিতীয় দফা রিমান্ডে গোয়েন্দা পুলিশের হেফাজেতে আছেন। ইতোমধ্যে ডিবি কার্যালয়ে কয়েক দফা তাদের মুখোমুখি করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। আজ আবার তাদের মুখোমুখি করা হবে। গোয়েন্দা পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, তাদের জাল জালিয়াতির বিষয়টি অনেকটা প্রমাণিত। আমাদের এখন মূল টার্গেট এভিডেন্স কালেক্ট করা। যার ভিত্তিতে ডা. সাবরিনাকে ফের রিমান্ডে আনা হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত ১২ জুলাই ডা. সাবরিনাকে তেজগাঁও বিভাগীয় উপ-পুলিশ (ডিসি) কার্যালয়ে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (7)
Mohammed Kowaj Ali khan ১৮ জুলাই, ২০২০, ৬:০৭ এএম says : 0
ডাক্তার মানেই অসৎ, মিত্যাবাদী, লুটেরা। ওদের শিক্ষা, মানুষকে লুন্ঠন করা। ডাক্তারদের ভবিষ্যৎ অন্দকার। যে ভাবে সকল ক্ষমতাদরদের ভবিষ্যৎ অন্দকার। পুলিশ বাহিনীরা যে ভাবে অত্যাচার করে ইহার কারণে তাদের সন্তান সন্ততি হয় চুর, চামার আর বুদ্ধিহীন। সবাই শাবদান হইয়া যাও যদি ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সূস্থ দেখতে চাও। শিক্ষা অর্জন করো ইসলাম। আমল করিয়া স্বার্থকতা অর্জন করো। ইনশাআল্লাহ।
Total Reply(0)
Md Syed Alam ১৮ জুলাই, ২০২০, ১:১৪ এএম says : 0
নারীর প্রভাবে কাজ পাই ছেলে এর চেয়ে নিলজ্জ কথা আর আছে বলে মনে হয় না আমার। কারণ নারীদের সম্পদ নিজের সভাব চরিত্র।
Total Reply(0)
Mojnu Rahaman ১৮ জুলাই, ২০২০, ১:১৬ এএম says : 0
এরা সমাজের কুলাঙ্গার ডাক্তার নামের
Total Reply(0)
Baul Mon ১৮ জুলাই, ২০২০, ১:১৬ এএম says : 0
এবারের পর্ব রিমান্ড রিমান্ড খেলা,খুব শীঘ্রই মুক্তি পাবেন বাংলাদেশের এই স্বনামধন্য সেবিকা,যাদের বিভিন্ন সময়ে বিশেষ সেবা প্রদান করেছেন,তারা কি এত সহজেই সেবার তদবির ভুলে যাবেন?না না না এটা কিছুতেই হতে পারে না,সেবা দেয়ার যথেষ্ট কিছু গুণ আছে তার মাঝে,
Total Reply(0)
Md Sobuj ১৮ জুলাই, ২০২০, ১:১৭ এএম says : 0
আমাদের পুলিশ প্রশাসন কি রিমান্ডে নিয়ে আদর করে নাকি আবার দুদিন নিতে হলো এক ঘন্টা রিমান্ডে গরম .. দিলে সব ঠিক হয়ে যাবে,
Total Reply(0)
Rubel Hadi ১৮ জুলাই, ২০২০, ১:১৮ এএম says : 0
এরাতো চুনি ফোটা, আসল গডফাদারদের আইনের আওতায় আনলে এইসব চুনি ফোটারা ভালো হয়ে যেতো। যাদের জন্য এরা সাহস পায়, তাদের আগে ধরা হোক, এদের ধরে এতো লাফালাফি বা উচ্ছাস করার কিছু নাই। এরা সাধারণ আসামি। রাগব বোয়ালদের ধরতে পারলে এরকম উচ্ছাস করা মানায়।
Total Reply(0)
হাসান ১৮ জুলাই, ২০২০, ৯:২৪ পিএম says : 0
আউটসোর্সিং নামে বাংলাদেশে চাকুরি বাণিজ্য হচ্ছে,এতে করে অনেক বেকার যুবক ফাদে পা দেয় এবং কিছুদিন চাকুরি করে তার আর চাকুরি থাকে না,অথচ ঐ চাকুরি নিতে গিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা নেয় অনেক দালাল চক্র। দালালরা বলে এই চাকুরি কিছুদিন করার পর স্হায়ী হয়ে যাবে তারপর দেখা যায় প্রজেক্টের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তর বা মন্ত্রণালয়ের সাথে ঐ প্রজেক্টের টেন্ডার না পায়লে নিয়োগ প্রাপ্ত লোকবল বেকার হয়ে পড়ে, অথচ প্রলোভন দেখিয়ে টাকার বিনিময়ে চাকুরি সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ বা তাদের মনোনিত দালালরা,এভাবে অনেক শিক্ষিত যুবক পথে বসতেছে, এ ব্যাপারে জাতীয় পত্রিকা গুলোকে আউটসোর্সিং নামের যে কাল সাপ শিক্ষিত যুবকদের ছোবল দিচ্ছে তা বর্তমান সরকারকে অভিহিত করবে বলে মনে করি।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন